logo
রোববার ২৬ মে, ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  রাজশাহী অফিস   ০১ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০  

সহিংসতায় আরও একজনের মৃত্যু

রাজশাহী-১ আসনের গোদাগাড়ী উপজেলার পলানপুর উচ্চবিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে বিএনপি-জামায়াতের হামলায় আহত আওয়ামী লীগ নেতা ইসমাইল হোসেনের (৫০) মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান বলে জানিয়েছেন গোদাগাড়ী থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম।

নিহত ইসমাইল হোসেন উপজেলার কাজিহাটা গ্রামের আজাহার কারির ছেলে। আওয়ামী লীগ প্রাথীর্র দেওপাড়া ইউনিয়ন নিবার্চন পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহŸায়ক ছিলেন ইসমাইল হোসেন। এছাড়া তিনি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও স্থানীয় কামারুজ্জামান স্মৃতি সংঘের সভাপতি।

দেওপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন বলেন, ভোটের দিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ভোটকেন্দ্রে হামলা চালায় বিএনপি-জামায়াত নেতাকমীর্রা। এতে কয়েকজন আহত হন। হামলার সময় ইসমাইল পাশের একটি বাড়িতে আশ্রয় নেয়। সেখানে গিয়ে বিএনপি-জামায়াত নেতাকমীর্রা ইসমাইলকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভতির্ করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়। সকালে তিনি মারা যান।

ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ভোটকেন্দ্রে বিএনপি-জামায়াত নেতাকমীর্রা হামলা চালায়। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়। এর একপযাের্য় ইসমাইল হোসেন পাশের একটি বাড়িতে আশ্রয় নিলে সেখানে গিয়ে তাকে হাতুড়ি দিয়ে পেটানো ও রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়।

ওসি বলেন, এ ঘটনায় সোমবার দুপুর পযর্ন্ত মামলা হয়নি। লাশের ময়নাতদন্ত করে লাশ পরিবারের সদস্যদের হস্তান্তরের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বিকেলে লাশের দাফন সম্পন্ন হবে। এর পর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।

এ নিয়ে রাজশাহীতে নিবার্চনী সংহিসতায় তিনজন আওয়ামী লীগ নেতাকমীর্ নিহত হলেন। ভোটের দিন রাজশাহী-১ আসনের তানোর উপজেলার মোহাম্মদপুর উচ্চবিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ নেতা মোদাচ্ছের হোসেন পিটিয়ে এবং রাজশাহী-৩ আসনের পাকুড়িয়ে ভোটকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ কমীর্ মেরাজুল ইসলাকে কুপিয়ে হত্যা করে বিএনপি-জামায়াত নেতাকমীর্রা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে