সোশ্যাল মিডিয়ায় নিরাপদ থাকবে যেভাবেইঞ্জিনিয়ার কাজী মো. মোরশেদ শিমুল ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, টুইটার, মাইস্পেস, লিঙ্কডইন ও বস্নগ ইত্যাদি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট এবং টুলসের সংখ্যা দিন বেড়েই চলছে। সাধারণত সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট মানে হলো একজনের সঙ্গে অন্যজনের তথ্য শেয়ার করা, কিন্তু কিছু কিছু তথ্য একেবারেই সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে শেয়ার করা উচিত নয়। কারণ বেশি তথ্য শেয়ার না করাই আপনাকে বাঁচিয়ে দিতে পারে অনেক ধরনের অনলাইন প্রতারণার হাত থেকে।
তাই আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিরাপদ থাকার উপায় যেভাবে আপনি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে সবসময় সতর্ক থাকতে পারেন, চলুন গুরম্নত্বপূর্ণ দিকগুলো দেখে নেয়া যাক-
পাঁচ ধরনের তথ্য যা আপনি শেয়ার করবেন না:
১. আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নাম্বার
২. আপনার জন্ম তারিখ
৩. আপনার পরিবারের ব্যক্তিগত যোগাযোগ নাম্বার
৪. আপনার গোপন পিন নাম্বার
৫. আপনার ব্যক্তিগত ব্যাংকের একাউন্ট নাম্বার ও ক্রেডিট কার্ড নাম্বার।
এমন ধরনের কোনো তথ্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে শেয়ার না করাই ভালো, তা ছাড়া আপনি চাইলে এই ধরনের তথ্যগুলো গোপন করে রাখা যায় অনেক সাইটে, এর জন্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের গোপনীয়তা সেটিংগুলোতে লক্ষ্য করে দেখতে পারেন।

তথ্যের গোপনীয়তা সংরক্ষণ করম্নন
সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো ক্রমাগত ব্যবহারকারীদের তাদের নিজস্ব গোপনীয়তা সেটিংসের ওপর কাজ করে যাচ্ছে। সাইটগুলোতে যে ডিফল্ট সেটিংস দেয়া থাকে তার উপর নির্ভর না করে আপনি নিজের মতো করে সেটিংস, কনফিগারেশন এবং অন্যান্য গোপনীয়তা বিভাগগুলো পরিবর্তন করম্নন যাতে আপনার যে কোনো তথ্যের গোপনীয়তা আপনি নিজে সীমিত করতে পারেন।

বিভিন্ন জব সাইট বা লিঙ্কডইনে আপনার কর্ম ক্ষেত্রের তথ্যবিবরণী সীমিত রাখুন
আপনি কি আপনার জীবন বৃত্তান্ত্মের সব তথ্য অন্য সবার কাছে উন্মুক্ত রাখবেন? অবশ্যই না, কারণ আপনার তথ্য দিয়ে যে কেউ একটি ঋণ আবেদন ফর্ম পূরণ করার সময় আপনার তথ্যগুলো ব্যবহার করতে পারে। লিঙ্কডইনের মতো সাইটে আপনার কাজের ইতিহাস বিবরণী সীমিত রাখুন, আপনি যদি মনে করেন চাকরির খোঁজার জন্য আপনার অতিরিক্ত তথ্য দেয়া প্রয়োজন, তা হলে সাময়িকভাবে আপনার তথ্যগুলো দিন এবং চাকরি পেয়ে গেলে আপনি আবার তথ্যগুলো গোপন করে দিন। লিঙ্কডইন তাদের ব্যবহারকারীদের নিজস্ব তথ্য গোপন করার অনেক সুযোগ-সুবিধা দিয়ে থাকে এ ছাড়া বিভিন্ন জব সাইটে যতটা সম্ভব সতর্ক থাকুন যাতে আপনার তথ্যগুলো একটি নির্দিষ্টভাবে সংরক্ষণ করতে পারেন।
ব্যক্তিগত ওয়ালে তথ্য প্রকাশে সতর্কতা
আপনি নিশ্চয় আপনার বাসার দরজায় এমন কোনো নোট রেখে যাবেন না যে, 'এক সপ্তাহের জন্য বাড়ির বাইরে যাচ্ছেন এবং শনিবারে বাড়ি ফিরবেন', কারণ এতে আপনার বাসা নিয়ে অনেকে অনেক ধরনের কুচিন্ত্মা করতে পারে। তাই মাইক্রো বস্নগিং টুলস বা টুইটার, ফেসবুক, লিঙ্কডইন এবং অন্যান্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলোতে আপনার ওয়ালে তথ্য প্রকাশে যথেষ্ট সতর্ক হোন। আপনি সবসময় খেয়াল রাখবেন যে আপনি কোন সাইটে কি তথ্য দিচ্ছেন এবং কেউ যেন তা অন্যায়ভাবে ব্যবহার করতে না পারে। এ ধরনের অনেক তথ্য আপনি প্রতিনিয়ত আপনার ওয়ালে আপনি লিখছেন, আপনি কি একবারও ভেবে দেখেছেন যে আপনি একজন অনলাইন প্রতারকে তার প্রতারণার কাজটি কতটা সহজ করে দিচ্ছেন।

