পরবর্তী সংবাদ
সংবাদ সংক্ষেপদাস প্রথার সমর্থকদের
বিক্ষোভ যুক্তরাষ্ট্রে!
যাযাদি ডেস্ক
দাস প্রথার পক্ষে লড়া কনফেডারেটপন্থী জেনারেলের মূর্তি অপসারণের প্রতিবাদে শত শত শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদী শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে মিছিল করেছেন। মশাল হাতে শত শত শ্বেতাঙ্গ এই মিছিলে সস্নোগান দেন, 'ইহুদিরা আমাদের জায়গা নিতে পারবে না' এবং 'শ্বেতাঙ্গদের জীবনের মূল্য আছে।'
ভার্জিনিয়ার শার্লোটসভিল শহরের ক্যাম্পাসে এই মিছিলের সময় বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়। শার্লোটসভিল শহরের মেয়র শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীদের এই মিছিলকে 'বর্ণবাদী' বলে বর্ণনা করে এর নিন্দা করেছেন। বর্ণবাদবিরোধীরাও এর বিরুদ্ধে সেখানে বড় আকারে বিক্ষোভের আয়োজনের পরিকল্পনা করছেন।
শার্লোটসভিল শহরে জেনারেল রবাট ই লি-র যে মূর্তি রয়েছে, সেটি অপসারণের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। আমেরিকার গৃহযুদ্ধে জেনারেল লি দাস প্রথা টিকিয়ে রাখার পক্ষে লড়াইয়ে নেতৃত্ব দেন।
যুক্তরাষ্ট্রের গৃহযুদ্ধের সময় দক্ষিণের অঙ্গরাজ্যগুলো দাস প্রথা টিকিয়ে রাখার পক্ষে লড়েছিল। অনেক অঙ্গরাজ্যেই এখনো দাস প্রথার পক্ষের কনফেডারেটপন্থীদের মূর্তি রয়েছে। এমনকি অনেক জায়গায় সরকারি ভবনে এখনো কনফেডারেট পতাকা ওড়ানো হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বর্ণবাদবিরোধীদের আন্দোলনের মুখে অনেক জায়গায় কর্তৃপক্ষ এ ধরনের মূর্তি অপসারণ করতে বাধ্য হচ্ছে। এতে শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীরা প্রচ- ক্ষুব্ধ। সংবাদসূত্র : বিবিসি

নওয়াজের গাড়িবহরের
নিচে শিশুর মৃত্যু
যাযাদি ডেস্ক
পাকিস্তানের সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ গাড়িবহর নিয়ে নিজ শহর লাহোরে ফেরার সময় বহরের গাড়ির নিচে চাপা পড়ে ৯ বছর বয়সী একটি শিশু নিহত হয়েছে। শুক্রবার পাঞ্জাব প্রদেশের লালামুসায় এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, নওয়াজের গাড়িবহর লালামুসা পার হওয়ার সময় তাকে অভিবাদন জানাতে জড়ো হওয়া সমর্থকদের সঙ্গে ওই শিশুটিও ছিল।
শিশুটি দলছুট হয়ে রাস্তায় চলে আসার পর নওয়াজের নিরাপত্তায় নিয়োজিত অভিজাত বাহিনীর একটি গাড়ি তাকে ধাক্কা দেয়, এরপর বহরের অন্য গাড়িগুলোও না থেমে শিশুটির ওপর দিয়ে চলে যায়।
নওয়াজের গাড়িবহরের সঙ্গে একটি ভ্রাম্যমাণ স্বাস্থ্য দল থাকার পরও শিশুটির অবস্থা দেখার জন্য কোনো গাড়িই থামেনি বলে জানিয়েছেন রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা প্রত্যক্ষদর্শীরা।
এরপর নিজের সন্তানের লাশ রাস্তায় দেখার পর শিশুটির বাবা জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, গুরুতর অবস্থায় তাকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, তার অবস্থা সংকটজনক।
শিশুটির মৃত্যুর ঘটনাটি পাকিস্তানের গণমাধ্যমগুলোতে প্রকাশ হওয়ার পর নওয়াজের কন্যা মরিয়াম নওয়াজ এক টুইটার পোস্টে এ ঘটনার জন্য গভীর শোক প্রকাশ করেন। নিহতের পরিবারকে সহায়তা করার জন্য লালামুসার পিএমএল-এন দলীয় নেতাদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
পরে সন্ধ্যায় পাঞ্জাবের গুজরানওয়ালায় এক রাজনৈতিক সমাবেশে ওই ঘটনায় শোক প্রকাশ করে শিশুটির পরিবারের সঙ্গে দেখা করার প্রতিশ্রুতি দেন নওয়াজ। শিশুটিকে দেশের গণতন্ত্র শক্তিশালী করতে শুরু করা তার আন্দোলনের প্রথম 'শহীদ' হিসেবে ঘোষণা করেন তিনি। সংবাদসূত্র : ডন

বিপদে নিজেদের ড্রোনও
ধ্বংস করবে যুক্তরাষ্ট্র
যাযাদি ডেস্ক
মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ পেন্টাগনের পক্ষ থেকে সেনাদের জন্য নতুন নির্দেশ জারি করে জানানো হয়েছে, তাদের সেনাঘাঁটিগুলো যদি কোনো ড্রোন থেকে বিপদের আশঙ্কা করে, তাহলে সেগুলোকে ধ্বংস করে দিতে পারবে।
পেন্টাগনের পক্ষ থেকে নৌবাহিনীর ক্যাপ্টেন জেফ ডেভিস জানিয়েছেন, সেনাবাহিনীর বিভিন্ন বিভাগকে এই বিষয়ে অবগত করা হয়েছে।
এই নতুন নীতি সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য গোপন রাখা হয়েছে, কিন্তু ক্যাপ্টেন ডেভিস জানিয়েছেন, যেসব ঘাঁটিকে নো-ফ্লাই জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে, সেখানে যদি কোনো ড্রোন প্রবেশ করে এবং তা থেকে বিপদের সম্ভাবনা রয়েছে মনে হলে সেগুলোকে ধ্বংস করে দেয়া যেতে পারে।
ডেভিস জানান, তাদের আত্মরক্ষার অধিকার রয়েছে। তাই এ ক্ষেত্রে এসব সন্দেহভাজন ক্ষতিকারক ড্রোনগুলো শনাক্ত করে সেগুলোকে নিষ্ক্রিয় বা নষ্ট করার মতো ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। সংবাদসূত্র : ইনডিয়া টাইমস

ভোটের পর ব্যাপক
বিক্ষোভ-সহিংসতা
যাযাদি ডেস্ক
কেনিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণার পরপরই দেশটিতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। ফল ঘোষণার পর রাস্তায় নেমে একদিকে যেমন ভুভুজেলা বাঁশি বাজিয়ে এবং পতাকা উড়িয়ে উল্লাস প্রকাশ করা হয়েছে। অন্যদিকে, বিরোধী সমর্থকরা ব্যাপক বিক্ষোভ-সহিংসতা শুরু করে।
পূর্ব আফ্রিকার দেশটিতে এই নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট উহুরু কেনিয়াত্তা পুনরায় নির্বাচিত হওয়ার পর এ সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।
বিরোধী প্রবীণ নেতা রাইলা ওদিঙ্গার বিক্ষুব্ধ সমর্থকরা রাস্তায় টায়ার পুড়িয়ে ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে বিক্ষোভ প্রকাশ করেছে।
কেনিয়ায় ২০০৭ সালের নির্বাচনপরবর্তী সহিংসতার এক দশকের পর আবার একটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ব্যাপক সহিংসতা শুরু হয়েছে। ওই নির্বাচনের পর জাতিগতভাবে বিভক্ত রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে দুই মাস ধরে রক্তক্ষয়ী সহিংসতা হয়। এসব সহিংসতায় এক হাজার ১০০ লোকের প্রাণহানি ও ছয় লাখ লোক গৃহহীন হয়ে পড়ে।
সংবাদসূত্র : এএফপি অনলাইন
 
পরবর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
monobhubon
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin