পূর্ববর্তী সংবাদ
আখাউড়া-আগরতলা রেলপথজমি অধিগ্রহণ জটিলতায় পিছিয়েছে নির্মাণকাজআখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) সংবাদদাতা ভারতে জমি অধিগ্রহণ জটিলতায় পিছিয়ে গেছে আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ নির্মাণকাজ। তবে প্রকল্প বাস্তবায়ন নিয়ে কোনো সংশয় নেই।
ভারতীয় অংশে রেলপথের বেশিরভাগ হবে উড়াল সেতু। কম জমি অধিগ্রহণের প্রশ্নে, জাতীয় সড়কে যান চলাচল অক্ষুণ্ন রাখতে এবং বাড়িঘরের ক্ষতি কমাতে এ পদ্ধতিতে রেলপথ করা হবে। রেলপথ নির্মাণে ব্যবহার করা হবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি। জমি অধিগ্রহণের জন্য ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার অতিরিক্ত অর্থ দিতে রাজি না হওয়ায় নির্মাণকাজ শুরু করতে বিলম্ব হচ্ছে। এ প্রকল্প শুরু হওয়ার কথা ছিল ২০১৬ সালে। শেষ হওয়ার কথা ২০১৮ সালের মার্চে। বর্তমানে ২০১৭ সাল শেষদিকে কাজ শুরু হতে পারে। এ ক্ষেত্রে কাজ শেষ হতে পারে ২০২০ সালের মাঝামাঝি।
এ রেলপথের জন্য ভারতীয় অংশে ছেষট্টি একর জমির প্রয়োজন। ক্ষতিগ্রস্ত হবে ৩৭টি বাড়ি। জমি অধিগ্রহণের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার মোট ৯৭ কোটি টাকার মঞ্জুরী দেয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত রাজ্য সরকার জমি অধিগ্রহণ শুরু করতে পারেনি।
নিয়ম অনুযায়ী রেল অথবা অন্য কোনো প্রকল্পের জন্য জমি অধিগ্রহণ করে রাজ্য সরকারের তরফে জেলা প্রশাসন। জমি অধিগ্রহণ শেষে নির্দিষ্ট নির্মাণ সংস্থার হাতে তুলে দেয়। এখন পর্যন্ত অধিগ্রহণের জন্য জমিদাতাদের প্রতি প্রাথমিক বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে ছয় মাস সময় লাগে। ফলে জুলাই মাসের আগে জমি হস্তান্তরের সম্ভাবনা নেই। সে ক্ষেত্রে নিশ্চিতভাবে রেলপথের নির্মাণ শুরু করতে দেরি হবে।
আখাউড়া-আগরতলা রেলপথের দৈর্ঘ্য প্রায় ১৫ কিলোমিটার। এরমধ্যে ত্রিপুরা তথা ভারতীয় অংশে পাঁচ কিলোমিটার রেলপথ হবে। বাকিটা হবে বাংলাদেশে। এ রেলপথে মোট স্টেশন হবে চারটি। এর মধ্যে ভারতীয় অংশে দুটি। একটি আগরতলা, অন্যটি ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের নিশ্চিন্তপুরে। বাংলাদেশের দুটি স্টেশনের একটি গঙ্গাসাগর। অন্যটি আখাউড়া। এ রেলপথ নির্মাণের দায়িত্বে রয়েছে ইরকন নামে ভারতীয় একটি নির্মাণ সংস্থা।
প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৫শ কোটি টাকা। ভারত-বাংলাদেশ উভয় অংশের রেলপথ নির্মাণের খরচই বহন করবে ভারত সরকার।
উল্লেখ্য, গত বছরের ৩১ জুলাই ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলা রেল স্টেশনে আখাউড়া-আগরতলা রেল প্রকল্পের ভারতীয় অংশের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন-বাংলাদেশের রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক ও ভারতের রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভাকর প্রভু।
 
পূর্ববর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
monobhubon
স্বদেশ -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin