একজনকে পায়ে পিষ্ট করা সেই হাতি এবার নিহতশেরপুর প্রতিনিধি শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার পাহাড়ি গ্রামে হাতি ও মানুষের মধ্যে দ্বন্দ্ব প্রকট আকার ধারণ করেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে হালুয়াহাটি গ্রামের চুনু ম-লের ছেলে আব্দুল হাই ওরফে নান্ডুু শেখ হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে নিহত হন।
এ ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে একই গ্রামে শনিবার সকালে ধানক্ষেত থেকে সেই গর্ভবতী মা হাতির মৃতদেহ উদ্ধার করেছেন বনবিভাগের কর্মীরা।
স্থানীয়রা বলছেন, মানুষ হত্যার প্রতিশোধ হিসেবে পরিকল্পিতভাবে হাতিকে মারা হয়েছে। তবে বনবিভাগ ও স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন বলছে- ইউরিয়া সার খেয়ে গর্ভবতী হাতিটি বিষক্রিয়ায় মারা গেছে।
বনবিভাগ ও উপজেলা প্রশাসন জানায়, শুক্রবার গভীর রাতে একপাল হাতি ফের হালুয়াহাটি গ্রামে হামলা করে। এ সময় তারা বেশ কয়েকটি বাড়ি-ঘর ভাংচুর করে এবং বসতঘরে থাকা কৃষকের ধান, চাল ও অন্যান্য খাদ্যসামগ্রী ও ইউরিয়া সার খেয়ে ফেলে।
ক্ষতিগ্রস্ত হালুয়াহাটি গ্রামের আবু সামার স্ত্রী ফজলি বেগম বলেন, 'হাতির তা-বের কারণে আমরা বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছি। আজ সকালে এসে দেখি হাতি ঘর-বাড়ি ভাংচুর করে ঘরের ভেতরে থাকা ধান, চাল ও ইউরিয়া সার খেয়ে ফেলেছে।'
বালিজুড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম বলেন, মৃত হাতিটি একটি পূর্ণবয়স্ক মা হাতি। বয়স আনুমানিক ৩০/৩৫ বছর হবে। গর্ভবতী ওই হাতি শুক্রবার রাতে পাহাড় থেকে লোকালয়ে নেমে এসে এলাকার লোকজনের ঘরবাড়িতে হানা দিয়ে ধান-চাল খেয়ে সাবাড় করে। এ সময় বস্তায় রাখা রাসায়নিক ইউরিয়া সারও খেয়ে ফেলে হাতিটি। এ কারণে হাতিটি বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মারা যেতে পারে।
শ্রীবরদী উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের ভেটেনারি সার্জন ডা. মেহেদি হাসান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, হাতিটি বিষক্রিয়ায় মারা গেছে। আর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) খালেদা নাছরিন বলেন, হাতিটি বিষক্রিয়ায় মারা গেছে বলে শুনেছেন।
প্রসঙ্গত, শ্রীবরদী উপজেলার রানীশিমুল ইউনিয়নের হালুয়াহাটি গ্রামে গত ১০ আগস্ট থেকে খাদ্যের সন্ধানে ৭০-৮০ সদস্যের এক পাল হাতি লোকালয়ে নেমে এসে সবজির ক্ষেত, খামার ও বসত বাড়িতে তা-ব শুরু করে। বৃহস্পতিবার রাতে হালুহাটি গ্রামের চুনু ম-লের ছেলে আব্দুল হাই ওরফে নান্ডুু শেখ হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে নিহত হন।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close