ডিএমপির মাসিক অপরাধ সভাপুলিশকে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার নির্দেশযাযাদি রিপোর্ট ঢাকা মহানগর পুলিশকের্ স্বোচ্চ সতর্ক থেকে দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। জঙ্গি সংগঠনসহ নানা অপশক্তি চলতি মাসে হামলা চালিয়ে আন্তর্জাতিক দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করতে পারে_ এমন গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতেই তিনি এই নির্দেশনা দেন বলে জানা গেছে।
শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় ডিএমপি কমিশনার বলেন, পুলিশের ধারাবাহিক সফল অভিযানে জঙ্গি সংগঠনগুলো ভেঙে পড়েছে। পুলিশের কঠোর অবস্থানের কারণে মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারছে না জঙ্গিরা। তাদের অর্থের জোগান বন্ধ হয়ে গেছে। তবে উৎসবকে কেন্দ্র করে হামলা চালিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে নিজেদের শক্তি জানান দিতে পারে জঙ্গিগোষ্ঠী। তাই থানা ও গোয়েন্দা পুলিশকে সতর্ক অবস্থানে থেকে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন তিনি।
সভায় উপস্থিত একাধিক কর্মকর্তা বলেন, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টে আগস্টে হামলার আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে। এসব প্রতিবেদনের আলোকে পুলিশ ও গোয়েন্দাদের সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে থেকে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছেন কমিশনার। কর্মকর্তারা আরও বলেন, ১৯৭৫ সালের পর বিভিন্ন সময় আগস্টে হামলা হয়েছে। তাই মাসজুড়ে নগরীর থানা ও গোয়েন্দা পুলিশকে নজরদারি বৃদ্ধি ও সতর্ক অবস্থানে থেকে দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দেন কমিশনার।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারের উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, বিভিন্ন সময় আগস্টে দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাই এই মাসে সতর্ক অবস্থানে থেকে ডিএমপির পুলিশ সদস্যদের দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দিয়েছেন কমিশনার। আসন্ন অস্ট্রেলিয়া-বাংলাদেশ ক্রিকেট সিরিজ ও কোরবানির ঈদ সামনে থাকায় নিরাপত্তাব্যবস্থা জোরদার করতে বলা হয়েছে।
সভায় উপস্থিত কর্মকর্তারা বলেন, ভুল-ভ্রান্তি ও অপেশাদার আচরণ কমিয়ে আরও পেশাদারিত্ব নিয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশকে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন কমিশনার। কমিশনার বলেছেন, পুলিশের পেশাদারিত্ব নিয়ে জনগণ এখন অনেক ইতিবাচক। তবে দুই-একটি ভুল বা অপেশাদার আচরণের কারণে যাতে পুলিশের ভাবমূর্তি নষ্ট না হয়, সেদিকে নজর রাখতে হবে।
কমিশনার বলেন, ঈদে যাতে পশুর ট্রাকে চাঁদাবাজি, ছিনতাই, ডাকাতি না ঘটে এবং নগরবাসী যাতে নিরাপদে উৎসব উদযাপন করতে পারে, সে জন্য প্রতি ঈদের মতোই ডিএমপির পুলিশ সদস্যদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। পুলিশের সেবার মান আরও বাড়াতে হবে।
ডিএমপির কর্মকর্তারা বলেন, আসন্ন দুটি ইভেন্টে (জাতীয় শোক দিবস ও জন্মাষ্ঠমী) নিরাপত্তা নিয়ে কমিশনার বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দিয়েছেন। এই দুটি অনুষ্ঠানকে ঘিরে যাতে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয়, কোথাও যাতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি না ঘটে, সে জন্য সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন কমিশনার।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
monobhubon
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin