হাসপাতালে ঢুকে ছাত্রলীগ নেতার মারধর, ছিনতাইঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে ঢুকে রোগীকে মারধরসহ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনতাই করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিরম্নদ্ধে।
বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি মোস্ত্মাফিজার রহমান জানান, বুধবার রাত ১০টার দিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে ঢুকে এক রোগীকে মারধরসহ একটি মোবাইল ফোন ও প্রায় ১০ হাজার টাকা ছিনতাই করেছে বলে মামলা হয়েছে।
আসামিরা হলেন- উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনোয়ার হোসেন মনা, তার সঙ্গী পজির, উজ্জ্বল ও কামাল।
স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সের চিকিৎসক আবুল কাসেম বলেন, 'সন্ত্রাসীরা ফিল্মি স্টাইলে এসে চিকিৎসকদের রম্নম বন্ধ করে এক রোগীকে মারধর করে। এ সময় পুলিশে খবর দিলে তারা পালিয়ে যায়।'
হামলায় মজিবর রহমান (২৫) ও হামিদুর রহমান (৩৫) নামে দুই রোগী আহত হন বলে জানান এই চিকিৎসক। আহত মজিবর উপজেলার দুওসুও পেট্রোলপাম্প এলাকার সাহির উদ্দীনের ছেলে। আর হামিদুর চাড়োল ইউনিয়নের ইমাম হোসেনের ছেলে। চিকিৎসাধীন মজিবর বলেন, 'ছাত্রলীগ নেতা মনা তার দলবল নিয়ে আমার ওপর আকস্মিকভাবে হামলা চালায়। তারা আমার মোবাইল ফোন ও টাকাও ছিনতাই করে নিয়ে গেছে।'
কেন হঠাৎ তাদের ওপর হামলা হয়েছে এ সম্পর্কে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বা পুলিশ কিছু বলতে পারেনি। হামলায় আহত হামিদুর রহমান বলেন, 'রোগীর ওষুধ কেনার জন্য আমি হাসপাতালের দ্বিতীয় তলা থেকে নিচে নামছিলাম। এ সময় জরম্নরি বিভাগে এক রোগীকে মারধর করতে দেখে তাকে বাঁচাতে এগিয়ে যাই। তখন তারা আমার ওপরও হামলা চালায়। তারা আমার ডান হাত ভেঙে দিয়েছে।'
এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী মিয়া।
তিনি বলেন, 'ছাত্রলীগের কোনো নেতাকর্মী জড়িত থাকলে তাদের বিরম্নদ্ধে সাংগঠনিক ও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।'
পুলিশ আসামি ধরার চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন ওসি মোস্ত্মাফিজার রহমান।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close