পূর্ববর্তী সংবাদ
সুপ্রিম কোর্টে ট্রাম্পের শরণার্থী নিষেধাজ্ঞা বহালযাযাদি ডেস্ক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসারা বিশ্ব থেকে যুক্তরাষ্ট্রে শরণার্থী প্রবেশের ওপর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা বিস্তারিতভাবে কার্যকর করার অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট। ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার অধীনে অধিকাংশ শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে বাধা দেয়া অব্যাহত রাখার অনুমোদন চেয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের করা আবেদন মঙ্গলবার মঞ্জুর করেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা। সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশের বলে জুনের শেষ দিক থেকে আদেশটি কার্যকর হওয়া শুরু হয়। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল আপিল কোর্টের সিদ্ধান্ত স্থগিত চেয়ে আবেদনটি করা হয়েছিল। সংবাদসূত্র : রয়টার্স, বিবিসি
যুক্তরাষ্ট্রের আইন মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুসারে, ফেডারেল আপিল কোর্টের ওই সিদ্ধান্তের ফলে ২৪ হাজার অতিরিক্ত শরণার্থী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অনুমতি পেত। তবে সুপ্রিম কোর্টের এ রায়ে ভ্রমণার্থী ও শরণার্থীদের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে আংশিক জয় পেলেন ট্রাম্প।
ট্রাম্পের বিতর্কিত এই নির্বাহী আদেশটিতে ছয়টি মুসলমান-প্রধান দেশের ভ্রমণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ এবং সারা বিশ্ব থেকে শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ সীমিত করা হয়। তবে তার এ নির্বাহী আদেশটি যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানসম্মত কিনা, তা নিয়ে আগামী অক্টোবরে একটি শুনানি করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের হাইকোর্ট।
চলতি বছরের ৬ মার্চে জারি করা ওই আদেশে ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান, সিরিয়া ও ইয়েমেনের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর ৯০ দিনের এবং অধিকাংশ শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর ১২০ দিনের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এই সিদ্ধান্ত সন্ত্রাসী হামলা প্রতিরোধ ও সরকারকে কঠোর বাছাই প্রক্রিয়া চালু করতে সুযোগ করে দেবে বলে যুক্তি দেন ট্রাম্প।
হোয়াইট হাউসের নতুন যোগাযোগ পরিচালক
এদিকে, নির্বাচনী প্রচারে প্রেস সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করা হোপ হিকসকে হোয়াইট হাউসের যোগাযোগ পরিচালক পদে নিয়োগ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে অন্তর্বর্র্তী যোগাযোগ পরিচালক হিসেবে কাজ করে আসা ২৮ বছর বয়সী হিকস এখন স্থায়ীভাবে এই পদে কাজ করবেন।
ট্রাম্প প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার পর যোগাযোগ পরিচালক পদে চতুর্থ ব্যক্তি হিসেবে নিয়োগ পেলেন হিকস। জুলাইয়ে নিয়োগ পাওয়ার ১০ দিনের মাথায় বরখাস্ত হওয়া স্কারামুচির স্থলাভিষিক্ত হলেন তিনি।
২০১৫ সাল থেকে ট্রাম্পের সঙ্গে কাজ করা হিকস এর আগে প্রেসিডেন্টের স্ট্র্যাটেজিক কমিউনিকেশন্স ডিরেক্টরেরও দায়িত্ব পালন করেছেন। এক সময় ট্রাম্পের প্রতিষ্ঠানে কাজ করা হিকস মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিশ্বস্ত ব্যক্তিদের অন্যতম।
হোয়াইট হাউসের যোগাযোগ পরিচালক হিসেবে তিনি ট্রাম্প প্রশাসনের বিভিন্ন বার্তা ঠিক করার কাজ করবেন, যদিও প্রেস সেক্রেটারি সারাহ হাকেবি স্যান্ডার্সের মতো তাকে ঘন ঘন দেখা যাবে না।
এর আগে হোয়াইট হাউসের যোগাযোগ পরিচালকের দায়িত্ব পালন করা অ্যান্থনি স্কারামুচিকে তার সহকর্মীদের বিষয়ে এক প্রতিবেদকের কাছে 'উল্টোপাল্টা' মন্তব্য করার কারণে চাকরি হারাতে হয়।
 
পূর্ববর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close