logo
বৃহস্পতিবার ২৩ মে, ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  জাফরিন হোসেন   ১১ মার্চ ২০১৯, ০০:০০  

অফিসে ভালো করার কৌশল

অফিসে ভালো করার কৌশল
আপনি যে অফিসে কাজ করছেন, সেখানে অন্তত একজন বিরক্তিকর সহকর্মী থাকতেই পারে, যার সঙ্গে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না আপনি। এ কারণে অফিসে কাজ করার আগ্রহও নষ্ট হয়ে যেতে পারে আপনার। প্রতিদিন যদি এমন পরিস্থিতিতে পড়েন, তাহলে অফিসে আপনার পারফরম্যান্স খারাপ হয়ে যেতে পারে। এ অবস্থা থেকে উৎরে উঠতে নিচের কিছু কৌশল অবলম্বন করতে পারেন-

* অফিসে কাজের চাপ থাকবেই : আপনাকে এটা মনে রাখতে হবে অফিস একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতার জায়গা। এখানে বন্ধু তৈরি করতে কেউ আসে না। এখানে সবাই যার যার ডেডলাইন অনুযায়ী কাজ করে। তাই কাজের চাপের কারণে যে সহকর্মী আপনার সঙ্গে বিরক্তিকর বা রূঢ় আচরণ করছে, তাকে কাজের খাতিরেই ক্ষমা করে দিন। কোনো সহকর্মী বাজে আচরণ করলে, তা ব্যক্তিগতভাবে নেবেন না। নিজেকে সব সময় বোঝান যে উপেক্ষা করলেই শান্তি পাওয়া যায়।

* খানিকটা ডিপেস্নামেটিক হোন : স্পষ্টভাষী হওয়া বা সবার সামনা-সামনি সব কথা বলা বেশ ভালো এক গুণ। তবে কর্মক্ষেত্রে মেপে কথা বলাটাই বুদ্ধিমানের কাজ। যে সহকর্মী আপনার সঙ্গে বিরক্তিকর আচরণ করছে, তার সঙ্গে উল্টো রূঢ়ভাবে কথা বলা বা তার সঙ্গে রাগ করে কথা বলা বন্ধ করে দেয়া ভালো কাজ না। এ ক্ষেত্রে খানিকটা ডিপেস্নামেটিক হতে পারেন আপনি। তার সঙ্গে সম্পর্ক আরও খারাপ হোক, তেমন আচরণ না করাই ভালো।

* উদার হোন : সহকর্মী বিরক্তিকর আচরণ করেলও আপনি উদার হোন। কাজের পরিবেশ সুন্দর রাখার চেষ্টা করুন। এ ক্ষেত্রে ওই সহকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে কফি পান করুন, তাকে সঙ্গে নিয়ে অফিস চত্বরে খানিকটা হাঁটুন, কথা বলুন। তবে অফিসসংক্রান্ত কোনো কথা এ সময় না বলে অন্য বিষয়ে কথা বলুন। ওই সহকর্মীকে বুঝে ওঠার চেষ্টা করুন। এতে হয়তো আপনাদের মধ্যে ভালো সম্পর্ক তৈরি হয়ে যাবে।

* কথা বলুন একান্তে : যদি ক্যাজুয়াল আচরণে ওই সহকর্মীর স্বভাবে কোনো ফারাক না আসে, তাহলে তার সঙ্গে একান্তে কথা বলতে হবে। তাকে বলুন অফিসে দু'জনকেই একই সঙ্গে ভালো পরিবেশে কাজ করে যেতে হবে। তার কোনো আচরণে আপনি বিরক্ত, তা ভদ্রভাবে বুঝিয়ে বলুন। ওই সহকর্মী এর উত্তরে আপত্তিকর কথা বললেও তা উন্মুক্ত মনে হজম করুন। দু'জনের প্রচেষ্টায় অফিসে একটা সুন্দর সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করুন।

* নিজেকে প্রশ্ন করুন : কেন ওই সহকর্মীর আচরণে বারবার আপনি বিরক্ত হচ্ছেন, সে প্রশ্ন করুন নিজেকে। এরপর নিজের আচরণ ঠিক আছে কিনা, তা যাচাই করুন। যেমন- বস যদি ওই সহকর্মীর কাজে প্রশংসা করে, তাহলে কি বিরক্ত হন আপনি? সেটা আপনার ঈর্ষাবোধকেই প্রকাশ করে। হতে পারে ওই সহকর্মী সবসময় চনমনে, ফুরফুরে থাকুক, সেটা আপনার পছন্দ না। সে রকম না ভেবে বরং ওই সহকর্মীর মতো কীভাবে অফিসে হাসিখুশি ও সতেজ থাকা যায়, তা শিখুন।

* সব খুলে বলুন : সহকর্মীর বিরক্তিকর আচরণ থেকে রেহাই পেতে আরেকটি উপায় হলো- এ বিষয়ে অফিসের বাইরের কারও কাছে সব কিছু খুলে বলা। আজকের দিনে অফিসে ওই সহকর্মীর কোন কোন আচরণ আপনার ভালো লাগেনি, তা বলুন বাইরের কোনো বন্ধুকে। এতে মন হালকা হবে আপনার। এ ছাড়া তৃতীয়পক্ষ তার মতো করে বিষয়টি ভেবে হয়তো আপনাকে ভালো কোনো পরামর্শও দিতে পারবেন।

* শেষ উপায় : যদি কোনোভাবেই ওই সহকর্মীর আচরণ শোধরানো না যায়, দিনে দিনে তার আচরণ আরও বিরক্তিকর, অপমানজনক হয়ে ওঠে, তাহলে এ বিষয়ে প্রমাণসহ অফিসের ম্যানেজার, বস বা হিউম্যান রিসোর্স কর্মকর্তাকে জানাতে পারেন আপনি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে