logo
শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

ওয়াশিংটনের বিবৃতি

ইরানি হামলায় মার্কিন সেনাদের সমস্যা মস্তিষ্কে আঘাত

আহত সেনাদের মধ্যে ১৭ জনকে এখনো চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ইরাক অ্যান্ড আফগান ভেটেরান অব আমেরিকার

ইরানি হামলায় মার্কিন সেনাদের সমস্যা মস্তিষ্কে আঘাত
ইরানি হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত একটি মার্কিন ঘাঁটি
যাযাদি ডেস্ক

ইরাকের মার্কিন ঘাঁটিতে গত ৮ জানুয়ারি ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর ৩৪ মার্কিন সেনাকে মস্তিষ্কে আঘাতজনিত সমস্যার চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা সদর দপ্তর পেন্টাগন। আহতদের মধ্যে ১৭ জনকে এখনো চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র নিশ্চিত করেছেন। সংবাদসূত্র: রয়টার্স, বিবিসি

বাগদাদ বিমানবন্দরে মার্কিন ড্রোন হামলায় কুদস বাহিনীর শীর্ষ কমান্ডার কাসেম সোলাইমানি নিহতের পালটায় তেহরানের ওই হামলায় কোনো মার্কিন সেনা আহত হননি বলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছিলেন। পেন্টাগনের সাম্প্রতিক তথ্য ওই দাবিকে খারিজ করে দিচ্ছে।

কয়েক দিন আগে মার্কিন সেন্ট্রাল কমান্ডও ইরানি হামলায় ১১ মার্কিন সেনার মানসিক অস্থিরতাজনিত সমস্যা দেখা দেওয়ার কথা জানিয়েছিল। এ নিয়ে সুইজারল্যান্ডের দাভোস সম্মেলনে ট্রাম্পকে জিজ্ঞাসা করা হলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, 'সেনাদের মাথাব্যথাসহ হালকা কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছিল বলে শুনেছি।'

'ট্রমাটিক ব্রেইন ইনজুরি' বা মস্তিষ্কে আঘাতজনিত সমস্যা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, 'আমি যে ধরনের আঘাত দেখেছি, তার সঙ্গে এই আঘাত মারাত্মক বলে মনে করি না।' তিনি আরও বলেন, 'আমার কাছে এগুলোকে বড় কোনো সমস্যা মনে হয়নি।'

পেন্টাগন জানিয়েছে, ইরাকের আইন আল-আসাদ ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সময় অধিকাংশ সেনাকেই বাঙ্কারে নিরাপদ আশ্রয়ে রাখা হয়েছিল। তেহরানের হামলায় কোনো মার্কিন সেনা নিহত হয়নি বলেও জোর দাবি জানিয়েছে তারা।

শুক্রবার মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জনাথন হফম্যান বলেন, মস্তিষ্কে আঘাতজনিত সমস্যায় ভোগা ৮ সেনাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হয়েছে। ৯ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে জার্মানিতে। আহত বাকি ১৭ সেনার মধ্যে ১৬ জনকে ইরাকে এবং একজনকে কুয়েতে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল। তারা পরে বাহিনীতে ফিরেছে বলেও হফম্যান নিশ্চিত করেছেন।

প্রতিরক্ষা দপ্তর আরও বলছে, ইরানি হামলার পর তাৎক্ষণিকভাবে ৩৪ সেনার এ মস্তিষ্কে আঘাতজনিত সমস্যার বিষয়টি প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপারকে জানানো হয়নি। সেনাদের মস্তিষ্কে আঘাতজনিত এ সমস্যার বিষয়টি এতদিন লুকিয়ে রাখার ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে অলাভজনক সংস্থা 'ইরাক অ্যান্ড আফগান ভেটেরান অব আমেরিকা'।

সংস্থাটি ট্রাম্প প্রশাসনের সমালোচনা করে বলছে, তারা আহতের খবর দিতে অনেক বেশি সময় নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা পল রিয়েকফ টুইটে বলেন 'এটা একটা বড় ঘটনা'। তিনি বলেন 'আমাদের ছেলে এবং মেয়েদের কোনো ক্ষতির খবর আদান-প্রদানের ব্যাপারে মার্কিন নাগরিকদের অবশ্যই সরকারের ওপর বিশ্বাস আনতে হবে। এর চেয়ে গুরুত্ব এবং ভীতিকর আর কিছু হতে পারে না।'

যুদ্ধক্ষেত্রগুলোতে মস্তিষ্কে আঘাতজনিত সমস্যাটি (টিবিআই) খুবই সাধারণ ঘটনা, বলছে মার্কিন সেনাবাহিনী। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে বিস্ফোরণের প্রভাবে এ ধরনের সমস্যা দেখা দেয় বলে জানিয়েছে মার্কিন ডিফেন্স অ্যান্ড ভেটেরান ব্রেইন ইনজুরি সেন্টার।

এদিকে শুক্রবার বাগদাদে কয়েক লাখ মানুষ যুক্তরাষ্ট্রবিরোধী বিক্ষোভ দেখিয়েছে। বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারীরা ইরাক থেকে মার্কিন ও অন্যান্য দেশের সেনাদের প্রত্যাহারের দাবি জানান। ইরাকের পার্লামেন্টও যুক্তরাষ্ট্রসহ সকল বিদেশি বাহিনীকে তাদের ভূখন্ড ছাড়ার আহ্বান জানিয়েছে।

\হ
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে