logo
বুধবার ২১ আগস্ট, ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

  গোপাল রায়   ০৬ মার্চ ২০১৯, ০০:০০  

বইয়ের ফেরিওয়ালা পলান সরকার

বইয়ের ফেরিওয়ালা পলান সরকার
নিজের টাকায় বই কিনে নিতেন। আর সেই বই ঝোলা ভর্তি করে বেরিয়ে পড়তেন বিলি করার জন্য। মাইলের পর মাইল পথ হেঁটে একেক দিন একেক গ্রামে গিয়ে দুয়ারে দুয়ারে পৌঁছে দেন সেই বই। আবার যখন বইটি পড়া শেষ হয়ে যায়, ঠিক তখনই হাজির হয়ে কড়া নেড়ে দেন। ফেরত নিতেন পড়া হয়ে যাওয়া বইটি তার সঙ্গে আরেকটি বই দিতেন পড়ার জন্য। এভাবে বই ফেরি করেন বলে ছোটরা বলেন 'বইওয়ালা দাদুভাই' আর বড়রা বলতেন 'বইয়ের দুলাভাই' বলে। অনেকে আবার সহজ-সরল মনের মানুষ বলেও ডাকেন।

বইওয়ালা দাদুভাই, সহজ-সরল মানুষটির নাম হলো পলান সরকার।

নাটোরের আমগাছে ঢাকা বাগাতিপাড়া গ্রামে এই বই ফেরিওয়ালা সহজ-সরল মানুষটির জন্ম হয় ১৯২১ সালে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত গড়ালেও তার মধ্যে বই পড়ার জেদ থেকেই যায়। তাই তিনি বই পড়া চালিয়ে যান উদ্যম গতিতে। নিজে যেমনি পড়তেন ঠিক তেমনি অন্যরাও যেন পড়ে তার জন্য তিনি স্কুলে যারা ভালো করতেন তাদের বই উপহার দিতেন। ১৯৯২ সালে তার ডায়াবেটিকস ধরা পড়ে। ডাক্তার তাকে প্রচুর হাঁটতে বললেন। তিনি হাঁটার অভ্যাস গড়ে তুললেন। তখনই তার মাথায় এলো হাঁটার মধ্যে বই বিতরণের অভিনব চিন্তাটা। এভাবেই বই পড়ার ভিত গড়ে উঠল। নিজের টাকায় বই কিনে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বই বিতরণ শুরু করে দিলেন।

এই সহজ-সরল মানুষটির সহজ-সরল কাজেই একদিন যে অভিনব স্বীকৃতি পাবে তার প্রমাণ ২০১১ সালে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সম্মান একুশে পদক লাভ।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে