logo
  • Tue, 25 Sep, 2018

  অনলাইন ডেস্ক    ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

মোহনীয় সুহাসিনী টয়া

এ প্রজন্মের অন্যতম জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া। সদা হাস্যোজ্জ্বল, সাবলীল অভিনয়, মোহনীয় রূপ-মাধুযর্্য নিয়ে এরইমধ্যে জায়গা করে নিয়েছেন অসংখ্য দশের্কর হৃদয়ে। রেডিও, টেলিভিশন, ইউটিউব, চলচ্চিত্র সব খানেই রেখেছেন মেধার স্বাক্ষর। দিনে দিনে নিজের অভিনয়কে করছেন আরও সমৃদ্ধ। জনপ্রিয় এই লাক্স তারকার অভিনয়জীবন ও ব্যক্তিজীবনের গল্প নিয়ে লিখেছেন মাসিদ রণ

মোহনীয় সুহাসিনী টয়া
মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া
টপদার্র জনপ্রিয় তারকা মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া প্রথমবারের মতো চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। রাশান নূর পরিচালিত ছবিটির নাম ‘বেঙ্গল বিউটি’। ছবিটির জন্য অনেক পরিশ্রম করেছেন তিনি। এরইমধ্যে দেশের বাইরে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে। দেশেও মাত্র একটি হলে ছবিটি মুক্তি পায় কয়েক মাস আগে। তবে এবার সারাদেশে ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে। তাই টয়া এখন এই ছবির প্রচার-প্রচারণা নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন। ছবিটি প্রসঙ্গে টয়া বলেন, ‘গত ১২ ফেব্রæয়ারিতে আমেরিকায় মুক্তি পায় আমার অভিনীত প্রথম পূণৈর্দঘর্্য চলচ্চিত্র ‘বেঙ্গল বিউটি’। আর এবার দেশের দশর্ক ছবিটি দেখতে পাবেন। তাই ছবিটি ঘিরে দ্বিগুণ উত্তেজনা কাজ করছে। একে তো প্রথমবারের মতো বড়পদার্য় নিজেকে দেখার উত্তেজনা, তার ওপর আমেরিকার একাধিক হলে আমার ছবিটি দেখানো হয়েছে। দুটি বিষয়ই আমার জন্য ভীষণ আনন্দের। এই দিনটির জন্যই হয়তো এতদিন অপেক্ষা করে ছিলাম। লাক্স সুপারস্টার প্রতিযোগিতা থেকে বের হওয়ার পর অনেক ছবির প্রস্তাব পেয়েছি। কিন্তু কোনোটিই আমার মনমতো হয়নি। ধৈযর্্য ধারণ করেছি, বানের জোয়ারে গা ভাসিয়ে দিয়ে যাচ্ছে তাই মানের ছবি করিনি। অবশেষে বেঙ্গল বিউটি ছবির প্রস্তাব পাই। আমি যে ধরনের কাজ করতে চাই, এটি ঠিক তেমন একটি ছবি। তাই মনপ্রাণ দিয়ে কাজ করেছি। আশা করছি দশর্ক দারুণভাবে উপভোগ করবেন ছবিটি।’

টয়া আরও বলেন, ‘আমি এই ছবিটি নিয়ে অনেক বেশি আশাবাদী। শুধু বিদেশি দশর্ক নয়, আমাদের দেশের সব শ্রেণির দশর্কদের এ ছবিটি ভালো লাগবে। ছবিটি ১৯৭১ সালের গল্প নিয়ে তৈরি হয়েছে। কিন্তু যুদ্ধ ছাড়া একটা অন্য রকম ভালোবাসার গল্প দেখানো হয়েছে। ওই সময়টা ধরা হয়েছে মূলত একজন মেডিকেলের ছাত্রী ও একজন ডিজের প্রেম কাহিনী নিয়ে ছবিটির গল্প।’

বড় পদার্র চেয়ে ছোট পদার্য় টয়ার ব্যস্ততা বেশি। গেল ঈদুল আজহায় টয়া অভিনীত বেশকিছু নাটক প্রচার হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকটি নাটক দশর্ক পছন্দের তালিকায় প্রথম দিকে রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে রাজিবুল ইসলাম রাজীব পরিচালিত আনিসুর রহমান মিলনের বিপরীতে ‘অনুভ‚তি’, ইমরাউল রাফাত পরিচালিত তৌসিফের বিপরীতে ‘আছে আসার পরে’, সোহেল আরমানের পরিচালনায় মনোজ কুমারের বিপরীতে ‘হুদয় আছে যার’, জোভানের বিপরীতে ‘ভালোবাসা মানে কি’ নাটকগুলো।

ঈদের কিছুদিন আগে প্রকাশ হওয়া টয়ার মিউজিক ভিডিও ‘গালের্ফ্রন্ডের বিয়ে’ও দশর্ক পছন্দ করেছে। এতে সংগীতের দুই সহোদর প্রতীক হাসান ও প্রিতম হাসানের লোভী প্রেমিকার চরিত্রে টয়ার মজার কমর্কাÐ দশর্কদের বেশ আনন্দ দিয়েছে। প্রতিটি মিউজিক ভিডিওতে নিজেকে আলাদাভাবে উপস্থাপন করেন বলে এই সেক্টরে তার চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। বিশেষ করে নাচনিভর্র মিউজিক ভিডিও হলে তার ডাক পড়ে সবার আগে। কারণ এরই মধ্যে মমতাজের লোকাল বাস গানের ভিডিওতে নেচে সাড়া ফেলে দেন এই মডেল ও অভিনেত্রী।

