পূর্ববর্তী সংবাদ
অবশেষে ডিসেম্বরে উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসববিনোদন রিপোর্ট বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের দৃশ্য - ফাইল ছবিঅবশেষে বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের ষষ্ঠ আসর বসতে যাচ্ছে। আগামী ডিসেম্বরের শেষে নগরীর ধানম-ির আবাহনী মাঠে শুরম্ন হবে পাঁচদিনব্যাপী এ উৎসব।
বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের লিটু জানান, এ বছর বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবে উপমহাদেশের যেসব শিল্পীর আসার কথা ছিল, তাদের '৮০ শতাংশ' এই আয়োজনে যোগ দেবেন।
উৎসবটি চলবে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত্ম।
এর আগে একটি জাতীয় দৈনিকে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন লোকসংগীত উৎসব আয়োজনের জন্য মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়াম বরাদ্দ পাচ্ছে বলে খবর আসে।
লোকসংগীত উৎসব আয়োজনের ওই খবরটিকে 'ভুয়া' হিসেবে আখ্যা দিয়ে আবুল খায়ের লিটু বলেন, 'বেঙ্গল কখনো ফোক ফেস্টের আয়োজন করেছে! কারা এ খবর দেয়।'
'আমরা ক্ল্যাসিক্যাল ফেস্টিভাল আয়োজনের জন্য মিরপুরের ইনডোর স্টেডিয়ামটি বরাদ্দ চেয়েছিলাম। আমাদের আবেদনে অর্থমন্ত্রীরও সায় ছিল। কিন্তু... এই আয়োজনটি করতে গেলে পরে টার্ফ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। পরে আয়োজনটি আমরা ধানম-ির আবাহনী মাঠে আয়োজন করার সিদ্ধান্ত্ম নেই। এ বিষয়ে আমাদের অনুমতি নেয়াও হয়ে গেছে।'
আবুল খায়ের জানিয়েছেন, আগামী সাতদিনের মধ্যেই একটি সংবাদ সম্মেলন ডেকে আয়োজনের বিস্ত্মারিত তুলে ধরবে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন।
এর আগে এ বছরই ২৩ নভেম্বর থেকে বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের ষষ্ঠ আসরটি বনানীর আর্মি স্টেডিয়ামে আয়োজনের কথা ছিল। কিন্তু সেনা ক্রীড়া সংস্থার অনুমতি না মেলায় সেই আয়োজনটি এ বছর করা হবে না বলে জানিয়েছিলেন আবুল খায়ের লিটু।
এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছিলেন,', 'বিদেশি শিল্পীদের কাছে আর্মি স্টেডিয়াম নিরাপদ স্থান হিসেবে বিবেচিত। চূড়ান্ত্ম পর্যায়ে এসে বিকল্প ভেনু্য বিবেচনার কোনো অবকাশ নেই।'
পরে স্থান নিয়ে জটিলতা তৈরি হওয়ায় কাজ এগিয়ে রাখার স্বার্থে বিকল্প স্থান চিহ্নিত করে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কাছে বিদেশি শিল্পীদের অংশগ্রহণের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন তারা।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে নির্ধারিত করও জমা দেয়া হয়। কিন্তু সেই বিকল্প স্থানেও সারা রাত অনুষ্ঠান করার অনুমতি মেলেনি বলে জানান আবুল খায়ের।
এ প্রসঙ্গে বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের সংগীত বিভাগের সিনিয়র ম্যানেজার জাহিদুল হক বলেন, 'হঁ্যা, অবশেষে উৎসবটি হতে যাচ্ছে। ডিসেম্বর মাসের শেষের দিকে শুরম্ন হবে। আবাহনী মাঠে এবারের আসরটি বসার প্রাথমিক কথাবার্তা হয়েছে, তবে এখনো চূড়ান্ত্ম হয়নি। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে খুব শিগগির এ বিষয়ে বিস্ত্মারিত জানানো হবে।'
২৩ নভেম্বর বনানীর আর্মি স্টেডিয়ামে উৎসবটি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেনা ক্রীড়া সংস্থার অনুমতি না মেলায় উৎসবটি এ বছর হবে না বলে জানিয়েছিলেন আবুল খায়ের লিটু। কিন্তু সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অনুষ্ঠিত হচ্ছে উৎসবটি। উপমহাদেশের যেসব শিল্পীকে উৎসবে যোগ দেয়ার কথা ছিল তাদের অধিকাংশ শিল্পীরা যোগ দেবেন বলেও জানা গেছে।
২০১২ সালে বাংলাদেশে প্রথম বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের আয়োজন করা হয়। শুরম্ন থেকেই বনানীর আর্মি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছিল উৎসবটি। এবারই তার ব্যতিক্রম ঘটতে যাচ্ছে।
 
পূর্ববর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close