পূর্ববর্তী সংবাদ
অভিযোগ অস্বীকারপরমাণু অস্ত্র ১০ গুণ বাড়ানোর কথা বলেছিলেন ট্রাম্প!যাযাদি ডেস্ক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পযুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নাটকীয়ভাবেই তার দেশের পরমাণু অস্ত্রের সংখ্যা ২০ গুণ বাড়াতে বলেছিলেন। গত জুলাইয়ে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ সংক্রান্ত্ম আলোচনাও করেছিলেন। বুধবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম 'এনবিসি নিউজ' এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায়। তবে পরমাণু অস্ত্রের পরিমাণ বাড়াতে
চান বলে প্রকাশিত এই খবর
অস্বীকার করেছেন ট্রাম্প। সংবাদসূত্র : রয়টার্স, বিবিসি
পরমাণু অস্ত্রের বিষয়ে ট্রাম্পের এই নির্দেশনার খবর এমন সময় প্রকাশ হলো, যখন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার এই একই ইসু্যতে উত্তেজনা চলছে। একই সময় ইরানের পরমাণু অস্ত্র চুক্তি বাতিল নিয়েও রীতিমতো উত্তেজনা চলছে।
এনবিসি নিউজের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, জুলাই মাসে ট্রাম্প জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের বলেছিলেন, তিনি চান দেশের পারমাণবিক অস্ত্র দশগুণ বাড়ানো হোক। ১৯৬০-এর দশকে যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু অস্ত্র সর্বোচ্চ ৩২ হাজারে পৌঁছেছিল এবং তা এখন হ্রাস পেয়ে কয়েক হাজারে নেমে এসেছে, এমন একটি পরিসংখ্যান যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টকে দেখানোর পর তিনি তা বাড়িয়ে ওই পর্যায়ে নিয়ে যেতে চান বলে জানিয়েছিলেন। ওই সময় ট্রাম্প তার নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের বলেছিলেন, তিনি সেই ৬০-এর দশকের মতো পরমাণু অস্ত্রের সংখ্যা চান।
তবে প্রতিবেদনে প্রকাশিত প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে বুধবার ট্রাম্প জানান, তিনি পরমাণু অস্ত্র বাড়ানোর কথা বলেননি, বরং সেগুলোর আধুনিকায়নের কথা বলেছিলেন। সফররত কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সঙ্গে এক বৈঠকের পর হোয়াইট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প জানান, ওই প্রতিবেদনটি সত্যি নয়। তিনি বলেন, 'আমি কখনই এটি বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনা করিনি। বরং এগুলোর আকৃতি নিখুঁত হোক, সেটাই চেয়েছিলাম আমি। এটি এনবিসির একটি ভুয়া সংবাদ মাত্র।' ট্রাম্প বলেন, পরমাণু অস্ত্র বাড়ানোর দরকার নেই আমাদের। কিন্তু আমি আধুনিকায়ন চেয়েছি এবং পুরোপুরি কার্যক্ষম অবস্থায় চাই। এগুলোর আকার টিপ-টপ হতে হবে।' এদিকে, এই প্রতিবেদন প্রকাশের জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এনবিসিকে হুমকি দিয়েছেন। তিনি এই সংবাদমাধ্যমটির লাইসেন্স চ্যালেঞ্জ করার কথাও জানিয়েছেন। এক টুইটে তিনি বলেন, সব ভুয়া সংবাদ এনবিসি এবং তাদের নেটওয়ার্ক থেকে আসছে। সঠিক কাজটি হবে তাদের মিডিয়া লাইসেন্স চ্যালেঞ্জ করা! দেশের জন্য খারাপ! এনবিসিকে তিনি এ সময় 'সিএনএন'র সঙ্গেও তুলনা করেন।
প্রসঙ্গত, 'ফেডারেশন অব আমেরিকান সায়েন্টিস্টস'র দেয়া তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে চার হাজার পারমাণবিক ওয়্যারহেড রয়েছে, যেগুলো ক্ষেপণাস্ত্র সংযুক্ত করা যাবে। গত ফেব্রম্নয়ারিতে 'রয়টার্স'কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেছিলেন, তিনি চান যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক অস্ত্রের সংখ্যা যেন শীর্ষে থাকে।
এদিকে, এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিসও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বক্তব্য সমর্থন করেছেন। ম্যাটিস বলেন, 'প্রেসিডেন্ট যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক অস্ত্র বাড়ানোর কথা বলেছেন, প্রকাশিত এই প্রতিবেদন সম্পূর্ণ মিথ্যা।'
 
পূর্ববর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close