ওয়ানডেতে মুখোমুখি পাকিস্ত্মান-শ্রীলংকাক্রীড়া ডেস্ক টেস্ট সিরিজে শ্রীলংকার বিপক্ষে ধবলধোলাইয়ের লজ্জা পেতে হয়েছে স্বাগতিক পাকিস্ত্মানকে। দুই টেস্টে বাজে হারের পর এবার সফরকারীদের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে আজ সফরকারীদের মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিকরা। তাই হারের স্মৃতি ভুলে সীমিত ওভারের ম্যাচে জয়ের প্রত্যাশা নিয়েই মাঠে নামবেন সরফরাজ আহমদেরা। অপরদিকে দাপুটে সিরিজ জয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থাকা শ্রীলংকা চাইবে জয়ের ধারায় থাকতে। তবে শেষতক সফল হয় কোন দল, সেটা জানা যাবে দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত ম্যাচ শেষেই।
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পর থেকে সীমিত ওভারের ম্যাচে সময়টা একেবারে বাজে যাচ্ছে লংকানদের। আইসিসির দ্বিতীয় বড় ওই আসরের প্রথম রাউন্ড থেকে ছিটকে যায় শ্রীলংকা। পরে ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে সিরিজ হারের স্বাদ পায় দলটি। ভাগ্য ফেরে নেই ভারতের বিপক্ষেও। বিরাট কোহলিদের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ভরাডুবি হয়েছে তাদের। আর ওই সফরে শতভাগ জয়ের সাফল্য নিয়ে দেশে ফিরেছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। তাই টেস্ট ভালো করলেও ওয়ানডেতে নিজেদের কতটা মেলে ধরতে পারেন উপুল থারাঙ্গারা- সেটাই এখন দেখার বিষয়।
সবশেষ সাত ওয়ানডের সবটিতেই হার শ্রীলংকা। তবে সেদিক থেকে বেশ এগিয়ে পাকিস্ত্মান। কেননা, যে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে রীতিমতো বিধ্বস্ত্ম হয়েছে লংকানরা সেটার শিরোপা নিয়েই তো ফিরেছে পাকিস্ত্মান। যদিও ওই সফলতার পর আজ প্রথম আন্ত্মর্জাতিক ওয়ানডে খেলতে মাঠে নামছে সরফরাজরা। আর তার আগে টেস্ট সিরিজে এমন হার। তাই সব মিলে স্বস্ত্মি নেই মিকি আর্থারের শিবিরেও। তবে টেস্ট সিরিজে পরাজয়ের পরই হুঙ্কার দিয়ে রেখেছেন আর্থার, 'ওয়ানডেতে অন্যতম শক্তিশালী দল পাকিস্ত্মান। ছেলেরা সেরাটা দিতে পারলে প্রতিপক্ষকে সহজেই হারানো সম্ভব।'
এদিকে দুবাইয়ে ম্যাচের ভাগ্য নির্ভর করতে পারে টসের ওপর। কারণ এই স্টেডিয়ামে সবশেষ নয় ওয়ানডের সবগুলিতে জয় পেয়েছে প্রথমে বোলিং করা দল। তাই পুরনো ইতিহাস ঘাটলে হয়তো টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত্মই নেবেন অধিনায়ক। এছাড়া দুই দলের হেড টু হেড রেকর্ডে এগিয়ে পাকিস্ত্মান। শ্রীলংকা-পাকিস্ত্মান এখন পর্যন্ত্ম মুখোমুখি হয়েছে ১১৪ বার। তাতে পাকিস্ত্মানের জয় ৮৫টি এবং লংকানদের ৫৮টি। আর এর আগে দুবাইয়ে চার ম্যাচে মুখোমুখি হয়ে সমান দুটি করে জয়ের মুখ দেখেছে দুই দল। অবশ্য এমন ইতিহাস কেবল স্মৃতির পাতাতেই ভালো মানায়, যার মূল্যটা মাঠের খেলায় একেবারে শূন্যের কোটায়। অর্থাৎ মূল খেলায় যে দল সেরাটা দিতে পারবে তারাই হাসবে জয়ের হাসি। আর আজকের মোকাবেলায় কার মুখে ফুটে উঠে সেই হাসি! সেটা জানার জন্য অপেক্ষা করতে হবে ম্যাচ শেষ হওয়া আগ মুহূর্ত পর্যন্ত্ম।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close