আজ ঢাকায় আসছেন অপর্ণা সেনবিনোদন রিপোর্ট অপর্ণা সেনঢাকায় আসছেন কলকাতার নন্দিত নির্মাতা-অভিনেত্রী অপর্ণা সেন। ষোড়শ ঢাকা আন্ত্মর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের 'চতুর্থ আন্ত্মর্জাতিক উইমেন ফিল্ম মেকার্স কনফারেন্স'-এর সমাপনী দিনে অংশ নিবেন তিনি। শনিবার যোগ দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু তিনি ওই দিন ঢাকা পৌঁছাতে পারেননি বলে জানিয়েছেন উৎসবের গণমাধ্যম সমন্বয়ক সোহান সিরাজ।
জানা গেছে, ষোড়শ ঢাকা আন্ত্মর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের অংশ হিসেবে ১৩ জানুয়ারি থেকে শুরম্ন হয়েছে 'চতুর্থ আন্ত্মর্জাতিক উইমেন ফিল্ম মেকার্স কনফারেন্স'। নারী চলচ্চিত্র নির্মাতাদের নিয়ে দুই দিনব্যাপী এই বিশেষ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে রাজধানীর আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ মিলনায়তনে।
গতকাল সকাল ৯টায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উৎসবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক পররাষ্ট্র প্রতিমিন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।
সম্মেলনে বাংলাদেশের নারী চলচ্চিত্রকারদের অগ্রদূত সুমিতা দেবী ও রওশন জামিলের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।
উপমহাদেশর প্রখ্যাত নারী চলচ্চিত্রকার অপর্ণা সেন এবারের সম্মেলনের মূল আকর্ষণ।
এ প্রসঙ্গে সোহান সিরাজ বলেন, 'অপর্ণা সেন এখনও (শনিবার) ঢাকায় পৌঁছাননি। যদিও তার আসার কথা ছিল। বিশেষ কারণে তিনি শনিবার থাকতে পারেননি। তবে, রোববার (আজ) তিনি ঢাকায় আসবেন। কনফারেন্সের সমাপনী সেশনে যোগ দিবেন। পাশাপাশি একটি সংবাদ সম্মেলনেও তাকে পাবেন গণমাধ্যমকর্মীরা।'
অপর্ণা সেন ছাড়াও দেশ-বিদেশের ৩৫ জনেরও বেশি নারী চলচ্চিত্র নির্মাতা এতে যোগ দিচ্ছেন। সম্মেলনে নারী চলচ্চিত্র নির্মাতা ও ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে মত বিনিময়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের নারী নির্মাতারা অভিজ্ঞতা অর্জনের একটি সুবর্ণ সুযোগ পাবেন বলে আশা করা হচ্ছে। এখানে নারী নির্মাতারা তাদের কাজ করার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতাসমূহ এবং উত্তরণের উপায় নিয়ে বিশ্বের খ্যাতিমান নারী নির্মাতাদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সুযোগ পাবেন।
মোট জনসংখ্যার অর্ধেক হওয়ায় বিশ্ব-উন্নয়নে নারীর ভূমিকা ও গুরম্নত্ব এতে তুলে ধরা হবে। ষষ্ঠদশ ঢাকা আন্ত্মর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের মূল আকর্ষণগুলোর একটি এই উইমেন্স কনফারেন্স।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin