ভারতের অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনপশু জবাইয়ে নিষেধাজ্ঞায় ক্ষতিগ্রস্ত হবেন কৃষকযাযাদি ডেস্ক ভারতে হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকারে আসার পর গরু রক্ষার যে তৎপরতা শুরু হয়েছে, এর বিপদ নিয়ে এবার সতর্কবার্তা দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের আর্থিক সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গবাদিপশু জবাইয়ে পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা টানা হলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন কৃষকরাই। এত দিন কৃষক সংগঠনগুলো এই আশঙ্কার কথা জানিয়ে আসছিল, এতে সায় দিচ্ছিলেন অর্থনীতিবিদরাও। সংবাদসূত্র : এবিপি নিউজ
নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই গো-মাংস নিয়ে 'বাড়াবাড়ি' শুরু হয়। গরু জবাইকে কেন্দ্র করে একের পর এক পিটিয়ে খুনের খবর আসে গণমাধ্যমে। আপত্তি উপেক্ষা করে হাটবাজারে গবাদিপশু জবাইয়ের উদ্দেশে কেনাবেচা করা যাবে না বলে নিয়মও জারি করে কেন্দ্রীয় সরকার।
যদিও আর্থিক সমীক্ষা প্রতিবেদনের কোথাও সরাসরি গবাদিপশু জবাইয়ে নিষেধাজ্ঞা বা গো-রক্ষক বাহিনীর উল্লেখ করা হয়নি। কিন্তু বলা হয়েছে, গবাদিপশুর দামের ওপরও পশুপালকদের রুটিরুজি নির্ভর করে। এমনিতেই কৃষি থেকে আয় পড়তির দিকে। কোনো 'সামাজিক নীতি'র জেরে পশুর মাংস বিক্রির আয় বন্ধ হলে এবং বুড়িয়ে যাওয়া গবাদিপশুকে বসিয়ে খাওয়াতে হলে চাষি-পশুপালকদের আয় আরও কমবে। এসব 'সামাজিক নীতি'র ফলে সমাজে ক্ষতিই হবে।
আর্থিক সমীক্ষাটি তৈরি করেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রধান অর্থনৈতিক উপদেষ্টা। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি সেটা পার্লামেন্টে উপস্থাপন করেছেন। প্রধান অর্থনৈতিক উপদেষ্টা অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যনকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, এই 'সামাজিক নীতি' কি গবাদিপশু জবাইয়ে নিষেধাজ্ঞা? তার জবাব ছিল, 'এসব প্রশ্ন করে আমাকে বিপদে ফেলবেন না।'
বাম দল সিপিএমের কৃষক সভার নেতা হান্নান মোল্লা বিজেপির নীতির সমালোচনা করে বলেন, 'কৃষকদের আয়ের ৭০ ভাগ আসে জমি থেকে। বাকিটা পশুপালন থেকে। চাষের ক্ষতি সামলাতে না পেরে কৃষকরা আত্মহত্যা করছেন। দুধ দেয়া বা মাঠে হাল টানা বন্ধ করার গরু-মহিষ পুষতে হলে এর খরচ কোথা থেকে আসবে?'
দিলি্লর জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপক বিকাশ রাওয়াল বলেন, 'বছরে তিন কোটি ৭০ লাখ পুরুষ গরু-মহিষের জন্ম হয়। জবাই বন্ধ হলে তাদের খাবারের পেছনে বছরে ৫.৪ লাখ কোটি রুপি খরচ হবে। এই আর্থিক দায়ভার কি সরকার বইতে রাজি?
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
monobhubon
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin