সিকদার আমিনুল হকের 'অপ্রকাশিত-অগ্রন্থিত কবিতা' পাঠ ও পর্যালোচনাসিকদারের কবিতায় আছে আত্মবিশ্বাসের অশেষ উপাদান। বসন্ত্মের বিপুল ইচ্ছা, মলিন বিকেলের চকচকে বালু, সমুদ্রের ধ্বনি, স্বাতী নক্ষত্র, প্রিয় উত্তেজনা আর সব সম্ভাবনার অতিশক্তি তার কাব্যযাত্রার অফুরান আবেদন।ড. ফজলুল হক সৈকত অল্প-বিস্ত্মর গদ্য লিখলেও সিকদার আমিনুল হক (জন্ম : ৬ ডিসেম্বর ১৯৪২; মৃতু্য : ১৭ মে ২০০৩) মূলত কবি। যাপিতজীবন এবং অস্ত্মিত্বের স্বল্প-পরিসর প্রান্ত্মরে তিনি কবিতার জন্য স্বতন্ত্র একটি জায়গা নির্মাণ করতে পেরেছেন। সমূহ নেতিবাচকতাকে ইতিবাচকতার আলোয় শোভিত করার প্রতি তার বিশেষ ঝোঁক ছিল। স্পষ্ট করে বলতে গেলে, সিকদার আমিনুল হক শিল্পের একটি সম্ভাবনাময় উজ্জ্বল দীপ্তির দীঘিতে সাঁতার কেটেছেন কাব্য সাধনার প্রসন্ন প্রহরে। তাই আপাত অসম্ভবের... বিস্তারিত
আমাদের সাধইবনে সালেহ মুনতাসির আমরা করবো জয় বিশ্বজয় নিশ্চয়
গড়বো মোরা নতুন এক দেশ সঞ্জয়।
জ্ঞান বিজ্ঞান আর প্রযুক্তির ছোঁয়ায় নিশ্চয়,
থাকবে না যেথা অসুন্দর আর অন্যায়।

ভরে উঠবে দেশ সুন্দর আর ন্যায়ে নিশ্চয়ই
দরিদ্রতার কষাঘাতে জর্জরিত হবে না দেশ।
দুঃখ কষ্ট আর অস্বস্ত্মি অশান্ত্মির হবে শেষ অবশ্যই,
সম্পদে আর গাঁথায় ভরে উঠবে সে বেশ।

রাজনৈতিক অর্থনৈতিক... বিস্তারিত
নতুন প্রভাতমিলন সব্যসাচী বছরের শেষদিন- রাতশেষে নতুন প্রভাত
আকাশের বুকচিরে নবানন্দে যদি হাসে সূর্য
পৃথিবীটা মগ্ন হবে শুভালোকে রাঙাতে হৃদয়
জরাজীর্ণ এজীবনে রয়ে যাবে পুরানো আঁধার।

ইতোমধ্যে বদলের খেলা খেলে বোধিবৃক্ষরাজি-
খুব সহজে ফেলেছে খুলে সেই বিষাদ-বাকল
বুকেধরা দুঃখস্মৃতি দীর্ঘশ্বাসে দিয়েছে উড়িয়ে
এই আমি ক্রমাগত যাচ্ছি ডুবে বিষাদ সাগরে।

কত ঘাত-প্রতিঘাতে অগোছালো ভেতরে-বাইরে
এখনো... বিস্তারিত
ভ্যাপসা গরম ব্যাজায় শরমপারভেজ বাবুল তোমার যদি সময় থাকে আসতে পারো
ভ্যাপসা গরম, ভালস্নাগেনা, ভাবতে পারো।
এই গরমে প্রেম জমে না, চান্দি গরম
তার উপরে তোমার দেখি ব্যাজায় শরম!

আমার দাদায় প্রেমিক ছিল নামকরা
লাস্টে দাদা দাদির কাছে খায় ধরা!
নানায় ছিলো প্রেমের গুরম্ন, ভাইরে ভাই
এই দুনিয়ায় নানার সমান প্রেমিক নাই!
... বিস্তারিত
ছিঁড়ে গেছে নাড়ির টানআলমগীর খোরশেদ বছর ঘুরে ঈদ আসে
সিয়াম করার পর
নাড়ির টানে সবাই ছুটে
নিজের আপন ঘর।
টিকিট পেতে কষ্ট শত
লঞ্চে-ট্রেনে ভিড়,
ছাদের উপর ঠাঁই নাই-
চলে বাহন ধীর।
সব ঝামেলা সয়ে যখন
দেখে প্রিয়মুখ,
মনের ভেতর খেলা করে
লক্ষ হাজার সুখ।
ইট পাথরের এই ঢাকাতে
বন্দি জীবনযাপন,
ছিঁড়ে গেছে নাড়ির টান
... বিস্তারিত
স্মৃতির ফাগুনেনীলিমা শামীম বই মেলার আহ্বানে এসছিলাম এই ফাগুনে
যখন ফাগুন আসলো হাওয়ায় দোলায় ঝুলে
কৃষ্ণচূড়া তার রঙিন সাজে বৃষ্টি ঝরালো প্রভাতে
এলোমেলো করলো হাজারো বইয়ের পঙ্‌ক্তিমালা

চির যৌবনা করে তুলে বসন্ত্ম কাল এলে সবুজের গায়
কৃষ্ণচূড়ার ডালে বসে কোকিলটায় সুর তুলে তুলে গায়,
হারানো স্মৃতিগুলো ফুটিয়ে তুলে কত শত রঙিন ফুলে
আমার স্মৃতির মনের পর্দায় প্রতিবার স্মৃতির পাতা... বিস্তারিত
মা আমারমনিরম্নল আলম মাকে আমার পড়ছে মনে
উদাস করা ঝিম ধরা দুপুরে
আবার মাকে পড়েছে মনে
বিষণ্ন সাঁঝের ক্লান্ত্ম নূপুরে।
সন্ধ্যা মিলায়ে কখন
রাত্রি ভীষণ নেমেছে
ভাঙা মনটা জুড়ে
শুধু তাঁরই ছবি ভেসেছে।
সুনসান প্রকৃতি, রাত নিঝুম
বারে বারে আসছে মনে খালি
সজল দুটি দীঘল আঁখি।
তন্দ্রাহীন, নিদ্রাহীন নয়নে আমার
তপ্ত জলের ধারা নামছে
মাকে... বিস্তারিত
আলোর মিছিলমুহম্মদ আসাদুলস্নাহ বিস্মরণের আলো নিয়ে
অরণ্যের অলিন্দে দাঁড়িয়ে
জলপাই রঙের পাহাড়ের দিকে তাকালাম
প্রগাঢ় তমসা আর স্ত্মব্ধতার প্রত্যাশায়।
নিঝুম বনের মধ্য থেকে ঘন আঁধার বুনো ষাঁড়ের মতো
তেড়ে-ফুঁড়ে এলো অকস্মাৎ।
উৎসুক হয়ে উঠল শামুকের ভিতর
লুকিয়ে রাখা অনাবাদি মন।
তখনই আলোর ঝুমকা নিয়ে চাঁদ ঝাঁপাল পাহাড়ে
স্ত্মব্ধতা চিরে পাহাড় থেকে ঝাঁপিয়ে পড়ল নির্ঝর।
চাঁদ বলল- ঝুমকা নাও,... বিস্তারিত
হারিয়ে ফেলা অস্ত্মিত্বফারিহা হোসেন মনে করো সূর্য প্রতিদিন তোমার জন্য উঠে
প্রভাত শুধু তোমার জন্য হয়
আকাশে পাখিরা সারি বেঁধে
গান গেয়ে যায় তোমার জন্য,
ময়ূর পেখম তোলে নাচে তোমার জন্য,
ভোর দুপুরের সেই নিস্ত্মব্ধটা আসে শুধু তোমার জন্য।

মাঠে বালকদের হৈচৈ করে খেলা তোমার জন্য,
বালিকাদের মনের আনন্দে ছুটে বেড়ানো তোমার জন্য,
মধ্যাহ্নের সেই অস্ত্মে ডুবে যাওয়া সূর্য... বিস্তারিত
শিখ-ী পুরাণমঈনুল হাসান সময়টা পাঁচ বছরেরও কিছু কাল পরে। বিন্দুগঞ্জের ফেরিঘাটের কাছে আষাঢ়ের এক মধ্যদুপুরে হঠাৎ তার সাথে দেখা। দেখা মানে সম্মুখ সাক্ষাৎ নয়, শুধুই দূর থেকে বিস্ময়ভরে দেখা। আর দেখামাত্রই ভূত দেখার মতো চমকে ওঠে হাফিজ। কে জানত, সময়ের পরিক্রমা এত নিষ্ঠুর, এমন দুর্বহ হবে?
মুখের আদল অবিকল সেই রকমই আছে। তবে কিছু রম্নক্ষতা এসে ভিড় করায় আশ্চর্য এক বৈপরীত্যের ছায়া স্পষ্ট হয়েছে তার চেহারায়।... বিস্তারিত
ফালতুজীম হামযাহ আমাদের শহরের মানুষের যখন ঘুম ভাঙে তখন ছায়ার দীর্ঘতা কমে আসে। তখন সূর্য মাথার ওপর জাজ্বল্যমান তেজস্বী। শহরের মানুষ বহুদিন হয় তারা তাদের ছায়া দেখে না। কেননা এরা নিজেদের জীবনের প্রয়োজনীয় বিষয়াদি নিয়ে এত ব্যস্ত্ম থাকে যে, এসব তুচ্ছ বিষয়ে নজর দেয়ার ফুরসত তাদের নেই। তারা সর্বশেষ কবে আপন ছায়া দেখেছে ঠিক মনে করতে পারে না। এমনও আছে দীর্ঘ একটা সময় পার করছে তারা সূর্যোদয়... বিস্তারিত
 
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close