logo
শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬

  আইন ও বিচার ডেস্ক   ১৪ মে ২০১৯, ০০:০০  

সংখ্যা তথ্যে সরকারি লিগ্যাল এইড পরিষেবা

সংখ্যা তথ্যে সরকারি লিগ্যাল এইড পরিষেবা
জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সরকারি আইনগত সেবা পেয়েছেন ৩ লাখ ৬৮ হাজার ৯৮৫ জন নারী, পুরুষ ও শিশু। এর মধ্যে ২০১৬ সালে ৩৩ হাজার ৭৩৪ জন, ২০১৭ সালে ৩৫ হাজার ১৭৮ জন ও ২০১৮ সালে ৩৪ হাজার ৭০২ জন আইনি সহায়তা পেয়েছেন।

আইনি পরামর্শ ও সহায়তার জন্য জাতীয় আইনগত সহায়তা পরিচালিত হেল্পলাইনের (১৬৪৩০) মাধ্যমে ২০১৬ সালের ২৮ এপ্রিল থেকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৪৫ হাজার ১৭৯ জন আইনি পরামর্শ নিয়েছেন। এর মধ্যে নারী ১৩ হাজার ৯৭, পুরুষ ৩১ হাজার ৯৬০, ১২১ জন শিশু ও ১ জন তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তি রয়েছেন।

এ ছাড়া জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা ২০০৯ থেকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬৪টি জেলায় কমিটির মাধ্যমে ২ লাখ ২৭ হাজার ২৬১ জনকে সরকারি খরচে মামলা দায়ের করতে আইনজীবী নিয়োগসহ প্রাসঙ্গিক সব ব্যয় বহন করেছে।

২০১৪ থেকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত পারিবারিক, দেওয়ানি, ফৌজদারিসহ বিভিন্ন আইনগত বিষয়ে ৪১ হাজার ৮৪৬ নারী ও পুরুষকে আইনগত পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ২৬ হাজার ২৪০ নারী ও ১৫ হাজার ৬০৬ পুরুষ রয়েছেন।

সরকারি আইনি সহায়তা প্রদান সংস্থার শ্রমিক আইন সহায়তা সেল থেকে ২০১৩ থেকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৪ হাজার ৩৪৬ জনকে আইনগত সহায়তা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া নোটিশের মাধ্যমে ৫৯১টি বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি পদ্ধতিতে এবং ক্ষতিপূরণ বাবদ ২ কোটি ১২ লাখ ২৪ হাজার ২৮৫ টাকা আদায় করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টে ২০১৫ সালে লিগ্যাল এইড সেবা চালু হওয়ার পর থেকে ওই বছরের সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত ১৩ হাজার ৫৩ মামলায় আইনি মতামত ও পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এই সময়ে ১ হাজার ১০৩টি মামলার মধ্যে ৫৪৮টি মামলা নিষ্পত্তিতে (জেল আপিল, দেওয়ানি আপিল, ফৌজদারি আপিল, দেওয়ানি রিভিশন, রিট আবেদন ইত্যাদি) ভুক্তভোগীদের সহায়তা দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ৪৬০টি জেল আপিল নিষ্পত্তিতে সহায়তা করা হয়েছে।

২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মোট ১১ হাজার ৮৩৬টি বিরোধ (প্রিকেইস ও পোস্ট কেইস) নিষ্পত্তির মাধ্যমে ১৩ হাজার ৭৯ জন উপকারভোগীকে বিরোধ নিষ্পত্তিতে সহায়তা করা হয়েছে। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির আইনগত দাবি ও পাওনার পরিপ্রেক্ষিতে মধ্যস্থতা করে ১৩ কোটি ৬৪ লাখ ৭ হাজার ৬৪৮ টাকা আদায় করা হয়েছে। এ ছাড়া এই সময়ে আইনি পরামর্শ ও এডিআরের বিধির আওতায় নিষ্পত্তিকৃত মামলা ২৩ হাজার ৬২৭। আর এর মাধ্যমে উপকারভোগী ২৬ হাজার ১৫৮ জন।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে