logo
সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০, ২৯ আষাঢ় ১৪২৬

  বিনোদন ডেস্ক   ২৯ মে ২০২০, ০০:০০  

ক্রাইম পেট্রোল অভিনেত্রীর সুইসাইড নোট

ক্রাইম পেট্রোল অভিনেত্রীর সুইসাইড নোট
প্রেক্ষা মেহতা
করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে শুটিং বন্ধ। এ কারণে পায়ের তলার মাটি যাদের শক্ত নয়, সেসব অভিনয় শিল্পীর আয়-রোজগার নেমে গেছে শূন্যের কোঠায়। তাদেরই একজন ভারতের টিভি অভিনেত্রী প্রেক্ষা মেহতা। ঘরবন্দি থাকায় তাকে আঁকড়ে ধরেছে মানসিক অবসাদ। সব মিলিয়ে মনোবল ধরে রাখতে পারেননি। এ কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন তিনি। সোমবার রাতে ভারতের মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের ইনদোরে নিজের বাসার সিলিং ফ্যানের সঙ্গে দড়ি ঝুলিয়ে গলায় ফাঁস দিয়েছেন ২৫ বছর বয়সী এই তরুণী। সুইসাইড নোটে তিনি উলেস্নখ করেছেন, ভাঙা স্বপ্ন নিয়ে বেঁচে থাকা যায় না। পরদিন মঙ্গলবার সকালে সিলিং ফ্যানে প্রেক্ষাকে ঝুলে থাকতে দেখেন তার বাবা। তড়িঘড়ি মেয়েকে হাসপাতালে নিয়ে গেলেও চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়াকে ইনদোরের হীরানগর থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর রাজীব ভাদোরিয়া জানান, প্রেক্ষার ঘরে এক পাতার সুইসাইড নোট পাওয়া গেছে। এতে তিনি লিখেছেন, কোভিড-১৯ মহামারিকালে বিভিন্নভাবে ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মনোবল ধরে রাখতে পারেননি। সুইসাইড নোটে প্রেক্ষা লিখেছেন, 'আমার ভেঙে যাওয়া স্বপ্নগুলো আমার আত্মবিশ্বাসকে মেরে ফেলেছে। মৃত স্বপ্ন নিয়ে বাঁচতে পারব না। এভাবে অনর্থক বেঁচে থাকা কঠিন। গত এক বছর অনেক চেষ্টা করেছি। আমি এখন ক্লান্ত হয়ে পড়েছি।' ভারতের আরেক সংবাদমাধ্যম প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়াকে (পিটিআই) রাজীব ভাদোরিয়া বলেন, 'প্রাথমিক তদন্তে আমরা ধারণা করছি, প্রেক্ষা মেহতা হতাশায় ভুগছিলেন। আমরা এই ঘটনার বিস্তারিত খতিয়ে দেখছি। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।'

ইনদোরে প্রেক্ষার বাসার কাছেই থাকেন তার এক কাজিন। তিনি পিটিআই'কে জানান, প্রেক্ষা কঠোর পরিশ্রম করতেন। তাই নিজেকে নিয়ে তার প্রত্যাশা অনেক বেশি ছিল। ছোটবেলা থেকে তিনি ছিলেন প্রাণবন্ত। কিন্তু পরে অনেক চুপচাপ হয়ে পড়েন।

সোমবার রাতে পরিবারের সঙ্গে তাস খেলায় যোগ দেননি প্রেক্ষা। সিঁড়িতে একা বসে ছিলেন তিনি। মা তার কাছে জানতে চেয়েছিলেন ঠিক আছেন কিনা। তিনি আশ্বস্ত করে জানান ভালো আছেন। লকডাউন শুরুর আগে মুম্বাই থেকে ইনদোরে চলে আসেন প্রেক্ষা। আত্মহত্যার কয়েক ঘণ্টা আগে ইনস্টাগ্রাম স্টোরিসে তিনি লিখেছেন, 'স্বপ্নের মৃতু্য হওয়া খুব বাজে ব্যাপার।' এতে তার বিরক্তিকর মানসিক অবস্থার আভাস ছিল।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে