যুদ্ধাপরাধে ফাঁসির দ-প্রাপ্ত রাজাকার হাফিজ গ্রেপ্তারকিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের মৃত্যুদ- পাওয়া রাজাকার হাফিজ উদ্দিনকে কিশোরগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাবের একটি দল। ট্রাইব্যুনালে রায় ঘোষণার এক বছর পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। শনিবার দুপুরে ইটনা উপজেলার বাদলা ইউনিয়নের একটি গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
একাত্তরে করিমগঞ্জ উপজেলার আবদুল গফুরকে অপহরণ করে ২৬ সেপ্টেম্বর খুদির জঙ্গল সেতুতে হত্যার অভিযোগে হাফিজের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ করেছিলেন গফুরের স্ত্রী হাফিজা খাতুন। পরে ২০১৫ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি হাফিজের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে ট্রাইব্যুনাল।
২০১৬ সালের ৩ মে হাফিজ ও চার রাজাকারের রায় ঘোষণা করে বিচারপতি মোহাম্মদ আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল। রায়ে দুই ভাই এটিএম শামসুদ্দিন, এটিএম নাসির উদ্দিন, রাজাকার কমান্ডার গাজী মান্নান ও হাফিজ উদ্দিনকে মৃত্যুদ- দেয়া হয়। আমৃত্যু কারাদ- দেয়া হয় আজহারুল ইসলামকে। এর মধ্যে এটিএম শামসুদ্দিন ও এটিএম নাসির উদ্দিন বর্তমানে কারাগারে এবং রাজাকার কমান্ডার গাজী মান্নান সম্প্রতি মারা গেছেন।
ইটনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবদুল মালেক জানান, 'পুলিশের একটি দল প্রথমে অভিযান চালায়। কিন্তু তাকে পেয়ে পরে র‌্যাবের একটি দল ঘটনাস্থলে পেঁৗছে তাকে গ্রেপ্তার করেছে বলে শুনেছি।'
কিশোরগঞ্জ যুদ্ধাপরাধ প্রতিরোধ আন্দোলন কমিটির সভাপতি রেজাউল হাবীব রেজা জানান, ইটনা উপজেলার বাদলা ইউনিয়নের একটি গ্রামে হাফিজ উদ্দিন অবস্থান করে আসছিলেন_ এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি দল অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে।
বাদলা ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল গণি বলেন, 'আমার উপস্থিতিতে র‌্যাবের একটি দল অভিযান চালিয়ে পলাতক রাজাকার হাফিজ উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে।'
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close