নাটক, মিউজিক ভিডিও, চলচ্চিত্রের পাশাপাশি ওয়েব সিরিজেও দশের্কর নজর কেড়েছেন এই তারকা।

বতর্মানে টয়া অভিনীত ধারাবাহিক নাটক ‘নোয়াশাল’ আরটিভিতে, ‘হিংটিংছট’ চ্যানেল আইতে ও ‘বারো ঘরের এক উঠোন’ একুশে টিভিতে প্রচার হচ্ছে। ধারাবাহিকের বাইরে বিশেষ দিবসের জন্য খÐ নাটকেও কাজ করছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে টয়া বলেন, ‘তপু খানের ‘অ্যাডমিশন টেস্ট’ ছিল আমার অভিনীত প্রথম ওয়েব সিরিজ। দারুণ দশর্কপ্রিয়তা পায় কাজটি। তাই এবার নতুন আরেকটি ওয়েব সিরিজে কাজ করলাম। কিছুদিন আগে ঢাকার আশপাশের এলাকায় ইমরাউল রাফাতের পরিচালনায় এই ওয়েব সিরিজের দৃশ্যধারণ হয়েছে। এর নাম ‘উলালা’। তবে কি চরিত্রে অভিনয় করেছি তা এখন জানাতে চাই না। এটাই দশের্কর জন্য চমক।’

এদিকে, গেল ৩১ আগস্ট ইউটিউবে মুক্তি পায় টয়া অভিনীত নাটক ‘তারই অপেক্ষায়’। মোহন আহমেদের রচনা ও পরিচালনায় নাটকটিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ছোটপদার্র আরেক জনপ্রিয় মুখ তৌসিফ মাহবুব। এ নাটকের দশর্ক সাড়া নিয়ে টয়া বলেন, ‘নাটকটির গল্পে ভিন্নতা রয়েছে। এটি এবারের ঈদে আমার কাজগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রিয়। এতে তৌসিফ একজন পাগলের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। সবমিলিয়ে বেশ ভালো সাড়া পাচ্ছি। যত দিন যাবে নাটকটি তত বেশি দশের্কর কাছে পেঁৗছাবে বলে আমার বিশ্বাস।’

শুধু কাজ নয়, সম্পকের্র ব্যাপারেও বেশ সচেতন এই লাক্সতারকা। কলেজজীবনের শুরুতে একটি প্রেম হয়েছিল। কিন্তু মিডিয়ায় নিয়মিত কাজ করা মেনে নিতে পারেননি সেই প্রেমিক। তবে বতর্মান রিলেশন স্ট্যাটাস নিয়ে টয়া বলেন, ‘এখন অবশ্য একজনের সঙ্গে ভালোবাসার সম্পকর্ আছে। তবে সম্পকর্টা কত দূর যাবে, সেটা জানি না। বিয়েটা নিজের ও পারিবারিক পছন্দেই হবে।’

অবশেষে চতুর কণ্ঠে টয়া বললেন, ‘এখন আমার পুরোদস্তুর প্রেম চলছে কাজের সঙ্গে। যে চরিত্রে যখন অভিনয় করি, তখন আসলে চরিত্র বা বিপরীত মানুষ দুটির সঙ্গেই প্রেম করি। আসলে ভালো কিছু করার জন্য পরিচালক ও সহশিল্পীর সঙ্গে প্রেম করি। এই প্রেম না থাকলে ঠিকঠাক কাজ করা কঠিন।’

পিছনের কথা ...

টয়ার বাবা ব্যবসায়ী, মা স্কুলশিক্ষক। দাদাবাড়ি নোয়াখালী হলেও সেখানে খুব বেশি থাকা বা যাওয়া হয়নি। এখন যে কোনো উৎসব বা পারিবারিক কোনো অনুষ্ঠানের সূত্রে যাওয়া হয়। কিন্তু বেড়ে ওঠা, কিশোরীবেলা সবটুকুই কেটেছে রাঙামাটির প্রকৃতির সঙ্গে। পাহাড়ের ওপর তাদের একটা সুন্দর বাড়ি। এখনও পরিবারের সবাই মিলে মাঝে মধ্যে সেখানে বেড়াতে যান। টয়ারা দুই বোন। এক বোনের বিয়ে হয়েছে। একটা বাচ্চাও আছে। সেই বাচ্চা হলো টয়ার সবচেয়ে বড় সমালোচক। খালামণি এটা কেন করছ, এটা ভালো হয়নি, এটা সুন্দর হয়েছেÑ এ জাতীয় প্রশ্নবাণে আটকে ফেলে সে। সেই সমালোচক বা দশের্কর জন্য হোক, নিজের কাজ সম্পকের্ বেশ সচেতন টয়া। লাক্স সুপারস্টার থেকে বের হয়েছেন ২০১১ সালের শুরুতে। তারপর থেকে কখনো বিজ্ঞাপন, নাটক বা টেলিছবি করেছেন। তবে ২০১৬ সালের শেষ দিকে প্রকাশ পায় টয়ার ‘লোকাল বাস’ গানের মিউজিক ভিডিও। তারপরই বদলে যায় সব হিসাব-নিকাশ। গানটির ‘হিট’ তকমা লাগার পরপরই অনবরত মিউজিক ভিডিওর জন্য প্রস্তাব পেতে থাকেন টয়া। নাচে গানে ভরপুর এমন দু-তিনটি কাজ করেছেনও। আপাতত মিউজিক ভিডিওকে না বলেছেন তিনি।

এখন নাটক করছেন নিয়মিত। তবে ভবিষ্যতে চলচ্চিত্র নিয়ে অনেকদূর পাড়ি দেয়ার স্বপ্ন তার।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

উপরে