logo
  • Thu, 20 Sep, 2018

  অনলাইন ডেস্ক    ১৮ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০  

সাইনোসাইটিস হলে

ক্রনিক সাইনোসাইটিস একটি দীঘের্ময়াদি রোগ বা প্রদাহ। নাকের চারপাশে অস্তিগুলোতে বাতাসপূণর্ কুঠুরি থাকে, যাদের সাইনাস বলা হয়। সাইনোসাইটিস হলো ওই সাইনাসগুলোর ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশন।

প্রদাহের কারণ : সাইনাসগুলোর প্রদাহের মধ্যে ম্যাক্সিলালি সাইনাসের প্রদাহ সবচেয়ে বেশি হয়। একিউট সাইনোসাইটিস এবং শ্বাসনালির ওপরের অংশের ইনফেকশন থেকে অ্যালাজির্, অপুষ্টি, স্যঁাতসেঁতে পরিবেশ ও দঁাতের রোগ থেকে এটি হতে পারে। তবে বেশির ভাগ সাইনাসের প্রদাহ নাকের ইনফেকশন থেকে হয়।

লক্ষণ : নাকের পাশে অনবরত ব্যথা, সকালে ঘুম ওঠার পর মাথাব্যথাও থাকতে পারে। সবসময় নাক বন্ধ থাকে। কোনো স্বাদ ও ঘ্রাণ বুঝতে অসুবিধা হয়। বিশেষত, অস্থিরতা এবং অনীহা দেখা দেয়। মাঝেমধ্যে জ্বর আসে। মিউকোমার আবরণ পাতলা হয়ে যায়।

চিকিৎসা : চিকিৎসকের পরামশর্ অনুযায়ী অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করতে হবে। এ ছাড়া ধুলাবালি এড়িয়ে চলতে হবে। ধূমপান থেকে বিরত থাকতে হবে। দঁাতের ক্ষয় এবং অন্যান্য রোগের চিকিৎসা করাতে হবে। ব্যথা থাকলে ব্যথানাশক ওষুধ খাওয়া যেতে পারে। ওষুধে ভালো না হলে, সাইনাস ওয়াশ করতে হবে। অনেকের ভুল ধারণা আছে, একবার সাইনাস ওয়াশ করলে বারবার করতে হয়। ধারণাটা ঠিক নয়। ব্যাকটেরিয়াজনিত সাইনোসাইটিস ওয়াশ করে উপযুক্ত মাত্রা এবং নিয়মে অ্যান্টিবায়োটিক খেলে রোগী সম্পূণর্ ভালো হয়। বতর্মানে সাইনাস রোগের চিকিৎসায় অ্যান্ডোসকোপিক সাইনাস সাজাির্র করা হয়। বাংলাদেশের বড় বড় হাসপাতাল এবং মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়মিত অ্যান্ডোসকোপিক সাইনাস সাজাির্র হচ্ছে।

য় ইন্টারনেট
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

উপরে