নার্সকে মারধর, বাবাসহ ছাত্রলীগ নেতা আটকরাজশাহী অফিস রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের এক সিনিয়র নার্সকে মারধর করার অভিযোগে বাবাসহ স্থানীয় ছাত্রলীগের এক নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। এর আগে নার্সরা আড়াই ঘণ্টা কর্মবিরতি পালন করে।
শনিবার সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
আটকরা হলেন_ রাজশাহীর মতিহার থানার হরিয়ান ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের যুগ্ম-সম্পাদক হিমেল ও তার বাবা জাহাঙ্গীর আলম।
পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, শনিবার সকাল ৯টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা হিমেলকে সঙ্গে নিয়ে বাবা জাহাঙ্গীর আলম হাসপাতালের ৩৬ নাম্বার ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন তার মেয়েকে দেখতে যান। এ সময় হিমেল দায়িত্বরত নার্সদের কাছে বোনের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নিতে যান। একপর্যায়ে হিমেল ও নার্সদের মধ্যে কথা কাটাকাটির জেরে ফেরদৌসি খাতুন নামের এক নার্সের ওপর হিমেল চড়াও হন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই নার্স হিমেলের গালে চড় দেন। এতে হিমেল উত্তেজিত হয়ে ফেরদৌসি খাতুনকে ধাক্কাধাক্কি শুরু করেন। একপর্যায়ে হিমেলের বাবা ফেরদৌসি খাতুনকে চড়-থাপ্পড় মারতে শুরু করেন।
এ ঘটনার প্রতিবাদে নার্সরা আড়াই ঘণ্টা কর্মবিরতি পালন করেন। পরে হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে পুলিশ হিমেল এবং তার বাবা জাহাঙ্গীর আলমকে আটক করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
হাসপাতালের প্র্রশাসনিক কর্মকর্তা মোতাহার হোসেন জানান, তার সঙ্গে নার্সরা বেলা ১১টার দিকে দেখা করে ফেরদৌসি খাতুনকে মারধর এবং খারাপ আচরণের বিচার দাবি করেন। এ সময় তিনি নার্সদের কথা শুনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন। প্ররে দুপুর ১২টার দিকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।
নগরীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, 'নার্সকে মারধর ও খারাপ আচরণের কারণে বাবা-ছেলেকে আটক করা হয়েছে। এখন হাসপাতালের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।'
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
monobhubon
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin