পূর্ববর্তী সংবাদ
দক্ষিণ আফ্রিকাপদত্যাগে জুমাকে 'আল্টিমেটাম'না সরলে পার্লামেন্টে আস্থা ভোটের মুখোমুখি হতে হবেযাযাদি ডেস্ক দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমাপ্রেসিডেন্ট পদ ছেড়ে দিতে জ্যাকব জুমাকে ৪৮ ঘণ্টা সময় (আল্টিমেটাম) বেঁধে দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্ষমতাসীন দল 'আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেস' (এএনসি)। শীর্ষনেতাদের নিয়ে আট ঘণ্টার ম্যারাথন বৈঠকের পর মঙ্গলবার দলের নেতা সিরিল রামপোসা প্রেসিডেন্ট জুমাকে এই বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন বলে মঙ্গলবার দেশটির সরকারি সম্প্রচার মাধ্যম 'এসএবিসি' জানিয়েছে। এরপরও না সরলে ৭৫ বছর বয়সী জুমাকে পার্লামেন্টে আস্থা ভোটের মুখোমুখি হতে হবে, ভোটে তিনি সহজেই পরাজিত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে আগামী ২২ ফেব্রম্নয়ারি ওই ভোট গ্রহণের তারিখ নির্ধারিত হয়েছে। সংবাদসূত্র : বিবিসি
২০০৯ সালে ক্ষমতায় বসার পর থেকে দুর্নীতির অভিযোগ আসতে থাকে জুমার বিরম্নদ্ধে। তবে তিনি বরাবরই এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন। ব্যক্তিগত বাড়ি নির্মাণে সরকারি কোষাগার থেকে ব্যয় হওয়া অর্থ ফেরত দিতে ব্যর্থতার দায়ে ২০১৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বোচ্চ আদালত জুমার বিরম্নদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ আনে। এর রেশ না কাটতেই গত বছর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ১৯৯৯ সালে স্বাক্ষরিত এক অস্ত্রচুক্তিতে দুর্নীতি, জালিয়াতি, কালোবাজারি ও মুদ্রা পাচারের ১৮ ধরনের অভিযোগে জুমার বিচার শুরম্নর নির্দেশ দেয়। শেষ পর্যন্ত্ম গত বছরের শেষদিকে এএনসির শীর্ষপদ থেকে সরে যেতে বাধ্য করা হয় জুমাকে। ওই সময় সিরিল রামপোসা দলের শীর্ষ নেতা নির্বাচিত হন। এরপর থেকেই ক্ষমতা থেকে সরে যেতে জুমার ওপর ধারাবাহিকভাবে চাপ বাড়তে থাকে।
ভারতীয় বংশোদ্ভূত ধনী ব্যবসায়ী গুপ্ত পরিবারের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগের কারণে জুমার জনপ্রিয়তাতেও ব্যাপক ধস নেমেছে। গুপ্ত পরিবারের বিরম্নদ্ধে সরকারের ভেতর প্রভাব বিস্ত্মারের অভিযোগ উঠেছে। জুমা এবং গুপ্ত পরিবার উভয়েই এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।
গত বছরের শেষদিকে এএনসির শীর্ষপদে সিরিল রামাপোসা নির্বাচিত হওয়ার পর ক্ষমতা থেকে সরে যেতে জুমার ওপর চাপ ধারাবাহিকভাবে বেড়েই চলছে। জুমা অবশ্য কয়েকবারই তার পদত্যাগের সম্ভাবনা নাকচ করেছিলেন। মঙ্গলবার সকালে এএনসির নির্বাহী কমিটির বৈঠক থেকে রামপোসা প্রেসিডেন্টের বাসভবনে যান এবং সেখানে তিনি জুমাকে পদত্যাগের জন্য ৪৮ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেয়ার দলীয় সিদ্ধান্ত্মের কথা জানান। এর আধা ঘণ্টার পরই রামপোসা এএনসির নির্বাহী বৈঠকস্থলে ফিরে আসেন।
দক্ষিণ আফ্রিকার গণমাধ্যমগুলো প্রেসিডেন্টের আসন্ন পদত্যাগকে 'জেক্সিট' হিসেবে ডাকা শুরম্ন করেছে। ২০০৮ সালে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট থাবো এমবেকি তার ডেপুটি জুমার সঙ্গে ক্ষমতার দ্বন্দ্বের জেরে পদত্যাগ করলে পরের বছরই জুমা দল ও রাষ্ট্রের হাল ধরেন।
 
পূর্ববর্তী সংবাদ
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close