ঈদযাত্রায় সৈয়দপুরে রেলে সর্বোচ্চ সতর্কতানীলফামারী প্রতিনিধি এবারের ঈদযাত্রা আরও নির্বিঘ্ন করতে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ এরই মধ্যে গুরম্নত্বপূর্ণ স্টেশনে বসিয়েছে তথ্য কেন্দ্র, তলস্নাশির জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে মেটাল ডিটেক্টর ও বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিতরণ। রেলওয়ে পুলিশের সৈয়দপুর সদর দপ্তর সূত্র জানা যায়, নীলফামারীর চিলাহাটি থেকে খুলনা, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনা মসজিদ থেকে রাজশাহী, ঈশ্বরদী, বঙ্গবন্ধু সেতু, রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ ঘাট কুষ্টিয়ার পোড়াদহ, লালমনিরহাটে পাটগ্রাম থেকে বগুড়া, বগুড়া থেকে শান্ত্মাহার, পঞ্চগড় থেকে দিনাজপুরের পার্বতীপুর, যশোর থেকে বেনাপোল, বিরল থেকে পার্বতীপুর পর্যন্ত্ম সব রেলপথে ওই সতর্কতার আওতায় রয়েছে। সূত্রটি জানায়, এসব রেলপথের প্রতিটি স্টেশনে সতর্ক পাহারা বসিয়েছে পুলিশ। ৭৮১ জন রেলওয়ে পুলিশ (জিআরপি) সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন। এ কাজে সহযোগিতায় সাদা পোশাকে ২৯ জন পুলিশসহ আরও ১১০ জন আনসার ব্যাটালিয়ন রয়েছে। এ ছাড়াও বিভাগীয় শহরের মেট্রো পলিটন ও জেলা পুলিশ ট্রেনযাত্রা নিরাপদ করতে নিয়োজিত রয়েছেন পাহারায়। ঈদের ১০ দিন পর পর্যন্ত্ম ওই সতর্কতা জারি বলবৎ থাকবে।
সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ সুপার সিদ্দিকী তাঞ্জিলুর রহমান জানান, ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে ওই কর্মসূচি নিয়েছি। এই সতর্কতা ঈদের ১০ দিন পর পর্যন্ত্ম চলবে। এ সময় রেলপথ, স্টেশন, ট্রেনে ট্রেনে পুলিশ পাহারা, বিভিন্ন গুরম্নত্বপূর্ণ স্টেশনে পোস্টার সাঁটানো, বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিতরণসহ তলস্নাশি অব্যাহত থাকবে। তবে এ পর্যন্ত্ম কোনো নাশকতা ও চুরি, চোরাচালানির মতো কোনো ঘটনা ঘটেনি। উলেস্নখ্য, সৈয়দপুর জেলা পুলিশের অধীনে ১২টি জিআরপি থানা ও ১২টি পুলিশ ফাঁড়ি রয়েছে। এসব থানা হচ্ছে সৈয়দপুর সদর, পার্বতীপুর, দিনাজপুর, শান্ত্মাহার, ঈশ্বরদী, খুলনা, রাজশাহী, লালমনিরহাট, বোনারপাড়া, সিরাজগঞ্জ, রাজবাড়ী, পোড়াদহ।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
স্বদেশ -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close