নতুন সাফল্যের খোঁজে ক্রোয়েশিয়াক্রীড়া ডেস্ক মনে পড়ে ১৯৯৮ বিশ্বকাপের কথা? ফ্রান্সের মাটিতে কি চমকটাই না দেখিয়েছিল ডেভর সুকারের ক্রোয়েশিয়া। জার্মানির মতো দলকে হারিয়ে সেমিফাইনালে খেলা, হল্যান্ডকে হারিয়ে তৃতীয় স্থান অর্জন; ক্রোয়েশিয়ার ফুটবলে এখনো সবথেকে বড় প্রাপ্তি হয়ে আছে। এরপর অবশ্য ফুটবলের বড় মঞ্চে নিজেদের সামর্থ্য প্রমাণে ব্যর্থ ইউরোপের দেশটি। তবে আরেকটি সোনালি প্রজন্মের হাত ধরে রাশিয়া বিশ্বকাপে এবার নতুন সাফল্যগাথা রচনা করতে চায় ক্রোয়েশিয়া।
ফ্রান্সে ইতিহাস গড়ার পর ২০০২ সালে কোরিয়া-জাপান বিশ্বকাপে মুখ থুবড়ে পড়ে ক্রোয়েশিয়া, বিদায় নেয় গ্রম্নপপর্ব থেকেই। এরপর ২০০৬ সালে জার্মানি বিশ্বকাপ আর ২০১৪ সালে ব্রাজিল বিশ্বকাপেও একই ভাগ্য বরণ করতে হয় ক্রোয়াটদের। দলটির জন্য আরও বড় হতাশার ছিল ২০১০ সালের দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপ। ওই আসরে খেলার যোগ্যতাই অর্জন করতে পারেনি তারা, বাছাই পর্বেই থেমেছিল তাদের দৌড়। তখনও দলে যোগ্যতাসম্পন্ন খেলোয়াড় ছিলেন। ক্রোয়েশিয়ার বর্তমান কোচ জলাতকো দালিচ তাই বলছেন, 'আমাকে ভালো-মন্দ দুটোই বলতে হবে। ১৯৯৮ সালে ফ্রান্স বিশ্বকাপের পর ক্রোয়েশিয়া আর ভালো করতে পারেনি। তবে দলগুলো যেমন মানের ছিল, তাদের উচিত ছিল ভালো করা।'
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close