গোবিন্দগঞ্জে আদিবাসী রমেশ টুডুর লাশ ১৪ মাস পর উত্তোলনগাইবান্ধা প্রতিনিধি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাঁওতাল পলস্নীতে হামলার ঘটনায় নিহত রমেশ টুডু নামে এক আদিবাসীর লাশ দাফনের ১৪ মাস পর কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার গুমানিগঞ্জ ইউনিয়নের সিংটাজুড়ি এলাকা থেকে তার লাশ উত্তোলন করা হয়। পরে ময়নাতদন্ত্মের জন্য লাশ গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
রমেশ টুডুর মৃতু্যর প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে পুলিশ বু্যরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রাফিউল আলমের উপস্থিতিতে লাশ উত্তোলন করা হয়।
পুলিশ বু্যরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন মিয়া জানান, সাঁওতাল পলস্নীতে হামলার ঘটনায় গুলি ও তীরবিদ্ধ হয়ে ৯ পুলিশ সদস্যসহ ৩০ জন আহত হন। পরে গুলিবিদ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গল মার্ডি ও শ্যামল হেমব্রন নামে দুই আধিবাসীর মৃতু্য হয়। নিহত দুইজনের ময়নাতদন্ত্মের পর লাশ সৎকার করে পরিবার। এ ছাড়া হামলার ঘটনায় রমেশ টুডু নিহত হওয়ার কথা মামলায় উলেস্নখ করা হয়। কিন্তু পুলিশি প্রহরায় ময়নাতদন্ত্ম ছাড়াই রমেশ টুডুর লাশ দাফন করা হয়েছে বলে পরিবারের অভিযোগ।
তিনি আরও জানান, হামলা ও হত্যার ঘটনায় প্রথমে স্বপন মুরমু নামে একজন বাদী হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় মামলা করেন। কিন্তু মামলা নিয়ে সাঁওতালদের আপত্তি থাকায় তাদের পক্ষে থমাস হেমব্রন বাদী হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় আবারও লিখিত এজাহার দায়ের করেন। কিন্তু থমাস হেমব্রনের অভিযোগটি মামলা হিসেবে রম্নজু না করে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) হিসেবে গ্রহণ করে পুলিশ। অভিযোগটি মামলা হিসেবে আমলে না নিয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা এবং রমেশ টুডুর মৃতু্যর কারণ অনুসন্ধানে উচ্চ আদালতে আবেদন করেন থমাস হেমব্রন। পরে উচ্চ আদালত সেটা তদন্ত্মের জন্য পিবিআই গাইবান্ধাকে নির্দেশ দেয়। এরপর উচ্চ আদালতের নির্দেশ পেয়ে রমেশ টুডুর মৃতু্যর কারণ অনুসন্ধান করতে লাশ উত্তোলনের জন্য গাইবান্ধা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করা হয়। আদালতের নির্দেশে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও একজন চিকিৎসকের উপস্থিতিতে রমেশ টুডুর লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়।
পরে লাশ ময়নাতদন্ত্মের জন্য গাইবান্ধা আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ময়নাতদন্ত্মের রিপোর্ট পেলেই রমেশ টুডুর মৃতু্যর প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলেও জানান তিনি।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
স্বদেশ -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close