logo
সোমবার ২০ মে, ২০১৯, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১২ মে ২০১৯, ০০:০০  

আমার মা, মায়ের আমি

মা! এক শর্তহীন ভালোবাসার নাম। ছোট্ট শব্দটিই যেন ভীষণ মমতার। ভালোবাসার সবটুকু দিয়েও এ ঋণ শোধ করা যায় না। সন্তানের কাছে সবচেয়ে আপন, সবচেয়ে প্রিয় হচ্ছেন তার মা। ছোটবেলায় বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন মা। মায়ের গর্ভ থেকে শুরু করে জন্মের পরেও তিল তিল করে নাড়িছেঁড়া ধনকে একজন ভালো মানুষ হিসেবে বড় করে তোলেন মা। 'আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে' কবির এই ভাবনাটি প্রতিটি মায়েরই মনের কথা। আজ মে মাসের দ্বিতীয় রোববার, বিশ্ব মা দিবস। লিখেছেন আফশিন তিরানা

আমার মা, মায়ের আমি
মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানাতে বিশেষ এই দিনটিতে মায়ের পছন্দের কোনো উপহার দিতে পারেন মডেল : অনন্যা ও আসমা শোভা
মা! এক শর্তহীন ভালোবাসার নাম। ছোট্ট শব্দটিই যেন ভীষণ মমতার। ভালোবাসার সবটুকু দিয়েও এ ঋণ শোধ করা যায় না। সন্তানের কাছে সবচেয়ে আপন, সবচেয়ে প্রিয় হচ্ছেন তার মা। ছোটবেলায় বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন মা। মায়ের গর্ভ থেকে শুরু করে জন্মের পরেও তিল তিল করে নাড়িছেঁড়া ধনকে একজন ভালো মানুষ হিসেবে বড় করে তোলেন মা। 'আমার সন্তান যেন থাকে দুধে-ভাতে' কবির এই ভাবনাটি প্রতিটি মায়েরই মনের কথা। আজ মে মাসের দ্বিতীয় রোববার, বিশ্ব মা দিবস। সারা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আজকের এই দিনে বাংলাদেশেও পালিত হয় দিবসটি।

বিশ্বে প্রতি বছর 'মা দিবস' উদযাপন হয় মে মাসের দ্বিতীয় রোববার। এই দিনে দূরে থাকা সন্তানরা তার মায়ের কাছে ছুটে যায়। মাকে জড়িয়ে ধরেন, একান্তভাবে কাছে টেনে নেন। মায়ের জন্য নিয়ে আসেন উপহার সামগ্রী। কেউ উপহার দেন কার্ড, ফুলের তোড়া। কেউ বা কেক কেটে নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দিবসটি পালন করেন। 'মা দিবস'-এর ইতিহাসের ব্যাপারে জানা যায় : এ দিবসের প্রথম শুরু হয় যুক্তরাষ্ট্রে। আর এই দিবসটির প্রবক্তার নাম আনা মারিয়া রিভস জার্ভিস। তার মায়ের নাম আন মরিয়া রিভস জার্ভিস। তিনি ছিলেন একজন মানবতাবাদী ও সমাজসেবী। তিনি 'মাদারস ডে ওয়ার্ক ক্লাব' প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। ১৯০৫ সালে আন মারা যান। তার মৃতু্যর পর মেয়ে আনা মায়ের সেই স্বপ্ন পূরণের কাজ শুরু করেন। সব মাকে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য একটি দিবসের প্রচলন তিনি চালু করেন। পরে ১৯০৮ সালে আনা পশ্চিম ভার্জিনিয়ার একটি গির্জায় তার মায়ের স্মরণে একটি অনুষ্ঠান করেন। সে বছর মার্কিন কংগ্রেস 'মা দিবস'কে স্বীকৃতি দিলেও এই দিবস সরকারি ছুটির ঘোষণা দেয়নি। তবে এ ব্যাপারে আনা তার চেষ্টা চালিয়ে যান। তখন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গ রাজ্যে 'মা দিবস' পালন শুরু হয়। পরে আনার অক্লান্ত প্রচেষ্টায় ১৯১৪ সালে তৎকালীন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসন মে মাসের দ্বিতীয় রোববারকে 'মে দিবস' হিসেবে ঘোষণা দেন এবং এই দিন সরকারি ছুটির দিন ঘোষণা করেন। তারই ধারাবাহিকতায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মে মাসের দ্বিতীয় রোববারকে 'মা দিবস' হিসেবে পালন করা হচ্ছে।

মাকে উপহার দিতে পারেন মায়ের পছন্দের শাড়িও। ফ্যাশন হাউসগুলোয় মায়েদের জন্য নতুন নানা ডিজাইনের শাড়ি পাওয়া যাবে। এখন যেহেতু গরমকাল তাই মায়েদের পোশাকে ডিজাইনের পাশাপাশি কাপড়ের আরামদায়কতা এবং রঙের দিকটিও মাথায় রাখা হয়েছে। মায়েদের আরামের কথা ভেবে তাঁতের শাড়িতে উইভিংয়ের ডিজাইন করা হয়েছে। সুতি এবং অ্যান্ডির কম্বিনেশনে শাড়ি রয়েছে। যারা সালোয়ার-কামিজ পরতে পছন্দ করেন তাদের জন্য রয়েছে হালকা রঙের তাঁতের কাপড়ের লম্বা কামিজ। হাইনেক, ভি নেক, রাউন্ড নেক গলার কামিজের কাটিংয়েও আনা হয়েছে নতুনত্ব।

একটু ভিন্ন আঙ্গিকে মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানাতে বিশেষ এই দিনটিতে মায়ের পছন্দের কোনো উপহার দিতে পারেন, মায়ের হাত ধরে ঘুরে আসতে পারি কাছে কিংবা দূরে কোথাও। মা তো আপনাকে রোজই রান্না করে খাওয়ান, এ দিনটিতে আপনি রান্না করে খাওয়াতে পারেন মাকে। উপহার দিতে পারেন শাড়ি, গহনা, বই, ডায়েরি, গানের সিডি, ব্যাগ, ফ্রেমে বাঁধানো ছবি ছাড়াও পছন্দের যে কোনো কিছু। মাকে চমকে দিতে পারেন শুধু একগুচ্ছ ফুল দিয়েও।

নারী জীবনের সবচেয়ে সুখময় মুহূর্ত তখনই আসে যখন সে মা হয়। মাতৃত্বের মধুর এই স্বাদ পেতে চান না এমন নারী খুঁজে পাওয়া দায়। মা তো মা-ই, সে হোক বয়স্কা কিংবা তরুণী। আজ যেহেতু মায়েদের দিন, তাই সব মায়ের জন্যই থাকা চাই স্টাইল এবং ফ্যাশন। গরমের সময়ে মায়ের আরামের বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে। তাই সুতি পোশাকে সাজুন মা।

বিশেষ দিনে মায়ের ফ্যাশন কেমন হবে? আধুনিক মায়েদের ফ্যাশনে পালাজ্জো দারুণ প্রিয়। পালাজ্জোর সঙ্গে লং কামিজ বা ম্যাক্সি টপ পরতে পারেন। প্রিন্টেড লং কুর্তির সঙ্গে বেছে নিন একরঙা পালাজ্জো। কামিজের রঙের বিপরীত রঙের পালাজ্জো পরুন। একরঙা শার্টের সঙ্গে প্রিন্টেট পালাজ্জো দারুণ মানাবে।

এ দিনটিতেই মাকে শুধু উপহার দিলে বা খুশি করলেই হবে না। হৃদয়ের গহিনে মায়ের প্রতি অমলিন ভালোবাসা থাকতে হবে। শ্রদ্ধা, সম্মান আর ভালোবাসায় ভরিয়ে দিতে হবে জীবনের প্রতিটি দিন, প্রতিটি ক্ষণ। কারণ এ পৃথিবীতে মায়ের তুলনা শুধুই মা। মা এমন একটা শব্দ যেখানে বর্ণমালার কমতি থাকতে পারে ভালোবাসার নয়। এ পৃথিবীতে যার মা নেই সেই বোঝে মায়ের অপূর্ণতা। আজকের এই মা দিবস তার কাছে কত কষ্টের, অপূর্ণতার, সব থেকেও যেন কিছু নেই। আব্রাহাম লিংকন বলেছিলেন, 'যার মা আছে সে কখনই গরিব নয়।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে