পূর্ববর্তী সংবাদ
রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীমাদকের ভয়াল থাবা থেকে তরম্নণ সমাজকে বাঁচাতে হবেদায়িত্ব পালনের সময় জনগণের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরম্নত্ব দিতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবেরাজশাহী অফিস প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার রাজশাহীর সারদায় পুলিশ একাডেমিতে শিক্ষানবিস সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনীতে আসমা আক্তার সোনিয়াকে বেস্ট একাডেমিক পদক প্রদান করেন। পাশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারী -ফোকাস বাংলাপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, 'মাদকের করাল গ্রাসে আমাদের তরম্নণ সমাজ আজ বিপদাপন্ন। এই ভয়াল থাবা থেকে তাদের বাঁচাতে হবে। মাদক সেবনকারী, ব্যবসায়ী, উৎপাদক, সরবরাহকারী সবার বিরম্নদ্ধে শাস্ত্মিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমাদের পুলিশ যেমন জঙ্গি দমনে সফল হয়েছে, তেমনি মাদক থেকে আমাদের তরম্নণ সমাজকে রক্ষায় সফল হতে হবে।
বুধবার রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার সারদায় বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে শিক্ষানবিস সহকারী পুলিশ সুপারদের প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজে এ সব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।
বেলা ১১টা ২০ মিনিটে হেলিকপ্টর যোগে সারদা পুলিশ একাডেমিতে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। ১১টা ৪৫ মিনিটে কুচকাওয়াজে যোগ দেন। পরে প্রধানমন্ত্রী কুচকাওয়াজের প্যারেড পরিদর্শন ও অভিবাদন গ্রহণ এবং নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন।
৩৫তম বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারের ১২৩ জন সহকারী পুলিশ সুপার এই ব্যাচে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এর মধ্যে ১৮ জন নারী। শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজে প্রশিক্ষণের বিভিন্ন ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী এক নারীসহ তিন নবীন পুলিশ কর্মকর্তাকে ক্রেস্ট প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।
শেখ হাসিনা বলেন, 'জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ সারা বিশ্বের সমস্যা। আমরা দক্ষতার সঙ্গে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছি। জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ পুলিশের অব্যাহত সাফল্য শুধু দেশেই নয়, আন্ত্মর্জাতিক অঙ্গনেও ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। এদেশের মাটিতে জঙ্গি, সন্ত্রাসী, যুদ্ধাপরাধীদের স্থান হবে না।'
প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'অভ্যন্ত্মরীণ শাস্ত্মি-শৃঙ্খলা রক্ষা, জননিরাপত্তা বিধান, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা, সন্ত্রাস ও অপরাধ দমন, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখার পাশাপাশি বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ বজায় রাখতে পুলিশ সদস্যরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। দুই যুগের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ পুলিশ জাতিসংঘ শান্ত্মিরক্ষা মিশনে দক্ষতা ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে বহির্বিশ্বে প্রশংসা অর্জন করেছে।'
তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী অপরাধের ধরন দ্রম্নত পাল্টে যাচ্ছে। নিত্যনতুন অপরাধ দমনে পুলিশ সদস্যদের আরও তৎপর হতে হবে। বিশেষ করে সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে দক্ষ হতে হবে। বাংলাদেশ পুলিশের সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং অপরাধ দমনে কার্যকর ভূমিকা নিশ্চিত করার লক্ষে আমাদের সরকার আইনশৃঙ্খলা খাতে বরাদ্দকৃত অর্থকে বিনিয়োগ হিসেবে গণ্য করছে।
শেখ হাসিনা বলেন, আমরা দেশের আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার নিশ্চিত করে উন্নয়নকে টেকসই করতে চাই। এক্ষেত্রে পুলিশের ভূমিকা সবচেয়ে গুরম্নত্বপূর্ণ। বাংলাদেশ পুলিশের নবীন কর্মকর্তারা সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞান ও অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে 'রূপকল্প'-২০১২ এবং 'রূপকল্প'-২০৪১ বাস্ত্মবায়নে আগ্রহী ভূমিকা পালন করবেন।
নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, 'আপনারা মৌলিক প্রশিক্ষণ শেষে কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করতে যাচ্ছেন। মানুষ বিপদের সময় পুলিশের কাছে সাহায্যের জন্য আসে। তাই সেবা ও মানবিক আচরণের মাধ্যমে মানুষের আস্থা অর্জনে সচেষ্ট থাকবেন। দায়িত্ব পালনের সময় জনগণের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে সর্বাধিক গুরম্নত্ব দিতে হবে। সমাজের নারী, শিশু ও প্রবীণদের প্রতি সংবেদনশীল আচরণ করতে হবে। সমাজ থেকে অপরাধ নির্মূলে জনসম্পৃক্ততার মাধ্যমে জনবান্ধব পুলিশ গঠনে আপনাদের অগ্রপথিকের ভূমিকা পালন করতে হবে।'
প্রধানমন্ত্রী বলেন, মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে এই পুলিশ একাডেমিরও রয়েছে গৌরবময় ইতিহাস। একাডেমির তৎকালীন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ২৪ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী শহীদ হন। আমি মুক্তিযুদ্ধে শহীদ সকল পুলিশ সদস্যকে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি। মহান মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকার স্বীকৃতিস্বরূপ আমরা বাংলাদেশ পুলিশকে 'স্বাধীনতা পদক ২০১১' এ ভূষিত করেছি।'
হশেখ হাসিনা বলেন, 'পাকিস্ত্মানি দোসর ও স্বাধীনতাবিরোধীরা চেয়েছিল জাতির পিতার স্মৃতিকে মুছে ফেলতে। এদেশের মাটি থেকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করতে। তারা দুঃশাসন, বঞ্চনা আর বিচারহীনতার মাধ্যমে এদেশে গণতন্ত্র ও উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে নস্যাৎ করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিল। সে ষড়যন্ত্র আজও থেমে নেই। আমরা সচেতন জনগণকে সঙ্গে নিয়ে সব ষড়যন্ত্র বরাবরই রম্নখে দিয়েছি। সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় সর্বদাই বাংলাদেশ পুলিশ সাহসিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছে।'
প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'আন্ত্মর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদু্যৎ ও জ্বালানি, বৈদেশিক নীতি ও সম্পর্ক গ্রামীণ ও নগর অবকাঠামো, ব্যবসা-বাণিজ্য, সামাজিক নিরাপত্তা প্রতিটি সেক্টরেই আজ কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জন সম্ভব হয়েছে।'
'বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছে। এ উত্তরণ আমাদের সরকারের ঐকান্ত্মিক প্রচেষ্টা ও ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মকা-ের ফসল। আমরা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণ করেছি। উন্নয়নের এ অভিযাত্রা অব্যাহত থাকলে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আমরা সক্ষম হবো।'
প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের প্রত্যাশা অনুযায়ী চৌকস, পেশাদার, দক্ষ ও জনবান্ধব পুলিশ সার্ভিস গঠনে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এ লক্ষ্যে আমরা পুলিশকে আধুনিক প্রযুক্তিতে দক্ষ করাসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রদান করে যাচ্ছি। বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি, সারদার সার্বিক উন্নয়নে ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ করেছি। প্রশিক্ষণের গুণগতমান বজায় রাখতে এ একাডেমিতে প্রশিক্ষণার্থীদের জন্য শ্রেণিকক্ষ, মাঠ এবং আবাসনের পর্যাপ্ত ব্যবস্থাসহ অবকাঠামোগত আরও উন্নয়ন প্রয়োজন। তাই সাংগঠনিক কাঠামো সংস্কার, জনবল বৃদ্ধি প্রয়োজনীয় যানবাহন, সরঞ্জামাদি এবং লজিস্টিক সরবরাহ অব্যাহত রেখেছি। যথাযথ প্রশিক্ষণ নিশ্চিতকল্পে প্রস্ত্মাবিত একাডেমি সংলগ্ন পদ্মা নদী তীরবর্তী ১০০ একর খাস জমি বরাদ্দের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে। একাডেমির আধুনিক শ্রেণিকক্ষ, কম্পিউটার ল্যাব, ল্যাংগুয়েজ ল্যাব, ফরেনসিক ডেমোনেস্টেশন ল্যাব, ড্রাইভিং ও শুটিং সিমিউলেটর যুগোপযোগী প্রশিক্ষণ প্রদানে সহায়ক ভূমিকা রাখছে। পুলিশের সব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উন্নয়ন করা সরকারের সক্রিয় বিবেচনাধীন রয়েছে।
শিক্ষানবিস সহকারী পুলিশ সুপারদের সমাপনী কুচকাওয়াজে উপস্থিত ছিলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পুলিশের মহাপরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারী। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমাম, পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য ও রাজশাহীর সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রম্নজ্জামান লিটনসহ সংসদ সদস্য ও পুলিশের কর্মকর্তারা।
 
পূর্ববর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close