ইন্টারনেটে নিজেকে অনুসন্ধান করম্নন :
আপনার নামটি গুগলে বা অন্য কোনো ইঞ্জিনে সার্চ করে দেখুন, এতে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রোফাইল আপনার সম্পর্কে কোনো ধরনের তথ্য প্রকাশ করে, তারপর আপনার প্রোফাইল, সেটিংস এবং অন্যান্য দিকগুলো যথোপযুক্তভাবে পরিবর্তন করম্নন। প্রতিমাসে অন্ত্মত একবার এটি করতে ভুলবেন না। আপনি যদি অপ্রত্যাশিতভাবে এমন কোনো তথ্য দেখতে পান যা আপনি করেননি, তাহলে বুঝতে হবে আপনার অনলাইন পরিচয়ের কেউ অপব্যাবহার করছে। আপনার নাম দিয়ে গুগলে একটি সতর্কতামূলক অপশন সেট করে নিন, যাতে গুগল আপনার নামে কোনো সাইটে কিছু খুঁজে পেলে তা আপনাকে জানাবে, অবশ্য একই নামে অনেকেই আছেন, কিন্তু তবুও আপনি পর্যাপ্ত পরিমাণ সতর্কতা পেলেও তা যাচাই-বাচাই করে নিতে পারেন, যা আপনার জন্য ভালো। সোশ্যাল সাইটগুলো কীভাবে আপনার তথ্য ব্যবহার করতে পারে তা জানুন-
সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো ব্যবহারকারীদের সাধারণত বিনামূল্যে তাদের সার্ভিস ব্যবহার করার সুযোগ দেয়, এর মানে হলো যে তারা আপনার সম্পর্কে নানা ধরনের তথ্য সংগ্রহ করছে এবং আপনার তথ্য ব্যবহার করে তারা বিজ্ঞাপন দিয়ে অর্থ উপার্জন করছে, তারা কি তাহলে আপনার তথ্য কোম্পানির বাইরে অন্য কারও কাছে শেয়ার করছে? কি কি ধরনের তথ্য বিভিন্ন পস্নাগিন বা ফেসবুক অ্যাপিস্নকেশনের মাধ্যমে আপনার প্রোফাইল বা পেজ থেকে তারা ব্যবহার করতে পারে সেসব নীতিমালা পর্যবেক্ষণ করম্নন এবং ভালোভাবে গোপনীয়তা সেটিংস দেখুন যা আপনি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। বর্তমানে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সফটওয়্যার শিল্পের বেশিরভাগই ব্যবহারকারীদের মনিটর করার একটি প্রবণতা রয়েছে। আপনার একাউন্টের, ব্যক্তিগত তথ্যসহ, যত ধরনের লেনদেন আপনি বিভিন্ন কোম্পানি থেকে করেছেন তার প্রত্যেকটি এক একটি ডাটা হিসেবে তাদের কাছে সংরক্ষিত থাকে। সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইটগুলোর গোপনীয়তা নীতি অনেক সময় পরিবর্তন হয়ে থাকে। তাই আপনি সব সময় সতর্ক থাকুন এবং গোপনীয়তা নীতি সম্পর্কিত কোনো নোটিফিকেশান এলে সেটি ভালোভাবে লক্ষ্য করম্নন।
এসব দিক ভালোভাবে পর্যালোচনা করলে আপনি যথাসম্ভব নিরাপদ থাকবেন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে, তবুও বলে নেয়া ভালো প্রযুক্তির পরিবর্তন যে কোনো সময় হতে পারে তাই এসব অপশনগুলো সবসময় একই নাও থাকতে পারে।
কাজী মো. মোরশেদ শিমুল
ইঞ্জিনিয়ার
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
-এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close