তিন সেতুর কারণে ৩ দিন ধরে ভয়াবহ যানজটঢাকা-চট্টগ্রাম ফোরলেনে ভোগান্ত্মি চরমেকুমিলস্না প্রতিনিধি ঢাকা-চট্টগ্রাম রম্নটে যানজটে এভাবেই আটকা আছে শত শত গাড়ি -যাযাদিকুমিলস্নার দাউদকান্দি গোমতী সেতু, মুন্সীগঞ্জে মেঘনা ও নারায়নগঞ্জে কাঁচপুর সেতুর কারণেই ওই এলাকায় ভয়াবহ যানজট দেখা দিয়েছে। গত রোববার রাত থেকে শুরম্ন হওয়া যানজট তৃতীয় দিনের মতো বুধবারও স্থায়ী ছিল। এতে স্থবির হয়ে পড়েছে দেশের অর্থনীতির লাইফলাইন খ্যাত এ ফোরলেন সড়ক। আটকে পড়েছে শত শত যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন। কুমিলস্না থেকে ঢাকার ২ ঘণ্টার যাতায়াতে সময় যাচ্ছে ৯-১০ ঘণ্টা। তবে হাইওয়ে ও থানা পুলিশের দাবি ঢাকা নগরীতে দিনের বেলায় পণ্যবাহী যানবাহন প্রবেশ নিয়ন্ণ করায় রাতের বেলায় পণ্যবাহী যানবাহনের জটলা বেড়ে গিয়ে শুরম্ন হওয়া যানজট দিনের বেলায়ও বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ ছাড়াও মেঘনা ও গোমতী সেতুতে টোল আদায়ে ধীরগতির কারণে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।
জানা যায়, অতিমাত্রায় যানবাহনের চাপে গোমতী, মেঘনা ও কাঁচপুর সেতু কেন্দ্রিক যানজট ক্রমেই বাড়ছে। মঙ্গলবার রাতে ঢাকা থেকে কুমিলস্নায় পৌঁছাতে সময় লেগেছে ৯-১০ ঘণ্টা। হাইওয়ে ও থানা পুলিশসহ সংশিস্নষ্টরা চেষ্টা করেও যানজটের দুর্ভোগ নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারেনি। গত তিন দিন ধরে মহাসড়কের কাঁচপুর থেকে কুমিলস্নার মাধাইয়া পর্যন্ত্ম প্রায় ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত্ম এলাকাজুড়ে ভয়াবহ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আর এতে হুমকির মুখে পড়েছে অর্থনীতি। যানজটের কবলে পড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যাত্রী ও পণ্যবাহী পরিবহন মহাসড়কে আটকে আছে। চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার যাত্রী। ঢাকা থেকে কুমিলস্নাগামী এশিয়াকনের চালক আবদুল খালেক জানান, এই মহাসড়কে প্রায় ১৯ বছর ধরে বাস চালাচ্ছি, কিন্তু টানা তিন দিনের মতো এমন দীর্ঘ যানজট আর দেখিনি। তিনি বলেন, গত রাত সাড়ে ৮টায় ঢাকার কমলাপুর থেকে রওয়ানা করে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে কুমিলস্নায় পৌঁছেছি। ব্যক্তিগত জিপ নিয়ে কুমিলস্নাগামী আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিস্টার সোহরাব খান চৌধুরী মোবাইল ফোনে জানান, বুধবার ভোর ৫টায় ঢাকার বাসা থেকে রওয়ানা দিয়ে মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার পেরিয়ে যানজটে আটকা পড়ি, তিন ঘণ্টায় কাঁচপুর ব্রিজের নিকট এসেও এক ঘণ্টা বসে থেকে গাড়ি ঘুরিয়ে সুলতানা কামাল ব্রিজ পাড় হয়ে রূপগঞ্জ দিয়ে কাঁচপুর চৌরাস্ত্মায় পৌঁছার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়ে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাসায় ফিরে যাই। কুমিলস্না-ঢাকা রম্নটে চলাচলকারী যাত্রীবাহী পরিবহন এশিয়া এয়ারকনের ম্যানেজার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এই যানজটের কারণে একটি গাড়ি ঢাকায় পৌঁছতে ৯-১০ ঘণ্টা সময় লাগছে। এতে যাত্রীদের ভোগান্ত্মি যেমন বাড়ছে ঠিক তেমনি পরিবহন মালিকও ক্ষতিগ্রস্ত্ম হচ্ছেন।
হাইওয়ে পুলিশের দাউদকান্দি থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, রমজানকে কেন্দ্র করে পণ্যবাহী অতিরিক্ত যানবাহন বেড়ে যাওয়ায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। আমরা মহাসড়কের যানজট নিরসনের লক্ষ্যে সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছি। সহসাই মহাসড়ক যানজট স্বাভাবিক হয়ে আসবে বলে আশা করছি। কুমিলস্না পুলিশ সুপার মো. শাহ আবিদ হোসেন বিপিএম বলেন, কুমিলস্না থেকে ঢাকা যাওয়ার পথে কাঁচপুর, মেঘনা ও দাউদকান্দিসহ ৩টি সেতুতে গাড়ি ধীরগতিতে চলে। সামনের দিকে যদি গাড়ি না যায় তাহলে তো যানজট নিরসন সম্ভব নয়। ঢাকায় গাড়ি প্রবেশে ধীরগতির কারণে এবং রমজানকে সামনে রেখে মাত্রাতিরিক্ত যানবাহনের চাপে এ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। যানজট নিরসনে জেলা ও হাইওয়ে পুলিশ নিরলসভাবে সার্বক্ষণিক কাজ করছে।
হাইওয়ে পুলিশের কুমিলস্না অঞ্চলের পুলিশ সুপার নজরম্নল ইসলাম জানান, ঢাকার দিকে যানবাহনের গতি অনেক কম। এ ছাড়া দিনের বেলায় পণ্যবাহী গাড়িগুলো ঢাকায় প্রবেশে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। তাই মহাসড়কের ফোরলেনে চলাচলকারী সব যানবাহন ওই তিনটি ব্রিজের কাছে গিয়ে থেমে যায়। এতে যানজট কমছে না।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
স্বদেশ -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close