প্রযুক্তির ভবিষ্যৎ গ্রাহকশামীমা জান্নাত নতুন একটি স্মার্টফোন পাওয়াকে এখন মনে হয় নতুন একটি ফ্রিজ ঘরে কিনে আনার মতো আনন্দের। সামনের ইলেকট্রনিক প্রদর্শনীতে কী আসবে তার সব কিছু জানার আগেই আপনি অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় থাকেন নতুন কোন ফোনটা বাজারে আসছে এবং এর ফিচার কী। আজ থেকে ঠিক ১০ বছর আগে এ আগ্রহের কেন্দ্রে ছিল ল্যাপটপ।
এটা বলা যাবে না ব্যবসায়ের পণ্য হিসেবে স্মার্টফোনের দিন শেষ। পৃথিবীর ৭ বিলিয়ন লোকের মধ্যে প্রায় ৩.৫ বিলিয়ন মানুষ স্মার্টফোন ব্যবহার করে। বাচ্চাদের ছাড়া সে হিসেবে আরম্ন প্রায় ১ বিলিয়ন লোকের সম্ভাবনাময় বাজার রয়েছে এ স্মার্টফোনের। আর যার একটি স্মার্টফোন রয়েছে সে তার ফোনটি পরিবর্তন করে অন্ত্মত দুই বছর অন্ত্মর; যার ফল হিসেবে আজকে অ্যাপেলের মূল্য ৬০০ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে গেছে।
তবে উল্টো হিসাব দেখাচ্ছে এরিকসন কনজিউমার লেবসের গত বছর ডিসেম্বরে হওয়া একটি জরিপ। সেখানে বলা হচ্ছে, প্রায় অর্ধেক উত্তরদাতার একই জবাব ছিল ২০২১ সালের পর থেকে তারা হয়তো স্মার্টফোন আর ব্যবহার করবে না। তারা স্মার্টফোনের সেসব অ্যাপসকে আরও সহজভাবে ব্যবহার করতে ইচ্ছুক।
প্রকৃতপক্ষে কোনো একটি বিকল্প কিছু স্মার্টফোনের বিকল্প হিসেবে হতে পারবে না। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ডিভাইস, সফটওয়্যারগুলো বিকল্প হতে পারে স্মার্টফোনের। যেমন- একটি স্মার্ট ঘড়ি যার সঙ্গে থাকবে ইলেকট্রনিক চশমা, একটি টাচ স্ক্রিন রান্নাঘর, গাড়ি, অকলাস রিফ্‌ট ইত্যাদি।
সাম্প্রতিক সময়ে মটরোলা মোবিলিটি একটি ডিভাইসের পেটেন্ট নিয়েছে যা বসানো হবে চামড়ার নিচে এবং যা ভয়েস কমান্ড শুনে তাকে নির্বাহ করতে সক্ষম। যদি কোনো সেবার জানা প্রয়োজন পড়ে আপনি কে তবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তা আপনার ভয়েস, চোখ এবং হাতের ছাপ স্ক্যান করে তাকে জানিয়ে দিতে পারবে। এ জন্য আপনাকে আলাদাভাবে বলতে হবে না পাসওয়ার্ড
৬৭৮৮, ইউজার নেম জন ইত্যাদি।
বস্তুত স্মার্টফোন ততক্ষণ পর্যন্ত্ম বাজার থেকে উঠে যাবে না যতক্ষণ পর্যন্ত্ম ল্যাপটপ বাজারে থাকবে। আপনি যখন ঘরের বাইরে থাকেন অর্থাং আপনার টেক লাইফ থেকে একটু দূরে অবস্থান করছেন তখন এ মোবাইলে আপনি ইচ্ছা করলে ভিডিও দেখতে পারেন, খবর পড়তে পারেন এবং ছবিও তুলতে পারেন। আর এটাই ল্যাপটপের সঙ্গে মোবাইল ফোনের সাদৃশ্য। খুব বেশিদিন আগের ঘটনা নয় যে সময় নতুন ল্যাপটপ কিনতে পারাটা বেশ আগ্রহের বিষয় ছিল। সে রকমই ঘটছে বর্তমানে স্মার্টফোনের বেলায়।
তাই বলা যায়, পরবর্তী প্রজন্মের ফ্রিজ অর্থাৎ প্রযুক্তিতে থাকবে নেটওয়ার্ক কানেক্টেড, থাকবে অনেক সেন্সর এবং স্বয়ংক্রিভাবেই নিয়ন্ত্রিত হবে সেই জিনিস। তারই অপেক্ষায় এখন প্রযুক্তি নির্মাতারা।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close