সীমু হত্যাকা-: স্বামীসহ পাঁচজনের কারাদ-ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকুট গ্রামের গৃহবধূ ফাতু বেগম ওরফে সীমু হত্যাকা-ের ঘটনায় পাঁচজনকে যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মো. মঈনুদ্দিন এই রায় ঘোষণা করেন। মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এস এম ইউসুফ রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
রায়ে যাবজ্জীবন কারাদ-প্রাপ্তরা হলো, সীমুর স্বামী রফিকুল ইসলাম, বিদ্যাকুট গ্রামের শামীম আহমেদ, কুড়িঘর গ্রামের মো. আক্তার হোসেন ওরফে বড় আক্তার, মো. আক্তার হোসেন প্রকাশ ছোট আক্তার, একই গ্রামের আরশ আলী। এর মধ্যে রফিকুল ইসলাম বর্তমানে জেলহাজতে আছেন। স্বামী রফিকুল ইসলাম স্ত্রীকে খুন করতে ছিনতাইয়ের ঘটনা সাজিয়ে ছিলেন বলে পুলিশের তদন্ত্মে উঠে আসে।
চাঞ্চল্যকর এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পি.পি) অ্যাডভোকেট এস এম ইউসুফ ও আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট হামিদুর রহমান।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২০০৯ সালের ১০ জুলাই রাতে রফিকুল ইসলাম তার স্ত্রী ফাতু বেগম শিমুকে নিয়ে কুড়িঘর গ্রাম থেকে রিকশা যোগে বিদ্যাকুট গ্রামে তার নিজ বাড়িতে যাচ্ছিল। পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী কুড়িঘর-বিদ্যাকুট সড়কে শিমুকে হত্যা করার জন্য আসামি আক্তার শামীম, আক্তার হোসেন, ও আরশ ওঁৎ পেতে ছিল। রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই সড়কে স্বামী রফিকুলের সহযোগিতায় আসামিরা ছুরিকাঘাত করে শিমুকে হত্যা করে। এ ঘটনাটি ডাকাতির ঘটনা সাজিয়ে নবীনগর থানায় পরদিন ১১ জুলাই একটি মামলা দায়ের করা হয়।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
প্রথম পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close