যশোরে হত্যা মামলায় ছয়জনের যাবজ্জীবনযশোর প্রতিনিধি যশোরে শহরতলীর কিসমত নওয়াপাড়া এলাকার আলিম হত্যা মামলায় ছয়জনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ- ও অর্থদ- দিয়েছে আদালত। দোষী প্রমাণিত না হওয়ায় আরিফ ও মাসুদুল ইসলাম নামে দুই আসামিকে হত্যার দায় থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। বুধবার যশোরের স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক নিতাই চন্দ্র সাহা এ রায় ঘোষণা করেন।
দ-প্রাপ্তরা হলেন, কিসমত নওয়াপাড়া এলাকার ইয়াকুব মোলস্নার ছেলে সিরাজ, বেলায়েতের ছেলে মাহমুদুর রহমান, মৃত মোজাম ড্রাইভারের ছেলে মজিদ, আজিজ ড্রাইভারের ছেলে আমিনুর, দুলালের ছেলে নাজির ও শেখহাটি এলাকার বাহার আলীর ছেলে মিল্টন। এদের মধ্যে আমিনুর, নাজির ও মিল্টন এই তিনজন পলাতক রয়েছেন। আদালতে উপস্থিত থাকায় রায় ঘোষণা শেষে বিচারক দ-িত সিরাজ, মাহমুদুর রহমান ও মজিদকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, আসামি মিল্টন ১৯৯৭ সালের ২৫ নভেম্বর আলিমকে তার বাড়ি থেকে ডেকে উপশহর ট্রাক টার্মিনালে নিয়ে আসেন। এরপর পূর্ব শত্রম্নতার জের ধরে মিল্টনসহ অন্য আসামিরা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহত আলিমের মা জহুরা বেগম পরের দিন যশোর কোতোয়ালি থানায় নয়জনের নাম উলেস্নখ করে মামলা করেন। মামলার তদন্ত্ম শেষে ১৯৯৮ সালের ২৩ জুন এজাহারনামীয় নয় আসামির বিরম্নদ্ধেই আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়।
দীর্ঘ বিচারিক কার্যক্রম শেষে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বুধবার বিচারক ছয় আসামিকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদ- ও ২০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেন। এছাড়া মামলার আসামি আরিফ ও মাসুদুল ইসলামের বিরম্নদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের হত্যার দায় থেকে অব্যাহতি দেন। অপর আসামি সাজিদ মামলা চলাকালে মৃতু্যবরণ করায় আগেই তাকে অব্যাহতি দেন বিচারক।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close