জামালপুরে রসালো লিচুশুভ্র মেহেদী জামালপুর গাছে ঝুলছে পাকা লিচু -যাযাদিজামালপুর সদরের পূর্বাঞ্চলের ৬টি গ্রাম লাল রসালো লিচুতে ভরে উঠেছে। প্রচ- খরার কারণে ফলন কিছুটা কম হলেও এবার বাজারে ভালো দাম পাওয়ায় জামালপুরের লিচু চাষিরা খুশি ।
জামালপুর সদরের শ্রীরামপুর, রঘুনাথপুর, রাঙ্গামাটিয়া, জয়রামপুর, শরীফপুর, নান্দিনাসহ আশপাশের যেকোন গ্রামে ঢুকলেই চোখে পড়বে বাড়ির উঠোন ও ছোট ছোট বাগান লাল টসটসে রসালো লিচুতে ভরে উঠেছে। ইতোমধ্যে বাজারে লিচু উঠতে শুরু করেছে। কয়েক সপ্তাহে লিচু বাজারে ভালো দামে বিক্রি হওয়ায় লিচু গ্রামের চাষিদের মাঝে এখন উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। লিচু বাগানের শ্রমিকরাও ব্যস্ত সময় পার করছে। ভোর বেলা গাছ থেকে লিচু পেড়ে ভালো লিচু বাছাই করা, গুনে গুনে লিচুর অাঁটি বাঁধা, বাজারজাত করার জন্য খাঁচা বোঝাই করার মধ্যদিয়ে লিচু শ্রমিকরা দিন পাড় করছে। প্রতি বছরের মতো এবারো স্থানীয় বাজার ছাড়াও আশপাশেরে জেলাগুলোয় লিচু যাচ্ছে। গত বছর এখানে প্রতি হাজার দেশি জাতের লিচু ২ হাজার টাকা এবং চায়না জাতের লিচু ৪ হাজার টাকায় পাইকারি বিক্রি হয়েছিল। এ বছর পাইকারি বাজারে প্রতি হাজার দেশি জাতের লিচু ২ হাজার ৮শ' থেকে ৩ হাজার এবং চায়না জাতের লিচু ৫ হাজার থেকে সাড়ে ৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
জয়রামপুর এলাকার লিচুচাষি আব্দুল মোতালেব জানান, তার বাগানে একশ' লিচুর গাছ রয়েছে। বাগানে ফুল ভালোই এসেছিল। কিন্তু আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় ফলন কিছুটা কম হয়েছে। তবে বাজার দর ভালো থাকায় খরচ পুষিয়ে ভালোই লাভ হবে। লিচুচাষি আজগর আলী জানান, লিচুর ফলন কম হলেও বাজারে দাম বেশি থাকায় খরচ পুষিয়েও বেশ ভালোই লাভ থাকবে।
জামালপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আবুল কাশেম জানান, এ বছর বিরূপ আবহাওয়ার কারণে লিচুর ফলন কিছুটা ব্যাঘাত ঘটলেও কৃষি অফিসের নিয়মিত তদরাকির কারণে ফলন ভালো হয়েছে। আগামীতে লিচুর ফলন বৃদ্ধির জন্য তদারকি আরো জোরদার করা হবে। আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় ফলন কিছুটা কম হলেও বাজারে লিচুর দাম ভালো হওয়ায় চাষিরা খুশি।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
স্বদেশ -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close