নেশামুক্ত করতে সন্ত্মানকে নিয়ে আদালতে বাবাযাযাদি রিপোর্ট মিলটন মিয়ার সঙ্গে ছেলে রায়হাননেশামুক্ত করতে ১২ বছর বয়সী একমাত্র পুত্র সন্ত্মানকে নিয়ে আদালতে হাজির হয়েছেন এক বাবা। মঙ্গলবার সকালে ঢাকা সিএমএম আদালতের মহানগর হাকিম মাহমুদা আক্তারের আদালতে এই ঘটনা ঘটে।
কুমিলস্নার লাঙ্গলকোর্টের কাকেরতলা গ্রামের বাসিন্দা মো. মিলটন মিয়া (৪৭) জানান, তার দুই মেয়ে এক ছেলে। একমাত্র ছেলে মো. রায়হান। বয়স ১২ বছর। পরিবার নিয়ে রাজধানীর তুরাগ থানাধীন পাকুরিয়া এলাকার এ বস্নকের ৩ নম্বর রোডের একটি বাসায় ভাড়া থেকে ফুটপাতে ব্যবসা করেন। দুই মেয়ে পড়ালেখা করলেও ছেলে লেখাপড়া ছেড়ে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে।
তিনি বলেন, সে এই বয়সে সিগারেট, গাঁজা ও ফেনসিডিল পর্যন্ত্ম সেবন করে। নেশার টাকা জোগাড় করতে সে বাসার জিনিসপত্র বিক্রি করে দেয় এবং টাকা পয়সাও চুরি করে। কোনোভাবেই তাকে নেশামুক্ত করা সম্ভব হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে কিছুদিন আগে তাকে নিয়ে গিয়েছিলাম টঙ্গীর কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রে রাখতে। কিন্তু তারা বলেছে, আদালতের নির্দেশ ছাড়া সেখানে কাউকে রাখতে পারবেন না।
এই কারণে তাকে আদালতে নিয়ে এসেছিলাম কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রে পাঠানোর জন্য, বলছিলেন মিলটন মিয়া। কিন্তু আদালত আদেশ দিলেন না। আদালত বলেছেন, আরও এক সপ্তাহ দেখতে। এরপর ভালো না হলে নিয়ে আসতে বলেছেন।
এ সম্পর্কে এই মামলার আইনজীবী মো. মনির হোসেন রিপন বলেন, 'আমরা আদালতে নেশার টাকার জন্য চুরি, মারধরের অভিযোগে ওই শিশুর বিরম্নদ্ধে মামলাটি করেছিলাম। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে নেশামুক্ত না হওয়া পর্যন্ত্ম কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রে পাঠানোর আবেদন করেছিলাম।'
আদালত কিশোর সংশোধনী কেন্দ্রে না পাঠানোর বিষয়ে ওই আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর আজাদ রহমান বলেন, 'শুনানির সময় আমরা শিশুটিকে বুঝিয়েছি। বিচারক নিজেও বুঝিয়ে বলেছেন। বিচারক এক সপ্তাহ থেকে ১০ দিন শিশুটিকে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। এরপরও যদি ঠিক না হয় এরপর আদালতে নিয়ে আসতে বলেছেন।'
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close