logo
শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  যাযাদি ডেস্ক   ১৫ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০  

মোদিকে উপযুক্ত শিক্ষা দেয়ার সময় এসেছে :ইমরান

জ্জ পাক সেনাদের কাশ্মীর সীমান্তে মোতায়েন করা হতে পারে

মোদিকে উপযুক্ত শিক্ষা দেয়ার সময় এসেছে :ইমরান
পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে প্রকাশ্য চ্যালেঞ্জ দিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, 'মোদিকে উপযুক্ত শিক্ষা দেয়ার সময় এসে গেছে। মোদির ছোড়া ইটের জবাব আমরা পাথর দিয়ে দেব।' পাকিস্তান ঘোষিত 'কাশ্মীর সংহতি দিবসে' বুধবার মোজাফফরাবাদের অ্যাসেম্বলিতে দেয়া ভাষণে এ হুশিয়ারি দেন তিনি। সংবাদসূত্র : ডন, জিয়ো নিউজ

পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, 'এই মুহূর্তে আরএসএস নামে ভয়ঙ্কর একটি মতবাদ আমাদের সামনে রয়েছে, যারা হিটলারের নাৎসি বাহিনীর আদর্শে অনুপ্রাণিত। আমিই প্রথম বিশ্ববাসীর সামনে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আসল চেহারা তুলে ধরেছি।' তিনি বলেন, 'আরএসএস সদস্যরা মনে করে- মুসলমানরা তাদের ওপর কয়েকশ বছর শাসন করেছে। তাই এখন মুসলমানদের থেকে প্রতিশোধ নিতে হবে। কারণ তারা যদি আমাদের (হিন্দুদের) ওপর শাসন না করত, তাহলে আমরা একটি শক্তিশালী গোষ্ঠীতে পরিণত হতাম- এটিই আরএসএসের মতাদর্শ।' ইমরান খান বলেন, এমন হিংসাত্মক মনোভাব ও মতাদর্শ নিয়ে বিগত কয়েক দশক আরএসএস বেশ তৎপর হয়েছে। বাবরি মসজিদ ধ্বংস এটির একটি অংশ ছিল। বিগত পাঁচ বছরে কাশ্মীর নিয়ে ভয়ঙ্কর পরিকল্পনা সাজিয়েছে। তিনি বলেন, 'আরএসএসের মিশন বাস্তবায়নে মোদি তার শেষ কার্ড খেলে ফেলেছেন। আমি মনে করি, এটি তার ঐতিহাসিক একটি ভুল। যার জন্য তাকে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হবে।' কাশ্মীরি জনগণকে আশ্বস্ত করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'এখন থেকে আমি স্বাধীন কাশ্মীরের দূত হিসেবে কাজ করব।'

এর আগে বুধবার স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দেয়া এক বিবৃতিতে পাকিস্তান কাশ্মীরি ভাইদের পাশে থাকবে বলে নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সাবেক এ ক্রিকেট তারকা বলেন, স্বাধীনতা দিবস মানুষের জন্য আনন্দের সুযোগ এনে দেয়। কিন্তু অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় দমন-পীড়নের শিকার ভাইদের দুর্দশায় আমরা দুঃখ ভারাক্রান্ত।'

পাকসেনা মোতায়েন করা হতে

পারে কাশ্মীর সীমান্তে

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত পাকিস্তানি রাষ্ট্রদূত আসাদ মাজিদ খান বলেছেন, কাশ্মীর পরিস্থিতির অবনতি হলে আফগান সীমান্তে থাকা পাকিস্তানি সেনাদের সরিয়ে কাশ্মীর সীমান্তে মোতায়েন করা হতে পারে। আর পাকিস্তান এ সিদ্ধান্ত নিলে আফগানিস্তানে তালেবানের সঙ্গে পাকিস্তানের মধ্যস্থতায় যুক্তরাষ্ট্র যে শান্তি আলোচনা করছে, তা ভেস্তে যেতে পারে বলেও শঙ্কা প্রকাশ করেছেন মাজিদ খান। 'নিউইয়র্ক টাইমস'র এডিটোরোরিয়াল বোর্ডকে সোমবার দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মাজিদ খান বলেন, কাশ্মীর ও আফগানিস্তান আলাদা দুটি ইসু্য, তিনি এ দুটোকে এক করতে চান না। তার দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের আলোচনার সাফল্য কামনা করা সত্ত্বেও পাক রাষ্ট্রদূত বলেন, অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় দমন-পীড়ন খুব খারাপ সময়ে শুরু হয়েছে।

তিনি বলেন, 'আমরা পশ্চিম সীমান্তে বিপুল সেনা মোতায়েন করে রেখেছি। তবে কাশ্মীর পরিস্থিতির যদি অবনতি হয়, তাহলে পূর্ব সীমান্তে সেনা পুনঃমোতায়েন করব। ইসলামাবাদ এই মুহূর্তে পূর্ব সীমান্ত ছাড়া অন্য কিছু নিয়ে চিন্তা করছে না।' পাক রাষ্ট্রদূত বলেন, 'আমি সন্দেহ করছি, পরিস্থিতির অবনতি ঘটবে।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে