সোফিয়াকে সামনে দেখে মুগ্ধ দর্শকরাযাযাদি রিপোর্ট 'অনেক কষ্টে ভিড় ঠেলে সামনাসামনি সোফিয়াকে কথা বলতে দেখেছি আর সোফিয়ার একটি ছবিও তুলতে পেরেছি। তাকে দেখে আমি মুগ্ধ।' 'টেক টক উইথ সোফিয়া' শীর্ষক অনুষ্ঠান থেকে বের হয়ে এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানান তরম্নণ সাজেদুর রহমান।
তিনি বলেন, 'অনুষ্ঠানে আসার অনেক আগেই নিবন্ধন করে রেখেছিলাম। কিন্তু এখানে কে দেখে নিবন্ধন! ভিড় ঠেলে সামনে যেতে পেরেই খুশি।'
বঙ্গবন্ধু আন্ত্মর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বুধবার বেলা আড়াইটায় দিকে হল অব ফেমে 'টেক টক উইথ সোফিয়া' নামের একটি বিশেষ অনুষ্ঠান ঘিরে তরম্নণদের উচ্ছ্বাস ছিল চোখে পড়ার মতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকালে বঙ্গবন্ধু আন্ত্মর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আনুষ্ঠানিকভাবে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের উদ্বোধন করেন। মেলা চলবে চার দিন ৬ থেকে ৯ ডিসেম্বর সকাল নয়টা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত্ম।
'টেক টক উইথ সোফিয়া' অনুষ্ঠানের জন্য অনেকেই আগে থেকে নিবন্ধন করেছিলেন। কিন্তু সোফিয়ার অনুষ্ঠান ঘিরে আগ্রহ বেশি থাকায় প্রচ- ভিড় ছিল। তাই অনেকেই ভেতরে ঢুকতে পারেননি। পরে সোফিয়ার রেকর্ডকৃত কথোপকথন অনুষ্ঠানস্থলে বড় স্ক্রিনে দেখানো হয়। ওই স্ক্রিনের সামনেও ছিল ব্যাপক ভিড়।
'টেক টক উইথ সোফিয়া' অনুষ্ঠানে সোফিয়াকে এবং এর নির্মাতাকে প্রশ্ন করেন গ্রে অ্যাডভারটাইজিং বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা অংশীদার সৈয়দ গাউসুল আলম শাওন এবং পরে তার সঙ্গে যোগ দেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ।
অনুষ্ঠানে সোফিয়াকে তার পরনে থাকা বাংলাদেশের পোশাক সম্পর্কে ও ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রগতি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়।
অনুষ্ঠানে সোফিয়ার নির্মাতা রোবোটিকস সোফিয়ার কারিগরি দিক ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কথা বলেন।
প্রথমেই সঞ্চালক শাওন সোফিয়াকে বাংলাদেশের আসার জন্য অভিনন্দন জানান। জবাবে সোফিয়া বাংলাদেশের সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, 'হ্যালো বাংলাদেশ। আই অ্যাম আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্ট ইন্টিগ্রেটেড রোবট সোফিয়া।'
শাওন সোফিয়ার কাছে ইংরেজিতে জানতে চান, 'সোফিয়া আপনি কি জানেন, এখন কোথায় আছেন?' জবাবে সোফিয়া জানাল, 'আমি বাংলাদেশে আছি। এখানে আজ থেকে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড শুরম্ন হয়েছে। আমার সামনে হাজারো তরম্নণ আমার কথা শোনার জন্য উদগ্রীব হয়ে আছেন।'
এবার সঞ্চালক সোফিয়ার পরনের পোশাকের তারিফ করেন। বলেন, 'সোফিয়া আপনি যে পোশাকটি পরেছেন, তাতে আপনাকে মানিয়েছে বেশ। আপনি কি জানেন, আপনি কী পোশাক পরে আছেন?'
রোবট খানিকটা হেসে বলে, 'আমি বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী জামদানির তৈরি পোশাক পরেছি। এই জামদানি মিহি সুতার তৈরি। আরামদায়ক এই পোশাকটি পরে আমারও ভালো লাগছে।'
এরপর সোফিয়ার উদ্ভাবক ডেভিড হ্যানসন সোফিয়ার মতো অত্যাধুনিক রোবট তৈরি গল্প বলেন। জানালেন, ছোটবেলা থেকে তিনি রোবট তৈরির স্বপ্ন দেখতেন। তার বিশ্বাস একসময় কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট মানুষের হয়ে কাজ করবে। তিনি বাংলাদেশিদের উদ্দেশ্য করে বলেন, 'আপনারা চাইলে সোফিয়ার সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারেন। কেননা এই সফটওয়্যার ওপেন সোর্সে আছে।'
তবে অনুষ্ঠানের ভোগান্ত্মি নিয়ে অনুষ্ঠানে অংশ নিতে আসা তরম্নণী সুমাইয়া কাজল বলেন, 'সোফিয়াকে দেখব বলে অনেক কষ্টে ভেতরে ঢুকেছি। তাকে শুধু এক ঝলক দেখতে পেয়েছি। এ ঠেলাঠেলিতে কথা কিছু বুঝতে পারিনি।'
ঘড়ির কাঁটায় সাড়ে চারটা। কথোপকথন শেষ। আজই সোফিয়ার ফিরে যাওয়ার কথা। তবে বঙ্গবন্ধু আন্ত্মর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের বাইরে তখনো জনগ্রোত। অনেকেই ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করছেন। আবার যারা বের হচ্ছিলেন, তাদেরও বেশ বেগ পেতে হচ্ছিল।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
প্রথম পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close