নির্বোধের মতো কথা বলবেন না ফখরুলকে হাছান মাহমুদযাযাদি রিপোর্ট রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, জ্ঞানী মানুষ হয়ে নির্বোধের মতো কথা বলবেন না।
রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে জাতীয় সংসদে নিন্দা প্রস্তাব পাস হয়নি বলে ফখরুলের মন্তব্যের জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, সংসদে নাকি শোক বার্তা জানানো হয়নি। তিনি না জেনেই বোকাদের মতো কথা বলছেন। তিনি একজন শিক্ষক মানুষ। তার এ ধরনের বক্তব্য শোভা পায় না।
রোহিঙ্গাদের নির্যাতন ও হত্যা বন্ধ এবং তাদের স্বদেশে ফিরিয়ে নেয়ার দাবিতে বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন আওয়ামী লীগের এ নেতা। বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।
ড. হাছান মাহমুদ বলেন, 'বিভিন্ন সভায় ফখরুল রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের ব্যবস্থাপনার বদনাম করছেন। আমি বলব, আগে নিজেদের কথা ভাবুন। আপনারা তো টেকনাফে একবারও যাননি। আপনাদের নেত্রী খালেদা জিয়া একবারের জন্যও দেশে এসে অসহায় মানুষের দেখতে যাননি।'
মিয়ানমারের নৃশংসতা মধ্যযুগীয় বর্বরতাকেও হার মানিয়েছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক বলেন, মিয়ানমারে মুসলিমদের পাশাপাশি হিন্দুদেরও হত্যা করা হয়েছে। থানায় হামলার সাজানো নাটকীয় ঘটনা দেখিয়ে তারা এ রোহিঙ্গা নিধন শুরু করে। শুধু একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুরো জাতিকে ধ্বংস করার পাঁয়তারা করছে তারা।
গণহত্যা ইস্যুতে প্রশ্নের মুখে পড়বেন বলে সে অবস্থা থেকে রেহাই পেতে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর (কার্যত সরকারপ্রধান) অং সান সু চি এবার জাতিসংঘে সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিচ্ছেন না জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, সেখানে গেলে তিনি বিশ্ববাসীর প্রশ্নের সম্মুখীন হবেন, যার কোনো সঠিক উত্তর তার কাছে নেই।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শন ও তাদের ফেরত যাওয়ার আগ পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকারের সহায়তার প্রতিশ্রুতিরও ভূয়সী প্রশংসা করেন হাছান মাহমুদ।
রোহিঙ্গা গণহত্যা বন্ধে ব্যর্থতার জন্য সু চির নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রত্যাহার করতে নোবেল কমিটিকে অনুরোধ জানানোর পাশাপাশি বিশ্ববাসীকে একসঙ্গে এ ঘটনার প্রতিবাদ জানানোরও আহ্বান জানান তিনি।
ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ২৬ নাম্বার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান মানিকের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, অ্যাডভোকেট তালুকদার মোহাম্মদ ইউনুস, জিন্নাত আলী জিন্নাহ, এমএ করিম, শাহাদাত হোসেন টয়েল প্রমুখ।
রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ সরকারের ব্যবস্থাপনার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তারা এ হত্যাযজ্ঞ বন্ধ করে দ্রুত রোহিঙ্গাদের স্বদেশে ফেরত নেয়ার দাবি জানান।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin