জোর করে সরিয়ে দেয়া হলো নন-এমপিও শিক্ষকদেরযাযাদি রিপোর্ট নন-এমপিওভুক্ত শিক্ষক কর্মচারীরা বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি করতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দেয় এবং কয়েকজন শিক্ষককে আটক করে -যাযাদিএমপিওভুক্তির দাবিতে টানা চতুর্থ দিনের মতো প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীরা পুলিশি বাধায় সরে গেছেন। এখন তারা প্রেসক্লাবের উল্টো পাশের রাস্ত্মায় অবস্থান করছেন। প্রেসক্লাবের সামনে পুলিশের অবস্থান রয়েছে।
২৬ বারের এই অবস্থান কর্মসূচিতে কয়েকজন শিক্ষকের সঙ্গে পুলিশের ধাক্কাধাক্কি হয়। এ সময় অনেকের পোশাক ছিড়ে যায়। এ সময় ফরিদ উদ্দিন মনি, রম্নহুল আমিন নামে দুইজনকে আটক করলেও পরে ছেড়ে দেয় পুলিশ। এ ছাড়াও কয়েকজন আহত হয়েছেন।
অনেক শিক্ষক অভিযোগ করেছেন, তাদের সরিয়ে দিতে পুলিশ বন্দুকের সামনের অংশ দিয়ে আঘাত করে।
এদিকে দাবি আদায় না হলে রাজপথেই ঈদুল ফিতর পালনের হুমকি দিয়েছেন আন্দোলকারী শিক্ষক নেতারা। তারা বলছেন, শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে তাদের বিশ্বাস নেই। তিনি অনেকবারই এমন আশ্বাস দিয়েছেন। উনার ইচ্ছাও নেই এমপিও করার। একটা জনতুষ্টির জন্য উনি এমন আশ্বাস দেন। সময় হলে তা আবার ভুলে যান। এ কারণে শিক্ষামন্ত্রী বাড়ি ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানালে তারা তা প্রত্যাখ্যান করেন।
নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্ত্মবায়ন না হওয়ায় তারা আবারও রাজপথে নামতে বাধ্য হয়েছেন। ন্যায্য দাবি আদায়ে দেশের প্রত্যন্ত্ম অঞ্চল থেকে শিক্ষক-কর্মচারীরা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান নিলেও পুলিশ শান্ত্মিপূর্ণ কর্মসূচিতে বাধা সৃষ্টি করছে। সরকারের অনুমতি নিয়ে আসতে বলছে। পুলিশ আন্ত্মরিক নয় বলে কর্মসূচি পালনে বাধা দিচ্ছে। এ কারণে প্রেসক্লাবের মূল সড়কের বিপরীত পাশে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। সব বাধা উপেক্ষা করে আন্দোলন অব্যহত থাকবে।
ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভূষণ রায় বলেন, শিক্ষামন্ত্রী গত ১০ বছর ধরে বলে আসছেন বাজেটে বরাদ্দ থাকলে এমপিওভুক্ত করা হবে। অথচ মন্ত্রী নতুন করে মিথ্যাচার করছেন যে বাজেটে বরাদ্দ জরম্নরি বিষয় নয়। এমপিওভুক্তির সুনির্দিষ্ট বক্তব্য বা গেজেট প্রকাশের ঘোষণা না আসলে শিক্ষক-কর্মচারীরা রাজপথে পবিত্র ঈদুল ফিতর পালন করবেন।
উলেস্নখ্য, এমপিওভুক্তির দাবিতে নন এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে লাগাতার কর্মসূচি শুরম্ন করেন। নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের ডাকে টানা ওই অবস্থান ও অনশনের একপর্যায়ে গত ৫ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে তার তৎকালীন একান্ত্ম সচিব সাজ্জাদুল হাসান সেখানে গিয়ে আশ্বাস দিলে তারা ঘরে ফিরে যান। কিন্তু গত বৃহস্পতিবার ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের যে বাজেট প্রস্ত্মাব করা হয় সেখানে নতুন এমপিওভুক্তির বিষয়ে সুস্পষ্টভাবে কিছু বলা হয়নি বলে এই কর্মসূচি পালন করে আসছেন তারা।
 
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আপনার মতামত দিতে এখানে ক্লিক করুন
শেষের পাতা -এর আরো সংবাদ
অনলাইন জরিপ
অনলাইন জরিপআজকের প্রশ্নজঙ্গিবাদ নিয়ে মন্ত্রীদের প্রচারে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে_ বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপনের এই বক্তব্য সমর্থন করেন কি?হ্যাঁনাজরিপের ফলাফল
আজকের ভিউ
পুরোনো সংখ্যা
2015 The Jaijaidin
close