সোয়েপসনের ভাবনায় এখন বাংলাদেশক্রীড়া ডেস্ক দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে আর মাত্র এক সপ্তাহ বাদেই বাংলাদেশে পাড়ি জমাবে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। অভ্যন্তরীণ ঝামেলা মিটিয়ে এই সফরের জন্য প্রস্তুতিপর্বটা অন্যান্য সফরগুলোর ন্যায় দীর্ঘ হয়নি স্মিথ-ওয়ার্নারদের। অনুশীলনের জন্য কন্ডিশনিং ক্যাম্পে মাত্র এক সপ্তাহই সময় পাবেন তারা। তবে ডারউইনের এই এক সপ্তাহকে সম্পূর্ণ কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভালো কিছু করার পরিকল্পনা করছেন অস্ট্রেলিয়ার হয়ে অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা মিচেল সোয়েপসন। বাংলাদেশের আবহাওয়া এবং উইকেটকে মাথায় রেখেই নিজের পরিকল্পনা সাজাচ্ছেন এই লেগস্পিনার।
এর আগেও অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলে ডাক পেয়েছিলেন সোয়েপসন, চলতি বছরের শুরুর দিকে ভারতের বিপক্ষে বর্ডার-গাভাস্কার ট্রফিতে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মূল একাদশে ঠাঁই হয়নি তার। বেড়ে যায় অভিষেকের অপেক্ষাটাও। তবে ১৪টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ৪১ উইকেট শিকার করে পুনরায় নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েই লম্বা সময়ের পর ফের জাতীয় দলে জায়গা করে নিলেন তিনি। কিন্তু দলের তারকা খেলোয়াড়দের ভিড়ে এবার কি মূল একাদশে জায়গা করে নিতে পারবেন সোয়েপসন? এই চিন্তায় কিছুটা চিন্তিত হলেও 'আমি আশাবাদী' বলেই বিষয়টিকে উড়িয়ে দেন তিনি।
উল্টো বাংলাদেশকে নিজের বোলিং নৈপুণ্যে আটকানোর ফন্দিই আটছেন সোয়েপসন। কেননা, সুযোগ আসলে তা কোনোভাবেই হেলায় হারাতে রাজি নন এই লেগস্পিনার, 'আমি দেরিতেই দলে ডাক পেয়েছি। তাই আমরা আপনারা সম্ভবত আমার বিষয় নিয়ে একটু চিন্তাতেই আছেন। কিন্তু যেকোনো কিছু ঘটতে পারে। আমি শুধুমাত্র খেলার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছি। আমি শুনেছি সেখানকার স্পিন সহায়ক। তাই আমি দেখতে চাই সেটা কেমন এবং আশাবাদী, আমি যেসব পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছি তা বাংলাদেশে ঠিক মতোই ব্যবহার করতে পারব।'
অস্ট্রেলিয়ার সফর চলাকালীন বাংলাদেশের আবহওয়াটা একটু গরমই থাকার কথা। সেই বিষয় মাথায় রেখেই ডারউইনে অনুশীলন করছে অজিরা। কারণ সেখানকার আবহাওয়া অনেকটাই বাংলাদেশের মতোই। তাই আগভাগেই বাংলাদেশের অনুকূল আবহাওয়ায় পরিশ্রম করতে পেরে খুশি সোয়েপসন, 'এখানে আসার পর থেকে আমরা নিজেদের ফিটনেস এবং ক্ষমতা নিয়ে অনেক পরীক্ষা চালাচ্ছি। এটা বাংলাদেশের আবহওয়া মানিয়ে নিতে ছেলেদের অনেক সাহায্য করবে। ওইখানে আদ্রর্তা এবং গরমটা একুট বেশি। তাই অস্ট্রেলিয়াতে এই রকম আবহাওয়াতে অনুশীলন করতে পারাটা খুবই দারুণ বিষয়।'
সবশেষ ১১ বছর আগে বাংলাদেশে খেলেছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু সেই সময়ের আর এখনকার সময়ের বাংলাদেশ দলে বিস্তার ফারাক। এমন চিন্তাও মাথায় রাখছেন সোয়েপসন। তার মতে, আগামী ২৭ আগস্ট থেকে মিরপুর টেস্ট দিয়ে শুরু হয়ে যাওয়া এই সিরিজে প্রতিপক্ষ দলকে কোনোভাবেই হালকাভাবে নেয়া ঠিক হবে না অস্ট্রেলিয়ার, 'তারা অনেকটা পদ পাড়ি দিয়েছে। বিশেষ করে, তাদের বর্তমান অবস্থানটা খুই শক্ত।
আগামী ১৮ আগস্ট বাংলাদেশে পৌঁছবে অস্ট্রেলিয়া। পরে ফতুল্লায় ২২ আগস্ট থেকে দুই দিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে সফরকারীরা। আর ২৭ আগস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে মিরপুরের শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে টাইগারদের মুখোমুখি হবে তারা। দ্বিতীয় ম্যাচটি ৪-৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
monobhubon
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin