logo
সোমবার, ০৩ আগস্ট ২০২০, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

দিলিস্নতে ব্যাগ তৈরির কারখানায় ভয়াবহ আগুন :নিহত ৪৩

ম নিরাপত্তার গলদেই দুর্ঘটনা শোক প্রকাশ নেতাদের

দিলিস্নতে ব্যাগ তৈরির কারখানায় ভয়াবহ আগুন :নিহত ৪৩
ঘটনাস্থলে দমকল বিভাগের গাড়ি
যাযাদি ডেস্ক

ভারতের রাজধানী দিলিস্নর কেন্দ্রস্থলে একটি ব্যাগ তৈরির কারখানায় অগ্নিকান্ডে অন্তত ৪৩ জন নিহত হয়েছেন। শহরের রানি ঝাঁসি সড়কের আনাজ মান্দি এলাকার কারখানাটিতে রোববার স্থানীয় সময় ভোর ৫টার দিকে এ অগ্নিকান্ড ঘটে। নিহতদের অধিকাংশই কারখানাটির শ্রমিক। সংবাদসূত্র : এনডিটিভি, এবিপি নিউজ

যখন আগুন লাগে, তখন কারখানার শ্রমিকরা ঘুমাচ্ছিলেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। অগ্নিকান্ডস্থল থেকে ৫০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। ভেতরে আটকা পড়া অনেককে উদ্ধার করে আরএমএল হাসপাতাল ও হিন্দু রাও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দিলিস্ন দমকল বিভাগের উপপ্রধান সুনীল চৌধুরী বলেন, '৬০০ বর্গফুটের ওই কারখানাটিতে ভোরে আগুন লাগে। এর ভেতরটা অন্ধকার। এখানে স্কুলব্যাগ, বোতল তৈরি করে রাখা হতো।'

এদিকে, শর্টসার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। দিলিস্ন পুলিশের পিআরও এমএস রান্ধাওয়া জানাচ্ছেন, উদ্ধার কাজ শেষ হয়েছে। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল এরই মধ্যে গোটা ভবনে তলস্নাশি চালিয়েছে। কেউ কোথাও আটকে নেই বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। অনুমতি ছাড়াই কারখানায় কাজ চলছিল। তাই মালিকদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়েছে। শিগগিরই অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হবে। গোটা বিষয়টির তদন্তের ভার দেওয়া হয়েছে দিলিস্ন পুলিশের অপরাধ দমন শাখাকে।

নিরাপত্তার গলদেই দুর্ঘটনা শোক প্রকাশ নেতাদের

আগুন লাগার পর যেন 'নরকে' পরিণত হয়েছে দিলিস্নর ব্যাগ কারখানা। শনিবারও যেখানে দিনভর ব্যস্ততা ছিল, এখন সেখানে রাজ্যের নিস্তব্ধতা। বাতাসে লাশের গন্ধ। সব পুড়ে ভস্ম হয়ে গেছে। ভয়ঙ্কর অগ্নিকান্ডে হু হু করে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। এদিকে, এই ঘটনায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শুরু করে বিরোধীদলের নেতা রাহুল গান্ধী, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়সহ দিলিস্নর মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল সবাই শোক প্রকাশ করেছেন। নিহত ও আহতদের পরিবারের জন্য অর্থ সাহায্যের ঘোষণা করেছেন কেজরিওয়াল। ঘটনাটিকে 'ভয়ঙ্কর' বলে বর্ণনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, 'নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাই। আহতদের দ্রম্নত আরোগ্য কামনা করি।' এদিকে, ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেছেন মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল। হাসপাতালে আহতদের সঙ্গেও দেখা করেছেন তিনি। এমন মর্মান্তিক ঘটনায় শোকস্তব্ধ কেজরি বলেন, 'অত্যন্ত দুঃখের ঘটনা। বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। মৃতদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে। এছাড়া সরকারি খরচেই আক্রান্তদের চিকিৎসা হবে।'

এই ভয়াবহ আগুনে কথা উঠেছে নিরাপত্তার গলদ নিয়ে। যেখানে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে, সেই আনাজ মান্দি এলাকার ওই ঘনবসতিপূর্ণ গলিটিতেই আরও অনেক ছোট ছোট কারখানা ও গুদাম রয়েছে। যেখানে প্রশাসনের অনুমতি না নিয়েই চলছে রমরমা অবৈধ ব্যবসা। আর এসবে কারও নিয়ন্ত্রণ নেই। প্রতিবছরই এমন অবহেলায় বাড়ছে দুর্ঘটনা। এছাড়া আপাতত অন্যান্য ভবনের বাসিন্দাদেরও অন্য নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে