খুলনায় বুড়িভদ্রায় বিলীন হচ্ছে বাজারখুলনা অফিস খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগরে ভদ্রানদীর ভাঙনে কাঁঠালতলা বাজার বিলীন প্রায়। বাজারের মসজিদের ওজুখানা ও গণশৌচাগার নদীতে বিলীন হয়ে গেছে।
এলাকাবাসী জানান, শিবশার শাখা নদী বুড়িভদ্রা ২৪ নং পোল্ডারের অধীনে। কাঁঠালতলা বাজার থেকে গোবিন্দকাটি পর্যন্ত্ম প্রায় ২ কিলোমিটার গ্রামরক্ষা বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। সম্প্রতি বৃষ্টি এবং জোয়ারের পানিতে ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধের কয়েকটি স্থান ভেঙে সমগ্র এলাকা তলিয়ে গেছে। কাঁচাবাজারের অন্ত্মত ১০-১৫টি দোকান, মসজিদের ওজুখানা, টয়লেট ও গণশৌচাগারসহ বাজারের প্রায় ৬০ শতাংশ জায়গা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।
খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলার ঐহিত্যবাহী কাঁঠালতলা বাজার কাঁচামালের জন্য বিখ্যাত হাট ছিল। এর উত্তরে ভদ্রানদী আর দক্ষিণে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়ক।
কাঁঠালতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মসজিদ, মন্দিরসহ আছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ভাঙনের কারণে এসব এখন হুমকির মুখে। ভাঙন রোধে বা স্থায়ী সংস্কার ও প্রতিকারের জন্য সংশিস্নষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী।
কাঁঠালতলা বাজার কমিটির সভাপতি শেখ আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক শেখ হাসানুর রহমান, ডা. অসিম মলিস্নক, মসজিদ কমিটির কোষাধ্যক্ষ মো. মনিরম্নল ইসলাম মালী, ব্যবসায়ী রায়হান মোড়ল, আব্দুল মালেক, বীরেন দাসসহ বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, ভদ্রা নদীর ভাঙনে কাঁঠালতলা বাজারের অস্ত্মিত্ব নদীগর্ভে বিলীন প্রায়। ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান আলী মুনসুর জানান, কাঁঠালতলা এলাকায় একাধিকবার নদীভাঙ্গন হয়েছে। স্থায়ীভাবে বাঁধ মেরামতসহ ভাঙন রোধের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নিতে কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে অচিরেই বাঁধ মেরামতের ব্যবস্থা করা হবে।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
প্রথম পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close