সমঝোতায় এলেন লক্ষ্ণীপুরের এডিসি ও সাবেক সিভিল সার্জনলক্ষ্ণীপুর প্রতিনিধি এক অনুষ্ঠানে হাতাহাতির ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে দ- দেয়ার পর দেশব্যাপী সমালোচনার মধ্যে সমঝোতায় এলেন লক্ষ্ণীপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন।
বৃহস্পতিবার স্থানীয় সার্কিট হাউসে জেলা প্রশাসন ও চিকিৎসকদের মধ্যে এক বৈঠক শেষে হাত মেলান ও কোলাকুলি করেন এডিসি (ওএসডি) শেখ মুর্শিদুল ইসলাম ও সাবেক ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন সালাহ উদ্দিন শরীফ।
হদেড় ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে জেলা প্রশাসন ও স্থানীয় চিকিৎসক নেতারা অংশ নেন।
এ ব্যাপারে সালাহ উদ্দিন শরীফ বলেন, 'আন্ত্মরিক সম্পর্ক, প্রশাসনকে সঠিকভাবে পরিচালনার বিষয় বিবেচনা করে আমাদের মধ্যে যে দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে সেটি নিরসন করেছি; যাতে জনগণের সেবা বিঘ্নিত না হয়।'
এডিসি মুর্শিদুল ইসলাম বলেন, 'ঘটনা যখন অতিরঞ্জিত হয়েছে তখন আমরা একে অপরকে চিনতে পেরেছি। কিন্তু তখন পরিস্থিতি আমাদের কন্ট্রোলে ছিল না।
'যাই হোক; এখন আমরা একে অপরকে চিনেছি, জেনেছি, বুঝেছি। চিনতে না পারায় ঘটনাটি ঘটেছে, লক্ষ্ণীপুরের উন্নয়নের স্বার্থে ৪ তারিখের ঘটনা ভুলে গেছি।'
সোমবার লক্ষ্ণীপুর ডিসি কলোনির ভেতরে জেলা প্রশাসকের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত কাকলি শিশু অঙ্গন বিদ্যালয়ে প্রবেশের সময় সালাহ উদ্দিন শরীফ ও এডিসি শেখ মুর্শিদুল ইসলামের মধ্যে কথা কাটাকাটি এবং এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়।
এরপর ইউএনও নূরম্নজ্জামান ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে সালাহ উদ্দিন শরীফকে 'অসদাচরণের দায়ে' তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদ- দেন।
বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে লক্ষ্ণীপুরের ঘটনা নিয়ে প্রতিবেদন যুক্ত করে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কামাল হোসেন মিয়াজী এবং আশফাকুর রহমান মঙ্গলবার একটি রিট আবেদন করলে এডিসি ও ইউএনওকে তলবের আদেশ দেয় হাইকোর্ট।
এছাড়া মঙ্গলবার এক আদেশে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এডিসি মুর্শিদুলকে বদলি করে জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) হিসেবে মন্ত্রণালয়ে সংযুক্ত করে।
বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম, পুলিশ সুপার আ স ম মাহতাব উদ্দিন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নুরম্নজ্জামান, সিভিল সার্জন মো. মোস্ত্মফা খালেদ আহমদ, বিএমএ নেতা আশফাকুর রহমান মামুন, জাকির হোসেন ও লক্ষ্ণীপুর বারের সাধারণ সম্পাদক নুরম্নল হুদা প্রমুখ।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close