logo
  • Wed, 19 Sep, 2018

  তাসনিয়া আক্তার   ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

ছোট্ট সোনার জামাটা...

ছোট্ট সোনার জামাটা...
খেলার মাঠে, মা-বাবার হাত ধরে খেলনা বা বইয়ের দোকানে কিংবা পিকনিকে ঘুরতে যাওয়া শিশুদের পোশাক এখন অনেক আধুনিক। তার মানে জবরজং হলে কিন্তু চলে না। গরমকাল মাথায় রেখে শিশুর পোশাক নিয়ে ভাবনার আছে অনেক কিছু।

শিশুদের পোশাকে সবচেয়ে গুরুত্বপূণর্ হলো কাপড়ের ধরন। গরমে শিশুদের জন্য সুতি পোশাকের বিকল্প আর কিছুই হতে পারে না। এর পাশাপাশি বড়জোর ভয়েল চলতে পারে, তাও সবচেয়ে পাতলা ভয়েলটা। ক্ষেত্রবিশেষে তঁাতও চলতে পারে।

কিন্তু আধুনিক পাশ্চাত্য ধঁাচের পোশাকে কি সুতি চলে? কেন নয়? কৃত্রিম তন্তুর কাপড়ে তৈরি পোশাকগুলোতেও শিশুর আরামকে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। ফলে নরম জজের্ট বা লিনেনের কদরও বেড়েছে বেশ।

ফ্যাশন ডিজাইনাররা বলছেন, শিশুরা প্রধানত উজ্জ্বল রং পছন্দ করে। নিজ পছন্দে কিনলে ওরা হয়তো বেছে নিতে পারে টকটকে লাল পোশাক বা কালো ট্রাউজার। এ ক্ষেত্রে মা-বাবাই কৌশল খাটিয়ে পরাতে হবে ওদের জন্য উপযোগী রঙের পোশাক। শিশুদের গরমের পোশাকের রং হওয়া উচিত কোমল, যেটায় শিশুদের আরাম প্রাধান্য পায়, আর তাপও শোষণ না করে। সে ক্ষেত্রে রং হতে পারে সাদা, আবছা সাদা, ঘিয়ে, হলুদ, সবুজ, নীল, আকাশি, গোলাপি ইত্যাদি। শিশুদের পোশাকের মোটিফ হিসেবে এলোমেলো নকশার বদলে চল বেড়েছে সাদাসিধে নকশার। হয়তো সাদা একটা ফ্রক, তার পাইপিংটা হলুদ। কিংবা লাল একটা শাটর্, তার কলারে মেরুন কাপড়ের ফেট্টি থাকতে পারে। বণর্মালা, কিংবা মজার সব ছবির বøক প্রিন্টও থাকতে পারে। সুতার হালকা কাজ, কোমরে ফিতার ঘেরে একটা উজ্জ্বল ফুল, ফতুয়ার পেছনে পাখি, কাটুর্ন বা জ্যামিতিক নকশার চল তো থাকছেই।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

উপরে