logo
বুধবার ১৯ জুন, ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১৩ জুন ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষপে

মিলাকে গ্রেপ্তারের

দাবিতে মানববন্ধন

বিনোদন রিপোর্ট

মিলা ও তার সহকারী পিটার কিমকে গ্রেপ্তারের দাবিতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার মিলার সাবেক স্বামী বৈমানিক এস এম পারভেজ সানজারির পক্ষে তার ভাই ও এইড ফর মেন নামের একটি সংগঠন এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

গত ৫ জুন সানজারির ওপর অ্যাসিড হামলা চালিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে গায়িকা মিলার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন পারভেজ সানজারির বাবা এস এম নাসির উদ্দিন। উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলাটি (নম্বর-৫) দায়ের করা হয়। সেই মামলার এজাহারে মিলা এবং তার সহকারী পিটার কিমকে অভিযুক্ত করা হয়।

গতকাল সকাল ১০টায় সেই মামলায় অভিযুক্ত মিলা ও তার সহযোগী পিটারকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেন সানজারির ভাই এবং এইড ফর মেন নামের একটি সংগঠন।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন এইড ফর মেন সংগঠনের আহ্বায়ক ড. আব্দুর রাজ্জন। এছাড়া মানববন্ধনে সানজারির ভাই অ্যাডভোকেট আলামিন খান, এইড ফর মেন-এর আইন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট কাউসার হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সানজারির ভাই আলামিন খান বলেন, 'পরিকল্পিতভাবে কণ্ঠশিল্পী মিলার নির্দেশে আমার ভাইয়ের ওপর অ্যাসিড ছুড়েছে তার সহকারী কিম। তার হাত ও শরীরের বিভিন্ন অংশ পুড়ে গেছে। আমার ভাইকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। এখনো নিয়মিত হুমকি দিয়ে আসছে মিলার লোকজন। তাদের বিচারের দাবিতে আমরা রাস্তায় নেমেছি।'

এইড ফর মেন সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম নাদিম বলেন, 'হামলার ১০ দিন পার হলেও এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি, যা চরম হতাশাজনক। পারভেজ সানজারি শুধু পুরুষ হওয়ার কারণে সুষ্ঠু বিচার পাচ্ছেন না।'

এখনো পুরোপুরি সুস্থ না হওয়ায় মানববন্ধনে উপস্থিত হতে পারেননি সানজারি। মুঠোফোনে তিনি বলেন, 'আমার ওপর যারা হামলা করেছে তাদের বিচার চাই। ন্যায়বিচারের দাবিতে আমার ভাইয়েরা রাস্তায় দাঁড়িয়েছে। অবিলম্বেই যেন তাদের গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় নেয়া হয়।'

সানজারি আরও বলেন, 'গত ২ জুন সন্ধ্যার দিকে মোটরসাইকেলযোগে যাওয়ার সময় পথে মিলার সহকারী কিমের সঙ্গে দেখা হয় আমার। তাকে পাশ কাটিয়ে চলে যেতে চাইলে হঠাৎ একটি বোতল থেকে আমার দিকে কিছু ছুড়ে মারা হয়। এতে আমার পা, কাঁধ ও হাতের বেশ কিছু জায়গা ঝলসে যায়। পরে আমাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে