মধুপুরে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যামো. নজরম্নল ইসলাম গত ২৭ মে শুক্রবার মধুপুরের গাছাবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী লিজাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঐদিন রাত ৯টার দিকে উপজেলার অরণখোলা ইউনিয়নের গাছাবাড়ী গ্রামের উত্তরপাড়ায় বাড়ির পশ্চিম পাশের বাঁশঝাড় থেকে কলাপাতায় মোড়ানো অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলো, ঘটনাস্থলের পাশে বসবাস ও কর্মরত আব্দুল মান্নানের ছেলে আমজাদ হোসেন (৩০), ইদ্রিস আলীর ছেলে দেলোয়ার (৩২), মৃত আন্ত্মাজ আলীর ছেলে আব্দুল মালেক (৩৯), হাতেম দেওয়ানীর ছেলে আরশেদ আলী (৫৫) এবং লিজার চাচাতো ভাই রানা (২২)।
সরেজমিনে নিহতের পারিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, দুপুরের দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরেনি লিজা। অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাত ৯ টার দিকে বাড়ির পশ্চিম পাশে বাঁশঝাড়ে কলাপাতায় মোড়ানো অবস্থায় তার মরদেহ পাওয়া যায়। নিহতের শরীরের কাপড়-চোপড় ছেঁড়া অবস্থায় পাওয়া গেছে। তার মাথা ও শরীরে খড়ের আবর্জনা ছিল। মরদেহ দেখে স্থানীয়রা ধারণা করছে তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে।
অরণখোলা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম জানান, এ ঘটনার সাথে যে বা যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্ত্মমূলক শাস্ত্মি যেন হয়। এ বিচার দেখে আর যেন কেউ এ রকম ঘটনা না ঘটায়। নিহতের ভাই রনি জানান, লিজা রোজা ছিল। ইফতারও করতে পারল না। বলতে বলতেই কেঁদে কেঁদে মূর্ছা যান। আর বলতে থাকেন বোনরে তুই আমার কাছে বলে গেলি না। লিজার মা ফাহিমা বেগম জানান, আমার মেয়েকে যারাই নির্যাতন করে হত্যা করেছে আমি তাদের ফাঁসি চাই। বলতে বলতেই শোক বিহ্বল হয়ে পড়েন।
গাছাবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিহতের সহপাঠি রীমা ও মীম জানায়, আমরা এক সাথেই স্কুলে যেতাম। খেলতাম। এভাবে যেই নির্যাতন করে থাক তাদের যেন দৃষ্টান্ত্মমূলক শাস্ত্মি হয়। আমরা তাদের ফাঁসি চাই।
মধুপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, পুলিশ খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করেছে। প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে ধর্ষণের পর তাকে শ্বাস রোধে হত্যা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে শিশুটির বাবা আব্দুল মজিদ বাদী হয়ে মধুপুর থানায় মামলা করেছেন।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close