পূর্ববর্তী সংবাদ
বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড সিরিজকঠিন হবে, তবে অসম্ভব নয়: মুশফিকদল হিসেবে (ভালো) করতে হবে। স্বরূপটা দেখাতে হবে। সেশন বাই সেশন করতে হবে। কঠিন হবে, তবে অসম্ভব নয়।ক্রীড়া প্রতিবেদক কেন উইলিয়ামসনের কণ্ঠে সমীহের সুর, টেস্টে তাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ জানাবে বাংলাদেশ। কেবল বলার জন্যই কথাটা বলেননি নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক। ওয়ানডে আর টি২০ সিরিজে তার দল বড় ব্যবধানে জিতেছে ঠিকই, তবে প্রতিটি ম্যাচেই কিউইদের ভরকে দিয়ে টাইগাররা জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়েছে। সেই দলটি টেস্টেও তেমন কিছু করে দেখাবে না, হলফ করে কে বলতে পারে? টাইগার দলপতি মুশফিকুর রহিমই যেমন বলছেন, কোনো কিছুই অসম্ভব নয়!
নিজেদের খেলা সবশেষ টেস্টে ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। সেই জয়ের সুখস্মৃতিকে পুঁজি করে আজ ভোরে ওয়েলিংটনের বেসিন রিজার্ভে সিরিজের প্রথম টেস্টে মাঠে নেমে পড়েছে টাইগাররা। আত্মবিশ্বাসী দলটিতে কিউইদের চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো রসদ মজুদ আছে, উইলিয়ামসন তাই অতিথিদের নিয়ে সতর্ক, 'বাংলাদেশ সাদা বলে আমাদের প্রতি ম্যাচেই চাপে ফেলেছিল। তবে সেখান থেকে আমরা সব ম্যাচে জিততে পেরেছি। ওরা অভিজ্ঞ একটি দল, বিশ্বের সব প্রান্তেই খেলেছে। আমরা জানি, ওরা আমাদের কঠিন চ্যালেঞ্জ জানাবে।'
সাদা পোশাক আর লাল বলের ক্রিকেটের অতীত অবশ্য তেমনটা বলছে না। এই ওয়েলিংটনেই দুই টেস্ট খেলে প্রতিটিতেই ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। নূ্যনতম লড়াইও গড়তে পারেনি। বেসিন রিজার্ভের সবুজ উইকেটে এবারও তেমনটাই ঘটবে, এমনটা আগেই বলা যাবে না। টাইগাররা লড়াই জমিয়ে তুলবে, হারিয়ে দেবে কিউইদের; সেটাও বলা যাবে না জোর দিয়ে। তবে অসম্ভব কিছু তো নয়? মুশফিক মনে করিয়ে দিয়েছেন সেটাই, 'দল হিসেবে (ভালো) করতে হবে। স্বরূপটা দেখাতে হবে। সেশন বাই সেশন করতে হবে। কঠিন হবে, তবে অসম্ভব নয়।'
মিরপুরের টার্নিং উইকেটে তিন স্পিনার নিয়ে ইংল্যান্ডকে গুঁড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। ওই ধরনের উইকেটে খেলেই অভ্যস্ত তারা। নিউজিল্যান্ডের উইকেটের চরিত্র একেবারে বিপরীত। তারওপর দেশের বাইরে দুই বছরেরও বেশি সময় পর টেস্ট খেলছে টাইগাররা। মুশফিক তাই পা রাখছেন বাস্তবতাটার জমিনেই, 'ইংল্যান্ডের সঙ্গে জিতেছি মানে এই নয় যে আমরা খুব ভালো টেস্ট দল হয়ে গেছি। দেশে আমরা যে রকম কন্ডিশন-উইকেট পাই, বাইরের দলের জন্য কঠিন হয়। এখন আমরা বাইরে খেলছি। লক্ষ্য একটাই, দেশের মাটিতে যে ধারাবাহিকতা, বাইরে যেন সেটা অন্তত শুরু করতে পারি। লক্ষ্য থাকবে, টেস্টে যেন আমরা লম্বা সময় খেলায় থাকতে পারি এবং লড়াই করতে পারি।'
ঘরের মাঠে ইংল্যান্ড বধের নায়ক ছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তরুণ এই অফস্পিনারের থেকে বেসিন রিজার্ভের সবুজাভ উইকেটে খুব ভালো কিছুর প্রত্যাশা না করাই ভালো। মুশফিকের অন্তত এমনই মত, 'মুস্তাফিজের ক্ষেত্রে যেটা হয়েছে, দারুণ অভিষেকের পর কোনো ম্যাচে ২-৩ উইকেট পেলেও অনেকে মনে করে খুব বাজে বোলিং করেছে। আমি এটিই অনুরোধ করব, বেশি প্রত্যাশা যেন না করা হয় মিরাজের কাছে। জাতীয় দলের হয়ে ওর এটা জীবনের প্রথমবার বাইরে আসা।'
মিরাজের জন্য কিছুটা স্বস্তির খবরও আছে, এই মাঠে ভালোই সাফল্য আছে অফস্পিনারদের। বাউন্সি উইকেট হওয়ায় মিরাজের সোজা ডেলিভারিগুলো কঠিন পরীক্ষায় ফেলতে পারে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের। মুশফিকের বিশ্বাস, খেলার সুযোগ পেলে দ্রুত মানিয়ে নেবেন তরুণ অফস্পিনার, 'মিরাজ খুব স্মার্ট অপারেটর। এজন্যই এত দ্রুত টেস্ট ক্রিকেট খেলছে। বাংলাদেশের উইকেটে স্পিনাররা আক্রমণাত্মক ভূমিকায় থাকে, এখানে তা হবে অন্যরকম। ও যদি খেলে, এই জায়গাটায় মানিয়ে নিতে হবে। শুধু বোলিং না, ব্যাটিংয়েও ওর কাছ থেকে ভালো কিছু পেতে চাইব।'
তবে বোলারদের ভালো করা অনেকাংশেই নির্ভর করে ফিল্ডারদের ওপর। একটা ভালো ক্যাচ যেমন উইকেট এনে দেয়, তেমনি বাড়তি আত্মবিশ্বাসও জোগায়। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে ফিল্ডিংটা বেশ ভুগাচ্ছে বাংলাদেশকে। এতে অনেক সুযোগই বেরিয়ে গেছে হাত ফসকে, কিউইদের বিপক্ষে টেস্টে তেমনটা চান না মুশফিক, 'অবশ্যই ফিল্ডিং অনেক গুরুত্বপূর্ণ। অবশ্যই আমরা চাইব না টম লাথাম, রস টেলর বা কেন উইলিয়ামসনকে সুযোগ দিতে। সব কটা সুযোগ লুফে নেয়ার ব্যাপারটি আমাদের নিশ্চিত করতে হবে।'
সৃষ্ট সুযোগগুলো ফিল্ডাররা কাজে লাগাতে পারলে টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশের ভালো করার সম্ভাবনার ক্ষেত্রও সৃষ্টি হবে।
 
পূর্ববর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin