ঢাকায় উবারের বাইক শেয়ারিং সেবাও চালুযাযাদি রিপোর্ট 'উবার মটো' নাম দিয়ে ঢাকায় মোটর সাইকেল শেয়ারিং সেবা চালু করেছে উবার। মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে উবার কর্তৃপক্ষ।
এতে বলা হয়, 'রাইড শেয়ারিং কোম্পানি উবার মঙ্গলবার ঢাকায় বাইক শেয়ারিং সার্ভিস উবার মটো চালু করেছে।'
১১ মাস আগে 'উবার-এক্স' সেবা দিয়ে ঢাকায় কার্যক্রম শুরম্ন করার পর সম্প্রতি 'উবার প্রিমিয়ার' সার্ভিস চালু করে মোবাইল অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবাদাতা কোম্পানিটি।
মঙ্গলবার থেকে উবার মটো সেবাটি দেখা যাচ্ছে উবার অ্যাপে।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, 'সকালে ঢাকা শহরে উবার মটোর প্রথম রাইড নিয়েছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ব্যক্তিগত জীবনে বাইকের ফ্যান মাশরাফি উবার মটোর প্রথম অভিজ্ঞতা নিয়ে তার সন্ত্মষ্টি প্রকাশ করেন।'
উবারের ঢাকার জেনারেল ম্যানেজার অর্পিত মুন্ড্রা বলেন, 'ঢাকায় উবার মটো চালু করতে পেরে এবং এর মাধ্যমে যাত্রী যাতায়াতের একটি সাশ্রয়ী মাধ্যম প্রদান করতে পেরে আমি অত্যন্ত্ম আনন্দিত। প্রযুক্তির মাধ্যমে ঢাকার যাতায়াতব্যবস্থা উন্নত করা ও যানজট নিরসনে অবদান রাখার পাশাপাশি তরম্নণদের জন্য হাজার হাজার কর্মসংস্থান তৈরি করতে পেরে আমরা গর্বিত।'
উবার মটোর মাধ্যমে যাত্রীরা অ্যাপের একটি বাটন প্রেস করে সাশ্রয়ী মূল্যে নির্ভরযোগ্য রাইড উপভোগ করতে পারবেন। উবারের অন্যান্য রাইডের মতো উবার মটোর ক্ষেত্রেও যাত্রীরা চালক ও গাড়ি সম্পর্কে বিস্ত্মারিত তথ্যসহ জিপিএস ট্র্যাকিং, টু-ওয়ে ফিডব্যাক ও ট্রিপ ডিটেইলস শেয়ারিংয়ের মতো সেফটি ফিচারগুলির সুবিধা পাবেন।
উবার মটোতে বেইস ফেয়ার ৩০ টাকা। ট্রিপের সময় প্রতি মিনিট ১ টাকা ও প্র?তি কিলোমিটারের ভাড়া ১২ টাকা।
উবারের উদ্দেশ্য দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার শহরগুলিতে বাইকশেয়ারিং সার্ভিস চালু করা। এই উদ্দেশ্য পূরণের অংশ হিসেবে ইতোমধ্যে ভারতে উবার মটোর এক বছর পূর্তি উদযাপিত হয়েছে। এ ছাড়া ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামেও চালু রয়েছে উবার মটো।
গত ফেব্রম্নয়ারিতে ভারতের হায়দ্রাবাদ শহরে প্রথম মোটর সাইকেল রাইড শেয়ার সেবা দেয়া শুরম্ন করে উবার। পরের মাসে বেঙ্গালুরম্নতে চালু হয়। এর আগে গত বছরের ফেব্রম্নয়ারিতে ব্যাংককে 'মোটরসাইকেল ট্যাক্সি সার্ভিস' চালু করে উবার। কিন্তু ভারত ছাড়া উবার মটো আর কোথাও ততটা জায়গা করে নিতে পারেনি।
গত বছরের ৭ মে 'শেয়ার এ মোটরসাইকেল, স্যাম' বাংলাদেশে প্রথম মোটরসাইকেলে রাইড শেয়ারিং সেবা শুরম্ন করে। শুরম্নতে বিআরটিএর নিষেধাজ্ঞায় পড়ে কার্যক্রম শিথিল রাখে 'স্যাম'।
বর্তমানে পাঠাও, স্যাম, মুভ ও বাহন ঢাকায় মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং সেবা দিচ্ছে।
বেসরকারি রাইড শেয়ারিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়ন্ত্রণে সরকার রাইড শেয়ারিং নীতিমালা প্রণয়ন করছে। বিআরটিএর পাঠানো খসড়া নীতিমালা যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের জন্য প্রক্রিয়াধীন আছে।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close