logo
শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

সাক্ষাৎকার

মাহেন্দ্রক্ষণে মা আমার সঙ্গে থাকবেন

দীর্ঘদিন ধরেই নাটক ও চলচ্চিত্রে সুনাম ও দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে আসছেন অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। বৈচিত্র্যময় অভিনয়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। এ বছর দ্বিতীয়বারের মতো শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিনি। আজ সন্ধ্যায় পুরস্কারটি গ্রহণ করবেন। এর আগে তার সঙ্গে কথা বলেছেন- রায়হান রহমান

মাহেন্দ্রক্ষণে মা আমার সঙ্গে থাকবেন
নুসরাত ইমরোজ তিশা
ভাষা নেই...

'জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার' রূপালী জগতের মানুষের জন্য রাষ্ট্রীয়ভাবে সর্বোচ্চ স্বীকৃতি। আজ সে পুরস্কারটি গ্রহণ করতে যাচ্ছি- এ আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। তবে দুনিয়ার যেখান থেকে যত পুরস্কার পাই না কেন, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার আমার কাছে অনেক বেশি অর্থবহ। আর এমন মাহেন্দ্রক্ষণে মা আমার সঙ্গে থাকবেন। তিনি পাশে থাকলে আমার আনন্দ বহুগুণে বেড়ে যাবে।

মাথা-ব্যথা নেই...

এই সম্মাননা প্রাপ্তিতে পরবর্তী কাজগুলো প্রভাবিত হবে কিনা, আমি জানি না। তবে ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই ভালো গল্পের পিছনে ছুটেছি। চিত্রনাট্য পছন্দ হলে আমি কাজ করি; সেটা নাটক হোক আর চলচ্চিত্র। কাজের মাধ্যম নিয়ে আমার মাথা ব্যথা নেই। তবে গল্পটা চাই যুৎসই। সামনের দিনগুলোতেও ভালো গল্পেই কাজ করব।

ভালোই লাগছে...

আমরা শিল্পীরা কখনোই পুরস্কারের জন্য কাজ করি না। 'হালদা' ছবিতে 'হাসু' চরিত্রটিও তাই। অভিনয়ের সময় চরিত্রটিকে ঠিক-ঠাক উপস্থাপন করা ছাড়া মাথার মধ্যে অন্যকিছু থাকে না। তবে ছবিটি মুক্তির পর অনেকেই প্রশংসা করেছেন। এখন এ চরিত্রটির জন্যই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার গ্রহণ করতে যাচ্ছি- ভাবতে ভালোই লাগছে। কাজের এমন স্বীকৃতি পেলে কার না ভালো লাগে!

আক্ষেপ নেই...

অনেক চরিত্রেই অভিনয় করেছি। তবে কোন চরিত্রটি পুরস্কার পেল, আর কোন চরিত্রটি পেল না- এ নিয়ে কোনো আক্ষেপ আমার মধ্যে কাজ করে না। কারণটা আগেই বলেছি, অভিনয় করার সময় পুরস্কারের কথা ভেবে করি না। সুতরাং আপেক্ষ থাকার প্রশ্নই উঠে না।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে