ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার পরিকল্পনা ব্যর্থযাযাদি ডেস্ক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মেব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মেকে হত্যার একটি পরিকল্পনা যুক্তরাজ্যের পুলিশ নস্যাৎ করেছে বলে স্কাই নিউজের এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে।
অত্যাধুনিক বিস্ফোরক দিয়ে লন্ডনের ডাউনিং স্ট্রিটে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সুযোগে মে-র ওপর হামলা ও তাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছিল বলে পুলিশের ধারণা।
মঙ্গলবার এক সূত্রের বরাত দিয়ে স্কাই নিউজ মে হত্যার এই পরিকল্পনার কথা জানায়। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।
যুক্তরাজ্যের মেট্রোপলিটন পুলিশ মঙ্গলবার সন্ত্রাস দমন আইনে দুই যুবককে আটকের কথা জানিয়েছে।
কাউন্টার টেররিজম ইউনিট ২৮ নভেম্বর নাইমুর জাকারিয়া রহমান ও মোহাম্মদ আকিব রহমানকে আটক করে বলে বিবৃতিতে জানায় পুলিশ।
২০ বছর বয়সী নাইমুরের বাস উত্তর লন্ডনে; ২১ বছরের আকিব থাকতেন দক্ষিণ-পূর্ব বার্মিংহামে।
স্কাই নিউজ জানিয়েছে, আটক দুই যুবক ডাউনিং স্ট্রিটে বিস্ফোরক দিয়ে হামলার পরিকল্পনার সঙ্গে জড়িত বলে সন্দেহ করছে পুলিশ।
মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থা এমআই ফাইভের প্রধান অ্যান্ড্‌রম্ন পার্কার প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার পরিকল্পনার বিষয়ে মন্ত্রিসভাকে অবহিত করেছেন বলেও স্কাই নিউজের প্রতিবেদক জানিয়েছেন।
আটক দুই যুবককে বুধবার ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করার কথা।
হত্যার পরিকল্পনার বিষয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।
মঙ্গলবার সকালে মে-র মুখপাত্র জানান, ব্রিটেন গত এক বছরে সন্ত্রাসবাদী হামলার অন্ত্মত ৯টি ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করেছে।
সাম্প্রতিক সময় যুক্তরাজ্যে একের পর এক সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটছে।
মার্চে ওয়েস্টমিনস্টার ব্রিজ এলাকায় এক ব্যক্তি পথচারীদের ওপর গাড়ি তুলে দিয়ে ও পুলিশকে ছুরি মেরে পাঁচজনকে হত্যা করে।
মে মাসে ম্যানচেস্টার আরেনায় একটি কনসার্টে আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্ত্মত ২২ জন নিহত হন।
ম্যানচেস্টার শহরের একেবারে কেন্দ্রে অবস্থিত যুক্তরাজ্যের বৃহত্তম ইনডোর স্টেডিয়াম ম্যানচেস্টার অ্যারিনা। হামলার দিন এখানে গান করেন তরম্নণ-তরম্নণীদের কাছে অতি প্রিয় যুক্তরাষ্ট্রের সংগীতশিল্পী ২৩ বছর বয়সী আরিয়ানা গ্রান্ডি। রাত সাড়ে ১০টায় গান শেষ করে মঞ্চ থেকে শিল্পী বিদায় নেন। সঙ্গে সঙ্গেই দর্শনার্থীদের হলত্যাগের পথে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। ওই পথ দিয়ে বের হলে সামনে ভিক্টোরিয়া রেলস্টেশন।
ওই দিন প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছিলেন, হল থেকে বের হওয়ার চারটি পথ রয়েছে। ভিক্টোরিয়া রেলস্টেশনের দিকের পথ ধরেই তারা বের হতে যাচ্ছিলেন। ওই গেটের ভেতরেই প্রচ- বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে পুরো ভবন। তারা বলেন, কয়েক সেকেন্ডের জন্য পুরো হল স্ত্মব্ধ হয়ে যায়। এরপর শুরম্ন হয় চিৎকার-ছোটাছুটি। কেউ কেউ জানান যে তারা অনেক মানুষকে পড়ে থাকতে দেখেছেন।
এছাড়া, জুনে লন্ডন ব্রিজ এলাকায় সন্ত্রাসীদের গাড়ি ও ছুরি হামলায় মৃতু্য হয় ১১ জনের।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin